1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
শরণখোলায় ভাতা বঞ্চিত গেজেটভুক্ত এক মুক্তিযোদ্বার পরিবার! - দৈনিক শ্যামল বাংলা
বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
পথশিশুদের নিয়ে বিশ্বকাপ ফুটবল উৎসবে ঢাকা ইয়ুথ ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল রাউজানে ধর্মীয় অনুষ্ঠানে কিলোমিটার জুড়ে আলোকসজ্জা ও মাইকের শব্দ দুষণ জনজীবন অতিষ্ট এক ঘন্টা পর ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কে ট্রেন চলাচল শুরু মীরসরাইয়ে বন বিভাগের উচ্ছেদ অভিযানে ১ একর জায়গা উদ্ধার শ্রীপুরে হযবরলের মাধ্যমে চলছে ভুমি জরিপ!ষুষে মেলে মুক্তি। সৈয়দপুর ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের শরীর তিন খন্ড বাঞ্ছারামপুর বার্তার সম্পাদককে হুমকীর প্রতিবাদে মানববন্ধন দরিদ্র মানুষের মাঝে সৈয়দপুরে জামায়াতে ইসলামী শীতবস্ত্র বির্তরণ রাউজান দলিল লিখক সমিতির সভাপতি অজিত কুমার দে- সম্পাদক মিজানুর রহমান বিএনপি না এলেও নির্বাচন হয়ে যাবে- নজিবুল বশর এমপি

শরণখোলায় ভাতা বঞ্চিত গেজেটভুক্ত এক মুক্তিযোদ্বার পরিবার!

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৬৯ বার

নইন আবু নাঈম, বাগেরহাট ;
মন্তনালয়ের প্রকাশিত তালিকায় নামে সামান্য ত্রুটি থাকার কারনে শরণখোলায় প্রায়ত মুক্তিযোদ্ধা আঃ রব হাওলাদারের অসহায় পরিবারটি সরকারী ভাতার টাকা থেকে দীর্ঘদিন ধরে বঞ্চিত রয়েছেন। ২০০৫, সালে গেজেটে নাম প্রকাশ হলেও মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী খাদিজা বেগম ও সন্তানরা প্রসাশনের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও আজ পযুন্ত কোন কিনারা করতে পারেননি । ফলে আর্থিক সংকটের কারনে .এস .এস .সি পাশ করা মেয়ের লেখাপড়া বন্দ্ব হওয়ার পাশাপাশি চলছেনা মুক্তিযোদ্বার অসুস্থ স্ত্রীর চিকিৎসা। কোন ভাবে খেয়ে না খেয়ে দিন চলছে ওই পরিবারটির। কতর্ৃপক্ষের অবহেলায় তার আঃ রবের সম্মানী ভাতা চালু হচ্ছেনা বলে অভিযোগ খাদিজার । তিনি তার স্বামীর সম্মানী ভাতা পেতে প্রধান মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
খেঁাজ নিয়ে জানাযায়, উপজেলা উত্তর কদমতলা গ্রামের বাসিন্দা আঃ রব হাওলাদার ১৯৭১ সালে সুন্দরবন সাব সেক্টরের তেতুলবাড়িয়া ক্যাম্পে প্রশিক্ষন নিয়ে মেজর জিয়াউদ্দিনের (অবঃ) নেতৃত্বে পরিচালিত গ্যারিলা গুরুপের অফিসার (কমান্ডার) হেমায়াত উদ্দিন বাদশার নেতৃতে মুক্তিযুদ্বে অংশ নেয়। স্বাধীনতার পরে ২০০৪, সালে বাগেরহাট জেলা যাচাই বাচাই কমিটি কর্তর্ৃক প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে শরণখোলা উপজেলার ১৮ নং তালিকায় মুক্তিযোদ্বা আঃ রবের নাম অন্তরভূক্ত হয়। এছাড়া ২০০৫ সালে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রনালয় থেকে প্রকাশিত প্রজ্ঞাপনের ৩৮৩৮ নং তালিকায়ও তার নাম অন্তর ভূক্ত রয়েছে। ৯ বছর পূর্বে মুক্তিযোদ্ধা আঃ রব তার নিজ বাড়িতে মারাযান । ওই সময় তাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের জন্য সরকারী অনুদান হিসাবে ৫ হাজার টাকা প্রদান করা হয়। পরে তার স্ত্রী খাদিজা বেগম এর নামে ভাতা প্রদানের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয় । এছাড়া ২০১৪, সালের ২৩ ডিসেম্বর উপজেলা হিসাব রক্ষন দপ্তর থেকে মুক্তিযোদ্ধা আঃ রবের সম্মানী ভাতার অর্থ খাদিজার নামে পাশ করে দেয়া হয়। যার বই নং- শরন/৪০১ এবং সোনালী ব্যাংক রায়েন্দা বাজার শাখার হিসাব নম্বর মুক্তি/৪৪০ । কিন্তু রহস্য জনক কারনে আজও ভাতা বঞ্চিত রয়েছেন অসহায় ওই পরিবারটি ।
খাদিজা বেগম অভিযোগ করে বলেন, তার স্বামী ২০১০, সালে মারা যাওয়ার পর ভাতার টাকা পেতে সংশ্লিষ্ট দপ্তর গুলোতে বহুবার কাগজ পত্র জমা দেন। এক পর্যায়ে উপজেলা হিসাব রক্ষন দপ্তর থেকে ভাতা পাশ হলেও ব্যাংকে গিয়ে কোন টাকা উত্তোলন করতে পারিনি । পরবর্তীতে, উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ে কাগজ পত্র জমা দিয়েছি এবং গত কয়েক বছর যাবৎ আমি উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সমাজ সেবা অফিসার সহ মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারের নিকট বার বার ঘুরেও কোন কিনারা করতে পারিনি । অর্থের অভাবে আজ আমার চিকিৎসা হচ্ছেনা, ছোট মেয়েটি এসএস সি পাশ করলেও তার পড়াশুনা বন্ধ। বর্তমানে খেয়ে না খেয়ে দিন কাটে আমাদের । কতর্ৃপক্ষের অবহেলায় আমার স্বামীর সম্মানী ভাতা দীর্ঘ দিন ধরে চালু হচ্ছে না। সংশ্লিষ্টদের আন্তরিকতা থাকলে সামান্য ত্রুটির কারনে ভাতা বঞ্চিত হওয়ার কথা নয়। তিনি যাতে যাতে দ্রুত ভাতার টাকা পান সে জন্য প্রধানমন্ত্রী কাছে দাবি জানান।
শরণখোলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার হেমায়েত উদ্দিন বাদশা বলেন, আঃ রব একজন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা। এতে কোন সন্দেহ নেই । তাই এ মুহুর্তে ভাতার টাকা তার স্ত্রী – সন্তানদের খুবই প্রয়োজন । এছাড়া মুক্তিযোদ্বা কমান্ডার এম .এ .আব্দুল খেিলেক খান বলেন ,আঃ রব প্রকৃত মুক্তিযোদ্বা কিনা তা আমার জানা নেই । তবে, তার ব্যপারে উপজেলা সমাজসেবা দপ্তর থেকে খেঁাজ খবর নিয়ে প্রতিবেদন পাঠানোর কথা রয়েছে ।
শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্থফা শাহীন এবং সমাজসেবা কর্মকর্তা অতীস সরকার জানান , ওই মুক্তিযোদ্ধার ভাতা সংক্রান্ত একটি আবেদন পেয়েছি। যাচাই বাচাই করে মন্তনালয়ে তার প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে । সংশ্লিষ্ট মন্তনালয়ের নির্দেশ পাওয়া গেলে ভাতা ভোগের ক্ষেত্রে ওই পরিবারটির কোন বাঁধা থাকবেনা ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম