1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
কক্সবাজারেরর পিএমখালীতে বিধবা ভাতার কথা বলে অর্থ আদায় - দৈনিক শ্যামল বাংলা
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০৫:৩৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
এখনো প্রত্যন্ত চর অঞ্চলে মহিষের পাল ছাড়িয়ে রাঁখাল ওকি গাড়িয়াল ভাই এর গানের সুর তুলেন তার বাঁশিতে!!! চৌদ্দগ্রামে দৈনিক দেশ রূপান্তর এর ৫ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত শ্রীপুরে মহাসড়ক অবরোধ করে শ্রমিকদের বিক্ষোভ সৈয়দপুরে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ বদলে গেছে লালমনিরহাটের তিন বিঘা করিডোর ও দহগ্রাম-আঙ্গরপোতা ছিটমহল চৌদ্দগ্রাম প্রেসক্লাবের উদ্যোগে ৩ দিন ব্যাপী বার্ষিক আনন্দ ভ্রমণ সম্পন্ন চৌদ্দগ্রামে শুভ সংঘের উদ্যোগে অস্বচ্ছল নারীদের সেলাই প্রশিক্ষণের উদ্বোধন ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চললে কেউ অপরাধ করতে পারে না নবীগঞ্জে ঠাকু অনুকূল চন্দ্রের জন্মোৎসবে এসপিআর কালী চরন মন্ডল Pilot video game in Kenya ঠাকুরগাঁওয়ের বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈমুর রহমানের ইন্তেকাল !

কক্সবাজারেরর পিএমখালীতে বিধবা ভাতার কথা বলে অর্থ আদায়

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৪ মে, ২০২০
  • ১০১ বার

কক্সবাজার প্রতিনিধি :
কক্সবাজার সদর উপজেলার পিএমখালীতে বিধবা ভাতায় নাম দেয়ার কথা বলে ২ হাজার টাকা করে ঘুষ নিয়েছেন একটি চক্র।
পরবর্তীতে তা প্রকাশ্যে আসায় টাকা ফেরত দিয়েছে চক্রটি।

ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিমের নির্দেশে তার ভাগিনা কেফায়েত উল্লাহ, মাস্টার রশিদ ও শাহজাহান সিন্ডিকেট করে গ্রামের সরল মানুষগুলো থেকে এ টাকা আদায় করেন।

করোনার এ সংকটে চেয়ারম্যানসহ চক্রটির এমন কর্মকান্ডে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ পুরো এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে।

সোমবার (৪ মে) দুপুরে টাকা ফেরত দিয়েছেন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম।

দুইদিন আগে বিধবা ভাতায় নাম দেয়ার কথা বলে অন্তত ১০ জন নারী থেকে ২ হাজার টাকা করে নেয়া হয়।

ভুক্তভোগী পিএমখালীর ডিকপাড়ার বাসিন্দা শাহিনা আক্তার বলেন, শাহজাহান এসে বিধবা ভাতায় নাম দিবে বলে ২ হাজার টাকা করে নিয়ে যায়। চেয়ারম্যান নাকি বলেছে এ তালিকা করতে। কিন্তু টাকা কেন নিছে জানি না। আজকে দুপুর ১২ টার দিকে আবার টাকা ফেরত দিয়েছে চেয়ারম্যান।

শাহিনার মতো আরও নয়জন রয়েছে একই অবস্থা। যারা চেয়ারম্যানের ভয়ে গণমাধ্যমে কথা বলতে রাজি না হলেও টাকা নেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অভিযুক্ত শাহজাহান টাকা নেয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, আমি ৫ জনের নাম দিয়েছি যাদের কাছ থেকে ২ হাজার টাকা নিয়েছিলাম। কিন্তু সব টাকা মাস্টার রশিদ আহমদের হাতে তুলে দিয়েছি।

মাস্টার রশিদ বলেন, টাকাটা ভাগ্নের মাধ্যমে চেয়ারম্যানের হাতে পৌছে দেয়া হয়েছে। খরচের জন্য টাকাটা নেয়া হয়েছে বলে তিনি লাইন কেটে দেন। এরপর তিনি মোবাইল বন্ধ করে দেন।

বিষয়টি স্বীকার করে চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বলেন, যারা টাকা নিয়েছে তারা আমার কেউ নয়। ভুল করে টাকা নিয়েছে তা ফেরত দেয়া হয়েছে। কিন্তু তিনি কাউকে বিধবা ভাতার কথা বলে টাকা নেয়ার কথা বলেননি বলে দাবি করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম