1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
মেঘনার তীব্র স্রোতে বিলীন হচ্ছে নজরপুরের টেক চরাঞ্চল | দৈনিক শ্যামল বাংলা
সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০২:০৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
হাটহাজারীতে আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাসকারীদের মাঝে ত্রাণ বিতরণে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক দৈনিক ডাক প্রতিদিনের সম্পাদক আর নেই। বনানীতে টিবিএল ফুডের প্রথম সাধারন সভা অনুষ্ঠিত খুলল শিল্পকারখানা চাপে শ্রমিকরা __ দ্রুত শ্রমিকদের টিকা দিতে হবে শ্রীনগরে মসজিদের টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ সভাপতি’র বিরুদ্ধে সাংবাদিক হাবিব আল জালালের ইন্তেকাল শ্রীনগরে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মসিউর রহমান মামুন আশুরোগ মুক্তি কামনায় বিশেষ দোয়া মাহফিল চৌদ্দগ্রামে সাংবাদিক সিরাজুল ইসলাম ফরায়েজীর ভাই রফিকুল ইসলামের ইন্তেকাল চৌদ্দগ্রামে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে অসহায়দের মাঝে ঢেউটিন ও নগদ অর্থ প্রদান হাটহাজারী গুমানমর্দ্দন ইউনিয়নে নজরুল সংঘ কমিটি গঠন

মেঘনার তীব্র স্রোতে বিলীন হচ্ছে নজরপুরের টেক চরাঞ্চল

সফিকুল ইসলাম রিপন, নরসিংদী |
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২৫ জুন, ২০২১
  • ৬৬ বার

নরসিংদী সদর উপজেলার নজরপুর ইউনিয়নের নজরপুর গ্রাম সহ বেশ কিছু এলাকায় বর্ষাকাল আসার আগেই মেঘনার তীব্র স্রোতে নদী গর্ভে বিলীন হচ্ছে মেঘনার তীরবর্তী বিস্তীর্ণ চরাঞ্চল। হুমকির মুখে পড়েছে মেঘনা নদীর তীরবর্তী এলাকার জনগন
নরসিংদী সদর উপজেলার চরাঞ্চল নজরপুর, করিমপুর,চরদীঘলদী, ইউনিয়নসহ বেশ কয়েকটি চর এলাকা নদী ভাঙ্গন থেকে রক্ষা করার জন্য ইতিমধ্যেই বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে যা বর্তমানে শেষের দিকে। কিছু কিছু এলাকায় বেড়িবাঁধ নির্মাণ প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। কিন্তু এবার বর্ষা আসার আগেই মেঘনার ঢেউয়ের তীব্র তোড়ে বিলীন হয়ে যাচ্ছে চরাঞ্চলের মেঘনা তীরের কৃষি জমিগুলো। ভাঙ্গন কবলিত এলাকা গুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে মিনি কক্সবাজার খ্যাত নজরপুরের টেক।
নজরপুরে গিয়ে দেখা যায় তিনদিকে নদীবেষ্টিত প্রাকৃতিক নয়নাভিরাম নজরপুরের টেকের শতশত বিঘা জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে ভ্রমন পিপাসুদের পদভারে মুখরিত স্থানটি বিরান ভূমিতে পরিণত হয়েছে।
স্থানীয় চরাঞ্চলের বাসিন্দারা জানান, জোয়ারের পানির তোড়ে ভেঙে নদীর তীরবর্তী জমিগুলোসহ নজরপুরের মিনি কক্সবাজার খ্যাত টেকটি নদী ভাঙনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। শত বৎসরের ঐতিহ্যবাহী এ টেকটিকে ভাঙ্গনের কবল থেকে রক্ষা করতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান এলাকার জনগন

নজরপুরের স্থানীয় বাসিন্দা আসলাম ফকির বলেন, ‘৩ কিলোমিটার বিস্তৃত মনোমুগ্ধকর চরের ৪টি সেট ইতিমধ্যেই নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। যেটুকু আছে সেটুকু ও যদি চলে যায় তাহলে এই এলাকার কৃষকদের বেঁচে থাকার আর কোন পথ থাকবে না । আমরা সরকারের নিকট দ্রুত এই সমস্যার সমাধান চাই তিনি আরো বলেন যে দিকে বেড়িবাঁধের বেশি প্রয়োজন ছিল সে দিকে না করে বিলাসিতার বেড়িবাঁধ নির্মাণ করা হচ্ছে অথচ এই এলাকার কৃষকরা কৃষি জমি হারিয়ে দিশেহারা আমরা খুব দ্রুত এর সমাধান চাই ইউনুছ ফকির নামে অপর এক এলকাবাসী বলেন, ‘সাড়ে তিনমাইল বিস্তৃত চরের দেড় মাইল ই ভেঙ্গে গেছে। এমতাবস্থায় সরকার যদি এখানে বেড়িবাঁধ নির্মাণ করে না দেয় তাহলে আমাদের চলতে ফিরতে সুবিধা হবে।’ মোঃ হাসান মিয়া নামে আরেক জন গ্রামবাসী বলেন, ‘আমাদের অধিকাংশ জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। যেটুকু রয়েছে সেটুকুতে সরকার যদি বেড়িবাঁধের ব্যাবস্থা করে দেয় তাহলে ছেলে মেয়েদের নিয়ে কোনরকমে চলে যেতে পারব’। আমরা এক সময় এখানে আলু, কড়লা তরমুজ সহ বিভিন্ন ফসল চাষ করতাম এখন বেশি ভাগ জমিই নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে যে টুকু আছে তা নিয়ে সংকিত
এসময় উপস্থিত মোঃ চাঁন মিয়া বকশি নামে আরেক গ্রামবাসী তিনি বলেন , ‘আমাদের সবকিছুই নদী কেঁড়ে নিয়েছে। আপনাদের মাধ্যমে অবশিষ্ট জমি রক্ষার্থে সরকারের নিকট বেড়িবাঁধ নির্মাণের আহবাণ জানাচ্ছি।
ভুক্তভোগী সুলমান মিয়া জানান আমাদের পূর্ব পুরুষরা দেখেছি এখানে নানান রকম ফসল চাষ করতো এখন দেখি পানি আর পানি যে টুকু জমি নদীতে বিলীন হয়েছে সেখানে সাঁতার কেটেও যেতে পারবো না।
এ ব্যাপারে নরসিংদী জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী বিজয় ইন্দ্র শঙ্কর চক্রবর্তীর সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, মেঘনা নদীর তীরবর্তী গ্রামগুলো রক্ষা করার জন্য বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক বেড়িবাঁধ নির্মাণের প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি গ্রামের বেড়িবাঁধ দৃশ্যমান হয়েছে। ওইসব বেড়িবাঁধে মেঘনার অপরূপ সৌন্দর্য উপভোগ করতে দর্শনার্থীরা ভিড় করছেন। এছাড়া ও নজরপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’ খ্যাত এলাকাটির বিষয়ে অবগত রয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। ওই এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়ন করে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক ইকো পার্ক করার বিষয়ে প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছে। এ বর্ষার শুরুতে যে সকল এলাকা ভাঙনের কবলে পড়ছে সেখানে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম