সাভারে হিজড়া হকার সংঘর্ষ আহত ১০

বিশেষ প্রতিনিধি ঃ

শনিবার সকাল সাড়ে ১১টার সমায় সাভার বাসষ্ট্যান্ডে হিজড়া ও হকার্সদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের সংঘর্ষ বাধে এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন বলে জানাগেছে। সংঘর্ষের পর পরই পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
আহত একজন হিজরাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, আমির হোসেন নামের একব্যক্তি বাসযোগে সাভার আসার পথে বাসের ভেতরে দুই হিজড়া তার কাছে সাহায্য হিসেবে ১০টাকা দাবী করেন। এ সময় তিনি ৫টাকা দিলে হিজড়ারা টাকা না নিয়ে তাকে প্রকাশ্যে যাত্রীদের সামনে গোপনাঙ্গ দেখিয়ে আপত্তিকর ভাষায় গালাগাল করার এক পর্যায়ে হিজড়াদের সাথে তার বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে বাস সাভার বাসষ্ট্যান্ডে বাসটি পৌছলে হিজড়ারা তার সাথে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন।

কিছুক্ষণের মধ্যেই হিজড়ারা মোবাইল ফোনে খবর দিয়ে বাসষ্ট্যান্ডের পুরাতন ওভারব্রীজের পূর্বপাশে জড়ো করেন একাধিক হিজরাকে। ১২/১৩জন হিজড়া একত্রিত হয়ে তাদেরকে মারধর করার অভিযোগে ফুটপাতের এক হকারের দোকানে হামলা চালিয়ে দোকানের ছাওনি (বড় ছাতা) উপড়ে ফেলে। এ সময় কয়েকজন হকার বাধা দিলে হিজড়ারা তাদের ওপর চড়াও হয়। একজন হিজরা হকারকে মারতে মারতে জাতীয় অন্ধকল্যান সংস্থা মার্কেটের দিকে নিয়ে যায়। তার পরিধানের জামাকাপড় ছিড়ে ফেলেন।

এক পর্যায়ে হকাররা হিজড়াদের এলোপাথারি মারধর শুরু করলপ। হকারদের মার খেয়ে হিজড়ারা দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে ওভারব্রীজের নিকট ফুটপাতে সুমি নামের এক হিজড়াকে মাটিতে রক্তাক্ত অবস্থায় পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। হিজরাদের একজন এ প্রতিবেদককে জানান আমাদের ৭জন এ ঘটনায় আহত হয়েছে।

পরে ঘটনার পর পুলিশ ফুটপাত থেকে দোকান পাঠ উঠিয়ে দেয়। সাভার মডেল থানার ওসি এএফএম সায়েদ জানান পুলিশ তড়িৎ ব্যবস্থা নিয়েছে এবং বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। তবে কেউ অভিযোগ নিয়ে থানায় আসেননি। অভিযোগ দায়ের করলে ব্যাবস্হা নেওয়া হবে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.