ব্রিটেন প্রবাসী সাংবাদিকের বাড়িতে হামলা

লালমনিরহাট জেলা সংবাদদাতা।
গত ১২ মার্চ শুক্রবার রাত ১২ টার দিকে যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাংবাদিক মোঃ আমিনুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি লালমনিরহাটের পঞ্চগ্রামে মাস্ক পরিহিত কয়েকজন যুবক আকস্মিক হামলা ও ভাঙচুর চালায়।এলাকাবাসী জানান, হামলাকারীরা গালিগালাজ করে বলতে থাকে আমিনুল বিদেশ থেকে সরকার বিরোধী কর্মকান্ড পরিচালনা করছে এবং সরকার পতনের জন্য আন্দোলন করছে।জামায়াত ও বিএনপির লোকজন নিয়ে একের পর এক টক শো করে যাচ্ছে।সে কিভাবে এলাকায় ঢুকে আমরা দেখতে চাই! এ সময় তার ভাই মোঃ সাইদুল ইসলাম প্রতিবাদ করতে গেলে হামলাকারীরা তার উপর চড়াও হয়ে বেধুম- মারপিট করে এবং ভবিষ্যতে এসব বন্ধ না করলে পরিণতি খারাপ হতে পারে বলে হুমকি দিয়ে চলে যায়।

হামলার কারণ হিসেবে জানা গেছে, সম্প্রতি ৯ মার্চ ২০২১ ইংল্যান্ডের লন্ডনে অবস্থানরত সাংবাদিক আমিনুল ইসলামের উপস্থাপনায় ‘বিশ্ব তরুণ প্রজন্ম’ ফেসবুক পেজে “গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা” শীর্ষক এক টক শো অনুষ্ঠিত হয়।এতে অতিথি হিসেবে ছিলেন যুক্তরাজ্য বিএনপির (বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল) সভাপতি এম এ মালিক ও কালের কণ্ঠের সিনিয়র সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম জুয়েল।অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের বর্তমান সরকারের কড়া সমালোচনা করা হয়।গুম, খুন, ধর্ষণ, সাংবাদিক নির্যাতন ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের সাথে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সরকারের প্রভাবশালী মহলের জড়িত থাকার কথা বলা হয়।আলোচনায় সম্প্রতি (২৫ ফেব্রুয়ারি) কারাগারে বিনা চিকিৎসায় লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর দায় সরকারকে নিতে হবে বলে উল্লেখ করা হয়, যিনি ডিজিটাল নিরপত্তা আইনে গ্রেফতারের পর ছয় বার জামিন চেয়েও পায়নি।এছাড়া কার্টুনিষ্ট আহমেদ কবির কিশোর এবং সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলকে গুম করে নির্যাতনের জন্য সরকারের গোয়েন্দা সংস্থার দিকে অভিযোগের তীর ছোড়া হয়।এর আগে গত ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১ তিনি একই পেজে “ঢাকা মাফিয়া ও ভবিষ্যতের বাংলাদেশ, আল জাজিরার সার্থকতা নাকি হলুদ সাংবাদিকতা!” শিরোনামে এক টকশোর আয়োজন করেন।এতে অতিথি ছিলেন জামায়াতে ইসলামী ইউরোপের মুখপাত্র ব্যারিস্টার আবু বকর মোল্লা এবং ব্রিটেন থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক সুরমার সম্পাদক শামসুল আলম লিটন।অনুষ্ঠানে সম্প্রতি আল জাজিরায় প্রচারিত অনুসন্ধানী প্রতিবেদন “অল দ্যা প্রাইম মিনিস্টার’স মেন” এর বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়।এতে বাংলাদেশের অনেক প্রভাবশালী ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা হয়।এছাড়া মোঃ আমিনুল ইসলাম বিভিন্ন অনলাইন চ্যানেলে বিভিন্ন অনুষ্ঠান করে থাকেন।এসব সম্প্রচারের সময় থেকে এর পক্ষে -বিপক্ষে বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য করা হচ্ছে।অনেকে তাদের মন্তব্যে আমিনুল ইসলামকে এসব না করার ব্যাপারে সতর্ক করছে, আবার কেউ কেউ তার দেশে আসা নিষিদ্ধ ঘোষণা করছে।এছাড়া টক শো বন্ধ করার জন্য অনেকে তার পরিবারের লোকজনকে ভয় -ভীতিপ্রদর্শন করে আসছে।

এদিকে সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম জানান, আমরা বাংলাদেশের সব মানুষের জন্য বাক স্বাধীনতা, মানবাধিকার, আইনের শাসন এবং ন্যায় বিচার দেখতে চাই।এই দেশ দুর্নীতিতে ভরে গেছে, নিরাপত্তাহীনতা, গণতন্ত্রীনতা এবং মানবিক মর্যাদাহীনতায় ভুগছে।তাই আমরা বাংলাদেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ, সু্ষ্ঠ ও বিশ্বাসযাগ্য নির্বাচন চাই।তিনি আরো জানান, গুম, খুন, অন্যায়, অপকর্ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ অব্যহত থাকবে, কোন হুমকি ধমকি দিয়ে সত্য প্রকাশ বন্ধ করা যাবে না।অন্যদিকে ঘটনা সম্পর্কে তার বড় মোঃ সাইদুল ইসলাম জানান, আমার ভাই অনেকদিন ধরেই লেখালেখি এবং বক্তব্যের মাধ্যমে সরকারের অনৈতিক কাজের সমালোচনা করে আসছে এতে ক্ষিপ্ত হয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের লোকজন আমাদের বাড়িতে হামলা করেছে।আমরা খুব ভীত-সন্ত্রস্ত অবস্থায় আছি এবং চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.