সোমবার, ২১ Jun ২০২১, ০১:০২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
জুলাই থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ২০ হাজার টাকা মৌলভীবাজার জেলা সদর উপজেলা ১২ নং গিয়াসনগর ইউনিয়ন নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সৈয়দ গৌছুল হোসেন জনপ্রিয়তায় এগিয়ে। ভোলায় প্রধানমন্ত্রীর ঘর পেলেন ৩৭১ ভূমিহীন পরিবার নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে ৬০০ পিচ ইয়াবা সহ আটক ২ নজরপুর ইউনিয়নে জনমত জরিপে এগিয়ে যুবলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম জহির মুজিববর্ষের উপহার : ভূমিসহ ঘর পেলো হাটহাজারীর ২৬ পরিবার একাধিক হত্যা মামলার আসামী সোমেদ আলী গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব ১১ নরসিংদী মডেল থানার অভিযানে শীর্ষ সন্ত্রাসী সুজন সাহা আটক আক্রান্তের নয়া রেকর্ড আনােয়ারায় ২৫ গৃহহীন পরিবার পেল প্রধানমন্ত্রী’র ঘর উপহার

মাগুরায় দেড় যুগ পর পেলেন বিধবা ভাতার কার্ড ! ভাতার টাকা না নিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন!!!

মোঃ সাইফুল্লাহ ;

মাগুরায় বিধবা হওয়ার দেড় যুগ পর অবশেষে বিধবা ভাতার কার্ড পেয়ে ভাতার টাকা না নিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন শ্রীপুরের মাশালিয়া গ্রামের ১১ সন্তানের জননী ৭৫ বছরের বৃদ্ধা বিধবা ভবানী রানী বসু ।
এখন তিনি আর বিধবা ভাতাসহ সরকারী আর্থিক কোনো সহযোগিতা নিতে চান না।
এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে এবং প্রশংসায় ভাসছে গোটা পরিবার ।

জানা গেছে, মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার হিন্দু অধ্যাসিত মাশালিয়া গ্রামের ভবানী রানী বসুর স্বামী গৌর গোপাল বসু ১৮ বছর পূর্বে ৬ ছেলে ও ৫ মেয়ে সন্তান রেখে মারা যান। পরিবারের এক মাত্র উপার্জন করা ব্যক্তিটি মারা যাওয়ায় ভবানী রানী বসুর পরিবারে নেমে আসে ভয়াবহ কষ্টের দিন। ভবানী রানী বসুর সংসারে সচ্ছলতা ফেরানোর জন্য আর্থিক সাহায্য ও বিধবা ভাতার একটি কার্ডের জন্য এলাকার চেয়ারম্যান-মেম্বর সহ জন-প্রতিনিধিদের কাছে অনেক ঘুরাঘুরি করেন। কিন্তুু তার সকল চেষ্টা ব্যর্থ হয়, ভবানী রানীর ভাগ্যে জটেনি একখানা বিধবা অথবা বয়ষ্ক ভাতার কার্ড। অবশেষে ২০২০ সালের জুন মাসের ২২ তারিখে সমাজসেবা কর্তৃপক্ষের নজরে আসলে কর্তৃপক্ষ একটি বিধবা ভাতার কার্ড করে দেন ভবানী রানী বসুকে। যার বই নং- ৪৬০ তাতে লেখা আছে ভবানী রানী বসু জুলাই – ২০১৯ থেকে বিধবা ভাতা পাবেন। কিন্তুু ভবানী রানী বসু ভাতার টাকা নিতে অস্বীকৃতি জানান। এখন পর্যন্ত তিনি ভাতার একটি টাকা নেন নাই বলে জানা গেছে ।

এমবস্থায় বিষয়টি উপজেলা সমাজসেবা কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। কর্তৃপক্ষ ভাতার টাকা নেওয়ার জন্য ভবানী রানী বসুকে অনুরোধ করেন। কিন্তুু ভবানী রানী তার সিদ্ধান্তে অটল নিবেন না ভাতার কোনো টাকা ।
এ ব্যপারে শ্রীপুর উপজেলার ১ নং গয়েশপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বর আফসার উদ্দীন শেখ জানান, ভবানী রানী বসুর স্বামী গৌর গোপাল বসু অনেক আগেই মারা গেছেন । ভবানী রানী বসুকে আমরা একটি বিধবা ভাতার কার্ড করে দিয়েছি কিন্তুু তিনি ভাতার টাকা নিচ্ছেন না। কেন তিনি ভাতার টাকা নিচ্ছেন না এই প্রশ্নের জবাবে মেম্বর আফসার উদ্দীন শেখ বলেন, আগে এই পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভালো ছিল না, কিন্তুু এখন আর্থিক অবস্থা অনেকটা ভালো তাই হয়তো ভাতার টাকা নিচ্ছেন না।

এ ব্যপারে ভবানী রানী বসুর ৪র্থ ছেলে নারু গোপাল বসু সাংবাদিকদের জানান আমি একজন কৃষক আমরা ৬ ভাই ৫ বোন। এর মধ্যে তিন ভাই ভারতে তারা দেশে আসে না , এক ভাই মারা গেছেন । বোনদের বিয়ে হয়ে গেছে । আমরা দুই ভাই দেশে থেকে মায়ের দেখাশুনা করি। আমাদের মায়ের ভাতার টাকা লাগবে না। মেম্বর সাহেবকে বলেছি, ভাতার টাকা অন্য অসহায় গরীব লোকদেরকে দিয়ে দেওয়ার জন্য।
এ ব্যপারে ভবানী রানী বসু বলেন,আমার চেয়েও অতি দরিদ্র অনেক ভবানী রানী সমাজে রয়েছে,কর্তৃপক্ষ যেন আমার ভাতার টাকা তাদেরকে দিয়ে দেয়। আমি ভালোই আছি।

৬ জুন ২০২১ রবিবার বিকেলে শ্রীপুর উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মোঃ ওয়াসিম আকরাম আমাদের প্রতিনিধিকে বলেন,আমাদের সরকারের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য হলো প্রতি পরিবারকে স্বাবলম্বী করে তোলা, যাতে দেশের প্রত্যেকেই নিজের পায়ে দাড়াতে পারে। ভাতার টাকা নিয়ে খেয়ে ফেললে হবে না, ভাতার টাকা দিয়ে বিভিন্ন গবাদি পশু লালন-পালন করে পরিবারে স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে হবে। তিনি আরো বলেন, আমার চাকরি জীবনে কোন দিন দেখি নাই সরকারী ভাতা পেয়ে কেউ স্যালেন্ডার করেছে যে, আমি ভাতার টাকা নিবনা। ধন্যবাদ ভবানী রানী বসুকে। আমরা চাই যাদের পরিবারে স্বচ্ছলতা আছে তারাও স্যালেন্ডার করুক। যাতে তার পাশের আন্য বিধবা অথবা বয়ষ্ক ব্যক্তিকে ভাতার আওতায় আনতে পারি।
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন অতি সম্প্রতি আমি এলাকার জনপ্রতিনিধির নিকট থেকে জানতে পারি ভবানী রানী বসু তাঁর ভাতার প্রাপ্য টাকা গ্রহন করছেন না।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
Design & Developed BY TechPeon.Com