কাঠের তৈরী বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যটি প্রতিবন্ধী সোবাহান প্রধানমন্ত্রীকে দিতে চান

খ.ম. নাজাকাত হোসেন সবুজ। বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ

কাঠের তৈরী বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যটি প্রধানমন্ত্রীকে দিতে চান প্রতিবন্ধী সোবাহান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষন স্মৃতিময় করে রাখার জন্য ভাস্কর্য নির্মান করেছেন কাঠমিস্ত্রি আব্দুস সোবাহান শেখ (৩৫)। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এ ভাস্কর্যটি উপহার দিতে চান। দিন রাত কঠোর শ্রম দিয়ে তৈরী করেছেন এ প্রতিকৃতি। বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চ জাতীয় দিবসে রোববার উপজেলা চত্বরে ভাস্কর্যটি দর্শকদের জন্য উম্মুক্ত করা হয় ।

সোবাহান শেখ বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের মৃত. আব্দুল আজিজ শেখের ছেলে। ছোট সময়ে তার পিতার কাছে ৭ মার্চের ভাষন ও স্বাধীনতা যুদ্ধের কথা শুনে তিলে তিলে বঙ্গবন্ধুর প্রতি ভালোবাসা জন্ম নেয় তার হৃদয়ের গভীরে। তাঁর স্বপ্নকে মনে প্রানে লালন করতে থাকেন। আর এ ভালোবাসার বহিঃ প্রকাশ হিসেবে তিনি কাঠ দিয়ে তৈরী করেছেন ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষনের ভাষ্কর্য। দীর্ঘ ১ বছর ৩ মাস ধরে নিজের কায়িক পরিশ্রম দিয়ে তৈরি করেছেন বঙ্গবন্ধুর এ ভাষ্কর্য। প্রতিদিন রাত ২-৩ টা পর্যন্ত হাতের নিপুন কাজ ও রং তুলি দিয়ে সাজিয়েছেন এ ভাষ্কর্য।

হতদরিদ্র প্রতিবন্ধী সোবাহান শেখ পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রি। প্রতিবন্ধী ভাতা প্রাপ্ত। এ ভাষ্কর্য তৈরি করতে ৮/৯ সিএফটি রেইনট্রি কাঠ ব্যবহার করেছেন। উচ্চতা ৭ ফুট। তিনি এ ভাষ্কর্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিতে চান। এ প্রতিকৃতি দেখার জন্য দর্শনার্থীরা ভিড় জমায়। উপজেলা পরিষদ , উপজেলা প্রশাসন ও বীর মুক্তিযোদ্ধারা এ বছরে তার তৈরী বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধার্ঘ অর্পণ করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. দেলোয়ার হোসেন সরকারী বেসরকারী কোন পৃষ্ঠপোষকতা ছাড়াই বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি তৈরী করার জন্য সোবাহান শেখকে ধন্যবাদ জানান। হাজার হাজার লোক, শিক্ষক, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা এ প্রতিকৃতি দেখে ভূয়সী প্রশংসা করেন। উপজেলা চেয়ারম্যান, জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে অবহিত করা হবে বলে তিনি জানান।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.