1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
রেডজোন চকরিয়ায় স্বেচ্ছাসেবকদের একমাত্র ভরসা ইউএনও তাবরীজ - দৈনিক শ্যামল বাংলা
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:০৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:

রেডজোন চকরিয়ায় স্বেচ্ছাসেবকদের একমাত্র ভরসা ইউএনও তাবরীজ

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৪ জুন, ২০২০
  • ১০৭ বার

শাহজালাল শাহেদ, চকরিয়া : রেডজোন চকরিয়ায় চলছে লকডাউন কার্যক্রম। যেদিকে যায়, সেদিকে বাঁধা-বাঁধার সম্মুখিন। অনেকটা অবরুদ্ধের মতো। আইন শৃংখলা বাহিনীর পাশাপাশি তরুণ স্বেচ্ছাসেবকদের অনড় অবস্থানের কারণে লকডাউন ব্যবস্থা কিছুটা হলেও বাস্তবায়ন করা সম্ভব হচ্ছে। ফলশ্রুতিতে এর আংশিক সুফলও পাওয়া যাচ্ছে বলে বিশ্লেষকদের অভিমত।

কেন না বৈশ্বিক মহামারী এককভাবে নিয়ন্ত্রণ কোনভাবেই সম্ভব নয়। তাই মহামারী প্রতিরোধে বহুমাত্রিক ঐক্যবদ্ধ কঠোরতম ব্যবস্থা সর্বত্র আবশ্যক।

সংক্রমণের দিক থেকে একাধিক গবেষণায় চিহ্নিত চকরিয়া পৌরসভাকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে রেডজোন ঘোষণা করা হয়। প্রথম ধাপে ১৪দিনের লকডাউন করে রাখার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। দ্বিতীয় ধাপে বাড়ে ৭দিনের জন্য। সবমিলিয়ে একুশ দিনের। শুরু হয় রেডজোন চকরিয়া পৌরসভায় লকডাউন। উপজেলা প্রশাসনের পৃষ্ঠপোষকতায় স্বেচ্ছায় নিয়োজিত হয় পৌরশহরের বিভিন্ন অলি-গলিতে অর্ধশতাধিক স্বেচ্ছাসেবক।

তরুণ এসব স্বেচ্ছাসেবকদের একমাত্র ভরসা এখন চকরিয়ার উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সৈয়দ শামসুল তাবরীজ। উপজেলার প্রিয় শহর চকরিয়া পৌরসভার মানুষগুলোকে নিরাপদে রেখে সুরক্ষা দিতে ইউএনও নিজেও মাঝে-মধ্যে দ্বিধাহীনভাবে স্বেচ্ছাসেবকের ভূমিকা পালন করে চলেছেন।

সূত্রে প্রকাশ, স্বেচ্ছায় নিয়োজিত স্বেচ্ছাসেবকদের সুফলভোগি মানুষগুলো বাহবা দিলেও সাময়িক দুর্ভোগে পড়া কিছু মানুষ গালমন্দসহ বিরূপ আচরণও করে যাচ্ছেন রীতিমতো। এমনকি গাড়ি আটকিয়ে টাকা-পয়সার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়া কিংবা নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছার সুযোগ করে দেওয়ার মতো অপ্রীতিকর অপবাদও ছড়াচ্ছেন অনেকে। নেতিবাচক মন্তব্যের মানুষগুলোর এমন অপপ্রচারের পরেও থেমে নেই স্বেচ্ছাসেবকদের স্বেচ্ছায় ইতিবাচক সেবাদান কার্যক্রম।

তারা তাদের (স্বেচ্ছাসেবকরা) কাজের প্রতি অবিচল বলে এমন মন্তব্য খোদ ইউএনওর। প্রতিদিন স্বেচ্ছাসেবকদের পরিশ্রম ও নিরলস খাটুনির সার্বিক চিত্রসহ প্রশংসামূলক তথ্য তুলে ধরে উপজেলা প্রশাসনের পেইজে পোস্ট করার মাধ্যমে ব্যাপক উৎসাহ প্রদান ও অনুপ্রেরণা যুগিয়ে যাচ্ছে উপজেলা প্রশাসন।

আর এসবের প্রত্যক্ষ, পরোক্ষ এবং নেপথ্য কারিগরের সার্বিক ভূমিকা পালন করছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ শামসুল তাবরীজ। কখনও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট; আবার কখনও স্বেচ্ছাসেবকদের টিম ম্যানেজমেন্টের ভূমিকায়। নিজেও দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন স্বেচ্ছাসেবকের, এমন দৃশ্যেরও দেখা মেলেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ছবিগুলোতে।

করোনা পরিস্থিতিতে এভাবেই পুরো পৌর এলাকাকে নিরবিচ্ছিন্ন একটি স্বস্থির শহরে পরিণত করতে অবিরাম প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ শামসুল তাবরীজ।

সচেতন মহলের মন্তব্য, যেখানে স্বেচ্ছাসেবকদের সাথে ইউএনও মহোদয়; সেখানে স্বেচ্ছাসেবকদের বিরুদ্ধে অপ্রীতিকর অপপ্রচারের অভিযোগ মিথ্যাচার ছাড়া কিছু নয়। সকল অনিয়মের উর্দ্ধে থাকা পরিচ্ছন্ন স্বেচ্ছাসেবকদের একমাত্র অভিভাবক উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ শামসুল তাবরীজ। তিনি যেভাবে নির্দেশনা দিচ্ছেন; সেভাবেই রেডজোন চকরিয়া পৌরশহরে লকডাউন কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে বলেও মন্তব্য মহলটির।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক স্বেচ্ছাসেবক বলেন, উপজেলা প্রশাসনের সকল নিয়ম-নীতি ও নির্দেশনা মেনে আমরা স্বেচ্ছায় সেবা দিয়ে যাচ্ছি। আমাদের রীতিমতো খোঁজ-খবর নিচ্ছেন উপজেলা প্রশাসনের স্বনামধন্য নির্বাহী অফিসার সৈয়দ শামসুল তাবরীজ। তিনিই মূলত আমাদের সার্বিক তদারকি করছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম