1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : naga5000 : naga5000 naga5000
ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন হোসেন আলী মাস্টার - দৈনিক শ্যামল বাংলা
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০২:৪১ পূর্বাহ্ন

ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন হোসেন আলী মাস্টার

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৪ মে, ২০২০
  • ১৩০ বার

স্টাফ রিপোর্টার ঃ সাভার উপজেলার আশুলিয়ায় ইউপি সদস্যের মন ভরানো সৃতিচারণ। পোশাক কেনায় আনন্দ নয়, বললেন আশুলিয়া ইউনিয়নের সদস্য মোঃ হোসেন আলী মাস্টার।

তিনি বলেন, ঈদ জীবনে ফিরে পাওয়া যাবে, ফিরে পাওয়া যাবে না মানুষের জীবন। করোনার থাবায় আক্রান্ত হয়ে ক্ষত বিক্ষত করে দিল লাখো পরিবারের জীবন,দেশ-জাতি সহ সারাবিশ্বকে জাগিয়ে দিলো সৃস্টি কর্তার নিকট পানাহ চাওয়া থেকে শুরু করে সার্বিক জীবন যাপনের আশা।

জনাব হোসেন আলী মাস্টার বলেন, আমি আনন্দ পাই তখন যখন এক পোটলা ত্রাণ নিয়ে, হতদরিদ্র ও মেহনতী মানুষ গুলোর পরিবারকে এক মুঠো খাবার দিতে পেরে একটু নিজেকে নিয়ে তাদের সম্মুখ থেকে যখন মৃদু হাসি আসে তখন আমি একজন মানুষ হিসেবে আর একজন মানুষের পরিবারকে হাশি ফুটাতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করি।

সকলের প্রতি আমার আকুল আবেদন আপনারা আপনাদের চারিপাশে খেয়াল করে দেখুন করোনার এই পরিবেশ পরিস্হিতিতে মানুষ কতটা অসহায়, যে আনন্দ আপনি নিজে না করে সেই আনন্দের টাকা টুকু একজন অভাব গ্রস্থ পরিবারকে দিবেন তখন তার আনন্দই আপনার আনন্দ। কারন মানুষের বিবেক হলো সৃষ্টির সেরা আদালত।

আপনার আনন্দ একজনের কান্নায় পরিণত হবে, এই আনন্দ করবেন না আসুন একটাবার নিজের পোশাক না কিনে ওদের কথা ভাবি, একটাবার ওদের মুখে আহার তুলে দেওয়ার চেষ্টা করি।

বাহারি পোশাক কিনে দেখাবেন কাকে, কাকে নিয়ে ঈদ উদযাপন করবেন। আসুন পোশাক কিনে নয় আনন্দ করি হতদরিদ্র মেহনতী মানুষের মুখে খাবার তুলে দিয়ে।

মহামারী পরিস্থিতিতে সমাজের বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান করি আপনারা পোশাক কেনার জন্য দৌড়ঝাঁপ না করে। একটু খেয়াল করে দেখুন করোনার প্রাদুর্ভাবে কর্মহীন হয়ে পড়ে মানুষ উপবাসে দিন কাটাচ্ছে।

আমি লজ্জাপাই খাওয়ার জন্য নয়,আমি লজ্জাপাই তখন,যখন কোন মানুষ উপবাসে দিন কাটায়।
আমি কষ্ট পাই তখন, যখন একটা টেলিফোনে আমাকে বলে আমাকে ত্রাণ দাও আমার ঘরে খাবার নাই।

আসছে ধনী-গরিব ফকির-মিসকিন একসাথে ঈদের জামাত আদায় করার দিন।

আসছে একজন অপরজনকে কোলাকুলি আলিঙ্গন করার দিন।

ইচ্ছে হলেও পারবোনা ভাইকে জড়িয়ে ধরতে।
পারবো না একে অপরকে কোলাকুলি করতে।
করোনার প্রাদুর্ভাবে মহামারী পরিস্থিতিতে পারবেনা মানুষ এক জেলা থেকে আরেক জােলায় যেতে।

পারবেনা মানুষ এক ইউনিয়ন থেকে আরেক ইউনিয়নে যেতে।
পারবেনা মানুষ এক গ্রাম থেকে আরেক গ্রামে যেতে।

পারবেনা চাকরিরত স্বজনেরা বাসায় ঈদ উদযাপন করতে।
ইচ্ছে হলেও পারবেনা অপরজনকে বাসায় নিয়ে যেতে।

তাই আসুন পবিত্র ঈদুল ফিতরে ঈদের পোশাকের গুরুত্ব না দিয়ে অনাহারীদের গুরুত্ব দিই।
গুরুত্ব দিই হতদরিদ্র ও মেহনতী মানুষদের।
মনে রাখবেন ওরাও সমাজের একাংশ আপনার আমার ভাই। ওদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসুন।

আল্লাহর উপরে ভরসা রাখুন, মানুষের উপকারে এগিয়ে আসুন, মহামারী পরিস্থিতি মোকাবেলা করে গন্তব্যে পৌঁছাতে আল্লাহ নিশ্চয়ই সহযোগিতা করবেন। সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা রইল।
দূর থেকে হলেও ঈদের আনন্দ উদযাপন করা যায়।
সর্তকতা অবলম্বন করুন নিজে ভালো থাকুন অপরকে ভালো রাখুন

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম