1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
পাকুন্দিয়ায় লেবানন ফেরত স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড - দৈনিক শ্যামল বাংলা
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১০:১০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
৩য় বারের মত মাও. সোলাইমান ফারুকী ভাইস-চেয়ারম্যান চন্দনাইশ উপজেলা নির্বাচনে বিপুল ভোটে জসিম চেয়ারম্যান আন্তর্জাতিক কম্পিউটার কোডিং এন্ড প্রোগ্রামিং সেমিনারে অংশ নিতে রাশিয়া যাচ্ছে ফারাবি রাউজানের চিকদাইরে চার কোটি টাকার আড়াই একর খাস জমি উদ্ধার রাউজান পৌরসভা প্রকল্পে উৎপাদিত ব্ল্যাক সোলজার জৈব সার হস্তান্তর ঠাকুরগাঁওয়ে রানীশংকৈলে টিউবওয়েল বিতরণ করেন– মাজহারুল ইসলাম সুজন এমপি মাগুরায় দুর্নীতি প্রতিরোধে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত তিতাসে বালুবাহী বাল্কহেডের ধাক্কায় সেতু ভেঙ্গে ১৫ গ্রামের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন মাগুরায় ১ লাখ ১৯ হাজার ৫৯৩ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানোর টার্গেট জনগণের প্রবল ইচ্ছার কারণেই দ্বিতীয়বার উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছি- রেহানা মজিদ ঠাকুরগাঁওয়ে আয়োডিনযুক্ত লবণের প্রয়োজনীয়তা বিষয়ে মতবিনিময়

পাকুন্দিয়ায় লেবানন ফেরত স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
  • ১৩৫ বার

তন্ময় আলমগীর, কিশোরগঞ্জ:
কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় লেবানন ফেরত স্ত্রী খুনের চাঞ্চল্যকর মামলায় স্বামী ছমির উদ্দিন (৫৭) কে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ তৃতীয় আদালতের বিচারক প্রদীপ কুমার রায় এই রায় দেন।

রায় ঘোষণার সময় আদালতে আসামি ছমির উদ্দিন উপস্থিত ছিল। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত ছমির উদ্দিন পাকুন্দিয়া পৌর এলাকার সৈয়দগাঁও পশ্চিমপাড়া গ্রামের মৃত ইজ্জত আলীর ছেলে।

অন্যদিকে লেবানন ফেরত নিহত গৃহবধূ মোছা. মর্জিনা আক্তার (৩৫) সংলগ্ন সৈয়দগাঁও গ্রামের নূরুল ইসলামের মেয়ে। তিনি তিন সন্তানের জননী এবং ছমির উদ্দিনের দ্বিতীয় স্ত্রী ছিলেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, মোছা. মর্জিনা আক্তার পাঁচ বছর লেবাননে প্রবাস জীবন কাটানোর পর ২০১৭ সালের ১১ জুলাই দেশে ফেরেন।

লেবাননে অবস্থানের সময় টাকা পাঠানো নিয়ে স্বামী ছমির উদ্দিনের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জেরে দেশে ফিরে তিনি স্বামীর বাড়িতে না গিয়ে সৈয়দগাঁও গ্রামে বাবার বাড়িতে গিয়ে ওঠেন।

দেশে ফেরার তিন দিন পর ১৪ জুলাই সকালে ছমির উদ্দিন শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে স্ত্রী মর্জিনা আক্তারের পেটে ছোরা দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়। মুমূর্ষ অবস্থায় এলাকাবাসী মর্জিনা আক্তারকে উদ্ধার করে পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আশপাশের এলাকায় অভিযান চালিয়ে একটি পাটক্ষেত থেকে ছমির উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে।

এ ঘটনায় নিহত গৃহবধূ মর্জিনা আক্তারের বাবা নূরুল ইসলাম বাদী হয়ে পাকুন্দিয়া থানায় ছমির উদ্দিনকে আসামি করে মামলা করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পাকুন্দিয়া থানার এসআই হুমায়ুন কবির একই বছরের ২৪ ডিসেম্বর আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন।

সাক্ষ্য-শুনানি শেষে কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ তৃতীয় আদালতের বিচারক প্রদীপ কুমার রায় মঙ্গলবার রায় ঘোষণা করেন।

রাষ্ট্রপক্ষে এপিপি আব্দুছ ছালাম এবং আসামি পক্ষে রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবী অ্যাডভোকেট জেসমিন আরা রোজী মামলাটি পরিচালনা করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম