1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : naga5000 : naga5000 naga5000
করোনায় আক্রান্ত কিশোরগঞ্জ স্বাস্থ্য বিভাগের ১০৪ জনের মধ্যে ৯৫ জনই সুস্থ, বাকিদেরও অবস্থার উন্নতি - দৈনিক শ্যামল বাংলা
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৩:৫৮ পূর্বাহ্ন

করোনায় আক্রান্ত কিশোরগঞ্জ স্বাস্থ্য বিভাগের ১০৪ জনের মধ্যে ৯৫ জনই সুস্থ, বাকিদেরও অবস্থার উন্নতি

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১১ মে, ২০২০
  • ১২৫ বার

তন্ময় আলমগীর, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি:
কিশোরগঞ্জ জেলায় রোববার (১০ মে) পর্যন্ত মোট ১৯১ জন করোনা রোগি শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে স্বাস্থ্য বিভাগেরই ১০৪ জন। এই ১০৪ জনের মধ্যে ৯৫ জন ইতোমধ্যে সুস্থ। বাকি নয় জনের অবস্থাও উন্নতির দিকে। খুব শীঘ্রই তারাও সুস্থ হয়ে ওঠবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

এছাড়া জেলার দু’টি উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। দু’জনই ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। জেলা পুলিশের ভৈরব থানার ১১ জন সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। তাদের মধ্যে ১০ জনই ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন।

আইসোলেশনে থাকা বাকি একজনের অবস্থাও উন্নতির দিকে। সবমিলিয়ে কিশোরগঞ্জ জেলায় করোনা আক্রান্ত ১৯১ জনের মধ্যে ১৫৬ জন সুস্থ হয়েছেন। এছাড়া পাঁচজন মারা গেছেন।

বর্তমানে জেলায় মোট ৩০ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে বিভিন্ন হাসপাতাল ও নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছেন।

রোববার দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে কোভিড-১৯ প্রতিরোধ ও ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে জেলা পর্যায়ে ত্রাণ কার্যক্রম সুসমন্বয়ের লক্ষ্যে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, সুস্থ হওয়া চিকিৎসক, নার্সিং স্টাফ ও স্বাস্থ্য কর্মীরা বর্তমানে স্ব স্ব চাকুরিস্থলে দায়িত্ব পালন করছেন। ফলে তাদের আক্রান্ত হওয়ার পর জেলার হাসপাতালগুলোতে সেবা প্রদান নিয়ে যে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছিল, তা এখন আর নেই।

মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন কোভিড-১৯ প্রতিরোধ ও ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ত্রাণ কার্যক্রম সুসমন্বয়ের লক্ষ্যে কিশোরগঞ্জ জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারের সচিব (ভূমি সংস্কার কমিশনের চেয়ারম্যান) মো. আবদুল মান্নান।

কমিটির উপদেষ্টা ও কিশোরগঞ্জ-১ (কিশোরগঞ্জ সদর-হোসেনপুর) আসনের সংসদ সদস্য ডা. সৈয়দ জাকিয়া নূর লিপি’র উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত এই সভায় জেলার কোভিড-১৯ প্রতিরোধ ও ত্রাণ তৎপরতায় জড়িত শীর্ষ পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ, জনপ্রতিনিধি, সেনাবাহিনীর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ সুশীল সমাজের নেতৃস্থানীয়রা অংশ নেন।

সভা সঞ্চালনায় ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী।

কিশোরগঞ্জ-১ (কিশোরগঞ্জ সদর-হোসেনপুর) আসনের সংসদ সদস্য ডা. সৈয়দ জাকিয়া নূর লিপি বলেন, কিশোরগঞ্জের করোনা পরিস্থিতি উন্নতির এই ধারা বজায় রাখতে হবে। এজন্যে আমাদের সম্মিলিতভাবে নিরন্তর কাজ করে যেতে হবে। কেননা আমরা কেউই দ্বিতীয়বার সংক্রমণ দেখতে চাই না।

করোনা মহামারির এই সময়ে কিশোরগঞ্জ পৌর এলাকায় যেন ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব না ঘটে সেদিকে নজর দেয়ার জন্য পৌরমেয়রকে তিনি নির্দেশনা দেন।

সভায় জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী বলেন, কিশোরগঞ্জের হাওর এলাকায় এবার এক লাখ তিন হাজার হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ করা হয়েছিল। ইতোমধ্যে হাওরের ৯৯ ভাগ ধান কাটা হয়ে গেছে। এছাড়া হাওর বহির্ভূত এলাকার ৫৬ ভাগ ধান কাটা হয়ে গেছে। এছাড়া ত্রাণের প্যাকেটে সব্জি দেয়ায় স্থানীয় কৃষক উপকৃত হয়েছেন।

জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী জানান, কিশোরগঞ্জ জেলার বাসিন্দা গার্মেন্টকর্মীদের তালিকা করা হচ্ছে। তারা ঈদে বাড়িতে আসতে পারবে না। এটি নিশ্চিত করতে হবে। এছাড়া গণবিজ্ঞপ্তির নির্দেশনা অনুসারে জেলায় দোকান-পাট খোলা রাখতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম