1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চাকরি পেয়েই ক্লিনিক প্রেমী ডাক্তার ফয়সাল! - দৈনিক শ্যামল বাংলা
রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ০১:৩৩ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
Mengenal Lebih Dekat Slot Fortune Dragon তীব্র গরম উপেক্ষা করে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন প্রার্থীরা “যোগ্য ব্যক্তিদের বেছে নিন”পছন্দমত প্রতিকে ভোট দিন! ঠাকুরগাঁওয়ের গড়েয়ায় জিংক সমৃদ্ধ চালের উপকারিতা বিষয়ে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান । ঠাকুরগাঁওয়ে টেকসই নদী ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা । সাংবাদিকদের সাথে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী কাজী মোজাম্মেল হক এর মতবিনিময় চন্দনাইশে তুচ্ছ ঘটনায় সংঘর্ষে মহিলা ও শিশুসহ আহত-৫ চন্দনাইশ হাশিমপুরে চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু আহমেদ জুনুর গণ-সংযোগ ৭২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে সেতু নির্মাণ কার স্বার্থে চন্দনাইশ বরুমতি খালের উপর ৩ সেতু আছে সংযোগ সড়ক নেই ৬৫ জন নারী কর্মী পেল ৬৭ লক্ষ ২০ হাজার টাকা  চন্দনাইশে এলজিইডি’র নারী কর্মীদের সঞ্চয় ও সনদ বিতরণ  পশ্চিম সুলতানপুর স্কুলে সর্বজনীন পেনশন স্কিম উদ্বুদ্ধকরণ সভা অনুষ্ঠিত

শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চাকরি পেয়েই ক্লিনিক প্রেমী ডাক্তার ফয়সাল!

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২ জানুয়ারি, ২০২০
  • ১৫৫ বার

নইন আবু নাঈম, বাগেরহাট :
চাকুরীতে যোগদান করেই বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্রে মেডিকেল অফিসার (ডাক্তার) মোঃ ফয়সাল আহম্মেদ স্থানীয় একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে রোগী দেখতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন। তার কর্মস্থল শরনখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্হলেও তিনি নিয়মিত রোগী দেখেন খোন্তাকাটা ইউনিয়নের আমতলী এলাকায় অবস্থিত এইচ.এম.হাতেম আলী জেনারেল হাসপাতাল নামের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে।
হাসপাতাল সুত্র ও সেবা বঞ্চিত কয়েকজন রোগী জানায় , ৩৯তম (বি .সি.এস.এ) অংশ নিয়ে ডাক্তার হিসেবে নিয়োগ পান খুলনার শহরের বাসিন্দা মোঃ ফয়সাল আহম্মেদ। পরে ২০১৯, সালের ১২, ডিসেম্বর শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্রে মেডিকেল অফিসার পদে যোগদান করেন তিনি। সপ্তাহে ২/১ দিনের বেশি হাসপাতালে বসেন না সে । সামান্য সময়ের জন্য ১-২ দিন বসলেও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া সাধারন রোগীদের ফেলে যখন তখন রেখে ওষুধ বিক্রয় প্রতিনিধিদের মটর সাইকেলের পিছনে চড়ে মুহুর্তেই গায়েব হয়ে যান তিনি । নাম গোপন রাখার শর্তে , হাসপাতালের এক কর্মী বলেন ,ফয়সাল স্যার যোগদান করেই কাজে ফঁাকিবাজি শুরু করলে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার নজরে পড়ে । পরে তাকে ডেকে সতর্ক করার কথা শুনেছি । কিন্তু বড় স্যারের নির্দেশ না মেনে রাত দিন ওই ক্লিনিকে পড়ে থাকেন । হাসপাতালের চেয়ে ক্লিনিকের প্রতি তার ভালবাসা বেশি । এছাড়া তিনি কোয়াটার না থেকে ওই ক্লিনিকেই থাকছেন । এ ব্যাপারে উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও বাগেরহাট পিসি কলেজের (সাবেক) অধ্যক্ষ আব্দুস ছাত্তার আকন বলেন , সরকারি কোন কর্মকর্তা কর্মচারী দ্বায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে অবহেলা করলে সেবা বঞ্চিত হন সাধারন মানুষ । যার দোষের ভাগিদার হতে হয় সরকারের। যারা কর্মক্ষেত্রে ফঁাকি দেয় তারা দেশ প্রধানের সুনাম চায়না । এ ধরনের অনিয়মের সাথে জড়িতদের চিহিত করে কঠোর ব্যাবস্থা গ্রহন করা উচিত । এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডাঃ ফয়সাল আহম্মেদ বলেন, রোগীদের অভিযোগ সঠিক নয় । আমি যোগদানের পর থেকে নিয়মিত অফিস করে যাচিছ । আপনাদের কাছে নিশ্চয়ই কোন রং ম্যাসেস গিয়েছে । এছাড়া অফিস সেরে হাতেম আলী ক্লিনিকে বসলে সেটা তো কোন হবে না । অপরদিকে, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ ফরিদা ইয়াসমিন , বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে বলেন , এমনটা তো হওয়ার কথা নয় । তবে, খোঁজ খবর নিয়ে দেখা হবে ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম