1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
বায়েজিদ সবুজ উদ্যান বখাটেদের দখলে - দৈনিক শ্যামল বাংলা
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৫:৫২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
দরিদ্র মানুষের মাঝে সৈয়দপুরে জামায়াতে ইসলামী শীতবস্ত্র বির্তরণ রাউজান দলিল লিখক সমিতির সভাপতি অজিত কুমার দে- সম্পাদক মিজানুর রহমান বিএনপি না এলেও নির্বাচন হয়ে যাবে- নজিবুল বশর এমপি মানিকছড়ি উপজেলা বিএনপি কাউন্সিল-২০২২অনুষ্ঠিত সৈয়দপুরে থানা ওপেন হাউস ডে অনুষ্ঠিত রাউজানে কৃষক-কৃষাণি’র মুখে হাসি ফোটাতে ধান কেটে দিলো কৃষক লীগ আনোয়ারায় তোষামোদকারী সাংবাদিকতা ছেড়ে আপোষহীন সাংবাদিকতার আহবান ঠাকুরগাঁওয়ে বিনামূল্যে চক্ষু শিবির । ঠাকুরগাঁওয়ে রাণীশংকৈল ও বালিয়াডাঙ্গী ৪৭ টি ভাটাতে ইট পোড়ানো প্রস্তুতি সম্পন্ন হলেও আগুন জ্বালানো অনিশ্চিত ! নোয়াখালীতে ৯ টি শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম হচ্ছে- যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

বায়েজিদ সবুজ উদ্যান বখাটেদের দখলে

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৯২ বার

মুজিব উল্ল্যাহ্ তুষার :
চট্টগ্রাম নগরীর বায়েজিদ বোস্তামীতে দুই একরের বিশাল জায়গায় লাগানো থোকা থোকা সবুজ লন। ৪১ প্রজাতির বৃক্ষরাজিতে পরিকল্পিত বনায়ন। বসার বেঞ্চ। ৪ হাজার ফুটের ওয়াকওয়ে। শিশুদের রকমারি খেলনা। আলোর ফোয়ারা। পানির ঝরনাধারা। সব মিলে নৈসর্গিক আয়োজন।

বায়েজিদ বোস্তামী থানাধীন সেনানিবাসে প্রবেশের সময় হাতের বাম পাশে ‘বায়েজিদ সবুজ উদ্যান।

১২ কোটি ৭৪ লাখ টাকা বরাদ্দ থাকলেও এ প্রকল্পের ব্যয় হয়েছে মাত্র ৮ কোটি ২৩ লাখ টাকা। গত (৮ অক্টোবর) এ উদ্যানের আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করা হয়।

প্রকল্প পরিচালক ও গণপূর্ত সার্কেল-১ এর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী উজির আলীর অত্যন্ত যত্নসহকারে উদ্যানের কাজটি সম্পন্ন করেছেন। প্রতিটি কাজ নিখুঁত করতে প্রাণান্ত প্রচেষ্টা চালিয়েছেন তিনি। পতেঙ্গা সৈকত, আগ্রাবাদের জাম্বুরি পার্কের পর এটিই হচ্ছে নগরবাসীর পছন্দের একটি প্রাকৃতিক বিনোদন কেন্দ্র।

এ প্রকল্পের অধীনে ২টি সৃদৃশ্য ফটক রয়েছে। বসার বেঞ্চ আছে একক ৩৯টি, দ্বৈত ৭টি। ৬০ ফুট ব্যাসের জলাধারের দুই পাশে উন্মুক্ত গ্যালারি রাখা হয়েছে। জলাধারে পানি রাখা হবে ৩ থেকে সাড়ে ৩ ফুট। ১ হাজার ২০০ ফুট সীমানাপ্রাচীর রয়েছে। পার্কে আসা লোকজনের জন্য নারী-পুরুষের আলাদা টয়লেট রয়েছে। ২৪ ঘণ্টা সিসিটিভি ক্যামেরায় মনিটরিং হয় উদ্যানটি। বাগানে সবুজ ঘাসে ও গাছে স্বয়ংক্রিয়ভাবে পানি ছিটানোর জন্য রয়েছে ৬০টি স্প্রিঙ্কলার। পুরো উদ্যানে ১০৮টি কম্পাউন্ড লাইট, ১৬টি গার্ডেন লাইট, ৫৫টি ফাউন্টেন লাইট রয়েছে।

সকালে ব্যায়াম, হাঁটাহাঁটি ও শরীরচর্চার জন্য এবং বিকালে সপরিবারে বেড়ানোর জন্য উদ্যানটি খোলা রাখা হয়। সকালে তেমন কোন সমস্যা না হলেও বিকালে উদ্যানে হাঁটার কোন পরিবেশ থাকেনা বলে জনান ব্যায়াম করতে আসা অনেকেই, তারা জানান বিকালে বখাটেরা বসে আড্ডা দেয়, এবং তারা বিভিন্ন দরণের অশ্লীল গান, হইহুল্লোড়ের কারণে পরিবার নিয়ে ব্যায়াম করতে এসে পড়তে হয় বিব্রতকর পরিস্থিতিতে। তাই সকলের দাবি উদ্যানটা যেন বখাটে মুক্ত হয়।যাতে করে সবাই মুক্ত হাওয়ায় ব্যায়াম করতে পারেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম