1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
এনজিও কর্মকর্তার হামলায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ২ নারী আহত - দৈনিক শ্যামল বাংলা
রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:১৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
ঠাকুরগাঁওয়ে সীমান্ত হত্যা ও বিদেশী আগ্রাসন বন্ধের দাবীতে লাশের মিছিল ! নবীগঞ্জে শাখা বরাক বাঁচাতে পদযাত্রা পরিবেশ রক্ষায় নাগরিক আন্দোলনে এগিয়ে আসুন গাজীপুরে ১৫ ঘন্টায় তিনজনের আত্মহত্যা গাজীপুরে সিটি কর্পোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় শ্রমিকের মৃত্যু শ্রীপুরের বরমী থেকে একটি বিদেশি পিস্তল,১ রাউন্ড গুলি ও ১০০পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার-১ বাঁশখালীতে বেকারির শ্রমিক হত্যাকান্ডের আসামী মাহাবুব গ্রেপ্তার কুবিতে বিজ্ঞান উৎসব অনুষ্ঠিত। চৌদ্দগ্রামে সাবেক রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক এমপিকে মুক্তিযোদ্ধাদের ফুলেল শুভেচ্ছা মাগুরায় সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা, আটক-৩ মাগুরায় শহিদ ও মৃত মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

এনজিও কর্মকর্তার হামলায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ২ নারী আহত

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ৩ মে, ২০২০
  • ১২৬ বার

মেহেদী হাসান, শরণখোলা (বাগেরহাট) থেকে ঃ
বাগেরহাটের শরণখোলায় এনজিও কর্মকর্তার বিভিন্ন অনৈতিক কাজের প্রতিবাদ করায় তাদের হামলার স্বীকার হয়েছেন স্থানীয় একটি মুক্তিযোদ্ধা পরিবার। ওই পরিবারের ২ জন নারীকে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। গুরুতর রক্তাক্ত জখম অবস্থায় একজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ভূক্তোভোগীরা ওই এনজিওর কর্মকর্তার বিভিন্ন অনৈতিকতার বিচারের দাবিতে গত ২ মাস আগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেও অনাকাঙ্খিত এই ঘটনা এড়াতে পারেনি। মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গত ১লা মে শুক্রবার বিকেলে উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন মোস্তফা তালুকদারের মালিকানাধীন একটি আবাসিক বহুতল ভবনে এ হামলার ঘটনা ঘটে। আব্দুর রহমার ওরফে (আকাশ) এর পরিচালনায় জোয়ার ও আকাশ নীহা নামের ওই এনজিওর অফিস এবং মুক্তিযোদ্ধার ওই পরিবারটি একই ভবনে ভাড়া নিয়ে বসবাস করার শুরু থেকেই ওই বিতর্কিত কর্মকর্তার আপত্তিকর চলাফেরা ও বিভিন্ন অনিয়ম, দূর্নীতি ও অনৈতিকতার প্রতিবাদ করে আসছে এই মুক্তিযোদ্ধা পরিবার। তারই রেশ ধরে ওই দিন এই কর্মকর্তা ও তার সঙ্গীরা তাদের সাথে বাক-বিতন্ডা শুরু করে। এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে আকর্ষিক ভাবে ওই কর্মকর্তা ও তার সহযোগী আমড়াগাছিয়া গ্রামের প্রবাসী সোহাগ মৃধার স্ত্রী সুমি ও শরণখোলা গ্রামের তূষার মিস্ত্রীর মেয়ে সূবর্না মিস্ত্রী দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ী পিটিয়ে রক্তাক্ত যখম করে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের মারুফা (২২) নামের এক গৃহবধুকে। এ সময় তার দাদী বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক খাঁন এর স্ত্রী আম্বিয়া খাতুন (৫৫) কেও তারা মারধর করেন। তাদের ডাক চিৎকারে আশে-পাশের লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। মুক্তিযোদ্ধা পরিবারিক সূত্র আরো জানায়, ওই এনজিওতে কিছু উন্নয়ন কর্মী নিয়োগ করা হবে। এমন খবরে গত ৫ মাস আগে আবেদনের ভিত্তিতে সেখানে চাকুরি পায় মারুফা। শুরু থেকে সেখানকার ওই এনজিওর নির্বাহী পরিচালক এলাকার কিছু যুবতী মেয়েদের চাকরী দেয়ার সুবাদে ওই কর্মকর্তা যুবতী মেয়েদের অনৈতিক কাজের প্রস্তাব দেয়। পাশাপাশি কারো কারো সাথে এই ধরনের অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। ধারাবাহিকতায় বিভিন্ন ভাবে কু-প্রস্তাব দেয় মারুফাকেও। এমন অভিযোগ ওই পরিবারের। তার এই সকল কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করায় ৩ মাস চাকুরি করার পর এক পর্যায়ে ওই কর্মকর্তা তাকে সহ ৪ জনকে কোন বেতন না দিয়েই চাকরীচ্যুত করেন। এ ছাড়াও ওই কর্মকর্তার রোশানলের বলি হয়েছেন, চাল রায়েন্দা এলাকার বিশ^জিত এর স্ত্রী জোসনা রানী এবং ভারানীর পাড় এলাকার খলিলুর রহমান এর ছেলে আসাদুল ইসলাম সহ আরো অনেকে। তারা মান-সম্মান বাঁচাতে চাকুরি ছেড়ে দিয়েও ওই কর্মকর্তার মামলা হামলার হুমকিতে প্রতিনিয়ত আতঙ্কে থাকেন। তবে এ ব্যাপারে অভিযুক্তরা কিছুই জানেননা বলে জানান। সরেজমিন ও প্রত্যাক্ষদর্শীরা জানান, এই এনজিওর আতœপ্রকাশ ঘটার পর তাদের অফিসে যুবতী মেয়েদের ব্যাপক আনাগোনা শুরু হয়। এনজিও কার্যক্রমের আড়ালে সেখানে এলাকার মেয়েদের চাকুরীর প্রলোভনে বিভিন্ন অনৈতিকতা চলছে নাম প্রকাশ না করার শর্তে এমন মন্তব্য অনেকের। ভবনের পাসাপাসি ফ্লাটে বসবাস করেন ওই কর্মকর্তা সহ প্রায় ডজন খানেক যুবতী মেয়ে। তাদের চলাফেরাও আপত্তিকর এমন মন্তব্য স্থানীয়দের। এছাড়াও ওই কর্মকর্তা নিজের বানানো কিছু কাগজ পত্র দিয়ে প্রশাসনের নাকের ডগায় বসে এনজিওর নীতিমালা বর্হিভূত কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন বলেও ক্ষুব্ধ ওইসব চাকরিচ্যুত কর্মীদের অভিযোগ। এ সকল বিষয়ের সত্যতা যাচাই করতে সেখানকার ওই এনজিওর প্রধান কার্যালয়ে গেলে তাদের রুম তালাবদ্ধ দেখা যায়। মুঠো ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাদের মোবাইল নাম্বার বন্ধ পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহীন এর মুঠো ফোনে বারবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ না করায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। শরণখোলা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্য এসকে আব্দুল্লাহ আল-সাইদ জানান, মারামারির ঘটনা শুনেছি। অভিযোগ পেলে যথাযথ ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম