বুধবার, ১৬ Jun ২০২১, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
হত্যাকান্ডের ৯ দিন পর খুনিকে গ্রেপ্তার করেছে র্্যাব মাগুরা শ্রীপুরের জনপ্রিয় শিক্ষক আমিরুজ্জামান সেলিমের ইন্তেকাল বাকলিয়ার সন্ত্রাসী এয়াকুবসহ চিহ্নিত অস্ত্রধারীদের গ্রেফতার দাবি চট্টগ্রামে বায়েজিদ লিংক রোডে ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে পাহাড়ের বসতিদের উচ্ছেদ অভিযান শুরু পরীমণিকে ধর্ষণচেষ্টায় নাসির উদ্দিন গ্রেফতার রাউজানের গণি পাড়ার মেয়ে কিংবদন্তি শাবানার গ্রামের বাড়িতে বছরে পর বছর ঝুলছে তালা র‌্যাব ক্যাম্পের অভিযান : দুই মাদক কারবারি আটক সদ্য নবনির্বাচিত দিনাজপুর চেম্বারের রেজা হুমায়ুন ফারুক চৌধুরী (শামীম) পরিষদের বিজয়ীদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানালো পরিবেশক সমিতি দিনাজপুর কোম্পানীগঞ্জে সিএনজি ধর্মঘটের ঘোষণা পৌর মেয়র কাদের মির্জা’র চট্টগ্রামের বাকলিয়ার এয়াকুব আলী বাহিনীর চিহ্নিত অস্ত্রধারীদের অস্ত্র উদ্ধারের দাবিতে সাংবাদিক সম্মেলন

রাসায়নিক সারের পরিবর্তে জৈব সারে ঝিঙে চাষ জনপ্রিয়

লাভলু শেখ, স্টাফ রিপোর্টার লালমনিরহাট

লালমনিরহাটে রাসায়নিক সারের পরিবতে জৈব সার প্রয়োগে সহজ ও সুলভ সবজি ঝিঙে চাষ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কৃষকরা জানান, ঝিঙে দু’-রকমের হয়ে থাকে। তেতো ও মিষ্টি। ফলে ক্রেতামহলে এর চাহিদা রয়েছে। এবার জৈব সারে খাদ্যগুণে ভরা সতেজ ঝিঙে চাষে কৃষকরা উৎসাহিত হয়েছেন।

লালমনিরহাট জেলার ৫টি উপজেলার ৪৫টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভার বিভিন্ন কৃষি জমিতে প্রচুর ঝিঙে চাষ করা হয়েছে। রাসায়নিক সারের পরিবর্তে আদর্শ জৈব সারে ঝিঙের মতো এ মৌসুমের সুস্বাদু সবজি উৎপাদন করে রীতিমতো চমকে দিয়েছেন জেলার কৃষকরা।

জানা গেছে, এ মৌসুমে ঝিঙের চাহিদা রীতিমতো তুঙ্গে। এক বিঘা জমিতে আদর্শ জৈব সারে এই সবজি উৎপাদন করতে খরচও কম হয়।লতানো জাতীয় সবজী চাষ করা হয় এমন জমিই ঝিঙে চাষের জন্য আদর্শ। ১বিঘা জমিতে পর্যাপ্ত পরিমাণে জৈব সার প্রয়োজন হয়। ৩০দিন হতে ৩৫দিনের মধ্যে ঝিঙে গাছে ফুল আসতে শুরু করে। ফুল আসার ৭দিন হতে ৮দিনের মধ্যে ফল ধরা শুরু হয়। ঝিঙে গাছে পোকার উপদ্রব দমন করতে ১বিঘা জমির ৪টি জায়গায় ‘আলোর ফাঁদ’ অর্থাৎ ফল ছিদ্রকারী পোকা আকৃষ্ট করতে ফাঁদ বসাতে হয়। তাতে পোকা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়।

হাট ও বাজারে প্রতি কেজি ঝিঙে বিক্রি হচ্ছে ৪০টাকা কেজি দরে। আর পাইকারি হিসেবে প্রতি কেজি ঝিঙে ৩০টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।
কোদালখাতা গ্রামের কমল কান্তি বর্মণ জানান,আমাদের গ্রামে প্রতিটি বাড়িতেই কম আর বেশি ঝিঙে চাষ করা হয়ে থাকে। এতে করে নিজের চাহিদা মিটিয়ে বাড়তি ঝিঙে বাজারে বিক্রি করে দৈনিক আয়ও হয়।
উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সুলতান সেলিম জানান, রাসায়নিক সারের পরিবর্তে জৈব সারে ঝিঙে চাষ ভালো হয়ে থাকে। তাই এ বিষয়ে কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে কৃষকদের পরামর্শ দেয়া হয়ে থাকে। এ জৈব সার প্রয়োগ করে কৃষকরা সুফল পেয়েছেন।

খাদ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, ঝিঙের উপকার অনেক। কুষ্ঠ ও অর্শ রোগে ভীষণ উপকারী। তেতো ঝিঙে বেটে শরীরের ফোলা অংশে প্রলেপ লাগালে দ্রুত ফোলা কমে যায়। কৃমি, কফ প্রভৃতি রোগেও ঝিঙের ব্যবহারে উপকার পাওয়া যায়।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
Design & Developed BY TechPeon.Com