সোমবার, ১৪ Jun ২০২১, ০২:০৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
বিএফইউজে-ডিইউজে বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃবৃন্দ গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা রক্ষায় বিচার বিভাগের নিরপেক্ষ ভূমিকা জরুরি আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলে পুলিশের ধাওয়ায় এক নারী শ্রমিকের মৃত্যু তিতাস তাকওয়া ফাউন্ডেশনের সভাপতি শাহজালাল, সম্পাদক ফারুক ও সাংগঠনিক সজীব থানায় সাধারণ ডায়েরি বা মামলা গ্রহণ করেনি মাগুরায় ১৭ জন নতুন করোনা রোগী শনাক্ত! জেলা শহরে ও মহম্মদপুরে লকডাউন ঘোষনা উত্তরা আধুনিক মেডিকেলে ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারিদের ইনজেকটিং ড্রাগ্সের রমরমা ব্যবসা স্বাস্থ্যবিধি মেনে কুবিতে সশরীরে পরীক্ষা শুরু খুটাখালীতে ইজিবাইক উল্টে গৃহবধুর মৃত্যু রংপুরে ঘাঘট নদীতে দুই ভাইবোনের মৃত্যু বাঁচতে চায় কাজল রেখা, কিন্তু পরিবারের সাধ্য নেই

আশুলিয়ায় কিশোর গ্যাং পায়ের রগ কেটে দিল প্রতিবাদে বিক্ষোভ

বিশেষ প্রতিবেদক

সাভারে কিশোর গ্যাং পায়ের রগ কেটে দিল প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল। ঢাকা জেলার সাভার উপজেলার আশুলিয়ায় এক মসজিদের খাদেমের পায়ের রগ কেটে দেওয়ার ঘটনায় কিশোর গ্যাং সদস্যদের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

শুক্রবার (২৮ মে) দুপুরে আশুলিয়া থানার শিমুলিয়া ইউনিয়নের নাল্লাপাল্লা বাজার এলাকায় এ বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী মানববন্ধনে দাঁড়িয়ে জানান, গত ২৪মে সকাল বেলা মোঃ নজরুল ইসলাম নামে এক মসজিদের খাদেমকে মারধর করার এক পর্যায়ে ছুরি দিয়ে পায়ের রগ কেটে দেয় রাকিব (১৬) ও ইমন হোসেন (১৭)। নামের কিশোর গ্যাংয়ের দুই সদস্য। সে সময় তাদের সাথে থেকে সহযোগিতা করেন সন্ত্রাসী হাবিব ও আলিম নামের দুজন।

খাদেমের পায়ের রগ কাটার বিষয় নিয়ে আশুলিয়া থানায় ২৫ মে তিন জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন নজরুলের স্ত্রী। এলাকাবাসী বলেন শুধুই এ ঘটনা নয়, এমন আরও অনেক ঘটনা ঘটিয়েছেন এ কিশোর গ্যাং।

স্হানীয় বাসিন্দারা বলেন, কিশোর গ্যাংয়ের উৎপাতে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ। আমরা তাদের বিচার চাই।

এলাকার স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে আমজাদ নামের একজন বর্তমান কথা’কে বলেন, আলিম ও হাবিব দু’জনই নাল্লাপাল্লা এলাকায় কিশোর গ্যাং প্রতিষ্ঠিত করে মদদও দেন। কিশোর গ্রুপটি দিয়ে এলাকায় মাদকদ্রব্য বিক্রিসহ নানান ধরনের অপকর্ম করেই চলেছেন। তারই উদাহরণ মসজিদের খাদেমের পায়ের রগ কেটে দেওয়া। কিশোর গ্যাং দ্বারা এলাকার মানুষ আজ আমরা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছি । আমরা তাদের বিচার চাই। যারা এই কিশোরদের মদদ দিচ্ছেন, তাদেরও আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানাচ্ছি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
Design & Developed BY TechPeon.Com