1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
শ্লীতাহানির শিকার গৃহবধুর গ্রাম্য বিচার ভন্ডুল - দৈনিক শ্যামল বাংলা
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:১০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:

শ্লীতাহানির শিকার গৃহবধুর গ্রাম্য বিচার ভন্ডুল

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২০ জুন, ২০২০
  • ১১২ বার

ইব্রাহিম সাকিব, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি :
লালমনিরহাট জেলার শহরের অদূরে বানভাষা মোড়ের মুকুলের মার্কেট চত্ত্বরে শুক্রবার ১৯ জুন সন্ধ্যায় জনৈক গৃহবধু শ্লীতাহানির ঘটনায় থানায় অভিযোগ করায় সালিশ বৈঠকের আয়োজন করে বখাটেদের পক্ষ নিয়ে একটি প্রভাবশালী মহল। এই তথাকথিত বৈঠক চলাকালে শহর হতে প্রায় শতাধিক দূর্বৃত্ত সেখানে মহড়া দেয়। এ সময় বৈঠকে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়ে ভন্ডল হয়ে যায়। এই ঘটনা এক যুবক ভিডিও করে। তাকে দুবৃর্ত্তরা পিটিয়ে আহত করে বলে জানা গেছে। সেই সাথে তার ফোনটি ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনা শহরে টক অব দ্য টাউনে পরিণত হয়েছে।

জানা গেছে, লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার সাপ্টিবাড়ি ইউনিয়নের পূর্ব দৈইলজোর গ্রামে রেললাইনের ধারে জনৈক জনি নামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যের মাছের খামারে সার্বক্ষণিক কাজ করে আশরাফুল (৩০)। কাজের সুবিধায় সে সেখানে খামারের আধাপাকা ঘরে স্ত্রী ও ২বছরের শিশু সন্তান নিয়ে প্রায় এক মাস ধরে বসবাস করে আসছে। এলাকাটা নির্জন ও জনবসতিহীন। গত ১৭ জুন বুধবার সন্ধ্যায় লালমনিরহাট জেলা শহরের বানভাসা মোড়ের সুদের ব্যবসায়ী নূর নবীর কলেজ পড়ুয়া বখাটে পুত্র রাকিব (২০) তার কয়েক জন বন্ধুকে নিয়ে ওই মাছের খামারে যায়। মাছের খামারের পাশে থাকা রেললাইনের ধারে স্বামী-স্ত্রী বসে ছিল। বখাটেরা তাদের কাছে পানি খেতে চায়। গৃহবধু পানি আনতে গেলে কয়েক বন্ধু গৃহবধুর স্বামীকে ঘিরে ধরে গল্পের কৌশলে আটকে রাখে। এই সুযোগে বখাটে রাকিব পানি আনতে যাওয়া গৃহবধুকে বাড়ির ভিতরে জাপটে ধরে শ্লীতাহানি ঘটায় ও ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। ঘটনা বেগতিক দেখে স্বামী স্ত্রী চিৎকার দেয়। ফলে বখাটেরা দ্রুত পালিয়ে যায়। ঐ মাছের খামারের আশেপাশে কোন বাড়ি ঘর নেই। নির্জন মাছের খামারের মাঝখানে ছোট্ট একটু উঁচু ভিটায় খামারের ঘর ও থাকার ঘর আছে। বখাটেরা সংখ্যায় বেশি থাকায় এই সুযোগটি নিতে চেয়ে ছিল। এই শ্লীতাহানির ঘটনায় ভুক্তভুগি গৃহবধু এক সন্তানের জননী আদিতমারী থানায় ১৮ জুন বৃহস্পতিবার অভিযোগ দায়ের করে।
এদিকে এই ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে বখাটেদের পক্ষ নিয়ে জেলা শহরে বানভাসা মোড়ের মুকুল মার্কেটের চত্ত্বরে শুক্রবার ১৯ জুন সালিশ বৈঠক ডাকে তথাকথিত সমাজপতিরা। বৈঠক চলাকালে শহর হতে প্রায় শতাধিক সন্ত্রাসী ও দূর্বৃত্তরা বখাটের পক্ষ নিয়ে মহড়া দিতে যায়। ফলে সালিশ বৈঠককে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। দুই পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডা হলে বৈঠক ভন্ডুল হয়ে যায়। বর্তমানে দিনমজুর ওই মৎস্য খামারের শ্রমিক পরিবারটি সন্ত্রাসী ও বখাটেদের ভয়ে নিরাপত্তাহীন হয়ে আতংকে দিন কাটছে। পুনরায় শ্লীতাহানির অভিযোগ প্রত্যাহার করে নিতে বখাটেরা চাপ দিচ্ছে।

ভুক্তভুগি গৃহবধু জানান, বখাটেরা আমার সর্বনাশ করার চেষ্টা করেছে। গরীব বলে এর বিচার চাওয়া অপরাধ হয়েছে। আমার বিচার করতে চায়।

তবে গ্রাম্য একটি সূত্র জানান, বখাটে রাকিবের বাবা-মা চড়া সুদে ব্যবসা করে। এ ঘটনায় ছেলের বিচার বা থানায় মামলা হলে বানভাষা মোড়ে পরিবারটির প্রভাব খর্ব হবে। সুদের উপর বিনিয়োগ করা অর্থ তুলতে অনিশ্চয়তা দেখা দিবে। এই বখাটে রাকিবের চাচাতো ভাই মামুনকে ডিবি পুলিশ একবছর আগে বিদেশী আগ্নেস্ত্রসহ আটক করে ছিল।

আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম জানান, গৃহবধুর দায়ের করা শ্লীতাহানির অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। গ্রাম্য সালিশ বৈঠককের বিষয়টি সর্ম্পকে তাৎক্ষণিক কিছু জানাতে পারেনি। তবে খোঁজ খবর নিবেন বলে জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম