1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
খুটাখালীতে মোবাইল চোর গ্যাংয়ের সদস্যরা অধরা - দৈনিক শ্যামল বাংলা
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৫১ অপরাহ্ন

খুটাখালীতে মোবাইল চোর গ্যাংয়ের সদস্যরা অধরা

কক্সবাজার প্রতিনিধি।
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৭৬ বার

মোবাইল চোর গ্যাং নামে কিশোর-যুবকদের একটি অংশ ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে। তারা পাড়া মহল্লার প্রভাবশালী, মাস্তান বা বড় ভাইদের হয়ে নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়ছে।
দলবেঁধে মাদক সেবন করার পাশাপাশি পাড়া-মহল্লায় নারীদের উত্ত্যক্ত করে। ঝুঁকিপূর্ণ বাইক রেসিং তাদের ‘ফ্যাশন’।

অপরদিকে তুচ্ছ ঘটনায় মারামারি ও ঝগড়া ফ্যাসাদে জড়িয়ে পড়ছে তারা। এতে করে খুনোখুনির ঘটনাও ঘটছে।

ভার্চুয়ালে গ্রুপ তৈরি করে এরা নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করছে। সেখানে ভয়ঙ্কর মিশনের খুঁটিনাটি বিষয়ের পরিকল্পনা করছে।

এসব গ্যাংয়ের রয়েছে বাহারি সব নাম। স্থানীয় বড় ভাইদের আর্শিবাদপুষ্ট এসব যুবকদের অত্যাচারে কক্সবাজারের বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দারাও অতিষ্ঠ।

বিদ্যমান পরিস্থিতিতে কিশোর অপরাধীদের আইনের আওতায় আনতে কঠোর পদক্ষেপ নেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সরকারের সংশ্লিষ্টরা। এরই অংশ হিসেবে বিশেষ অভিযানও শুরু হয়। কিন্তু অভিযান শুরু হতে না হতেই তা চাপা পড়তে যাচ্ছে।
এ কারেণ অপরাধ দমনে অভিযান কিছুটা ঝিমিয়ে পড়েছে। পাড়া মহল্লায় আবারও আড্ডা জমছে। সক্রিয় হচ্ছে মোবাইল চোর গ্যাংয়ের সদস্যরা।

চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ও ঈদগাঁও উপজেলার উঠতি-ছিচকে মোবাইল চোর গ্যাং গ্রুপ এখনো অনেকটাই অধরা।

অথচ এসব গ্রুপ কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকায় সামাজিক স্বস্তি কেড়ে নিতে শুরু করেছে।

সস্প্রতি (২৭আগষ্ট) কক্সবাজারের চকরিয়া
উপজেলার খুটাখালী ফুলছড়ি মাদরাসা মাঠে ফুটবল খেলায় ৫ টি মোবাইল ফোন চুরি করে একটি চক্র। এ ঘটনায় সাজ্জাদুল ইসলাম মানিক(২৫) নামের এক যুবককে হাতেনাতে আটক করে পুলিশে দেয়া হয়েছে।
সে কক্সবাজারের ঈদগাঁও উপজেলার ইসলামাবাদ ইউনিয়নের পুর্ব ইউসুফেরখীল গ্রামের সিরাজুল ইসলামের পুত্র বলে জানা গেছে।
এসময় মানিক রাশেল, জসিম ও এখলাছ নামের আরো ৩’জনের নাম স্বীকার করলেও এখনো তারা অধরা!

মোবাইল চোর গ্যাং লিডার মোঃ রাশেল ঈদগাঁও উপজেলার ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড়ের হরিপুর এলাকার আবদুর রহিমের পুত্র।

এছাড়াও গ্যাং লিডার রাশেলের অপর দুই সহযোগী জসিম, এখলাছ, পিতা অজ্ঞাত এখনো ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়েছে।

মোবাইল চুরিতে জড়িত এ তিন চোর ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে।

স্থানীয়রা এই তিন চোরকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদপূর্বক রহস্য উন্মোচন করার জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন।

জানা গেছে, কক্সবাজারের ঈদগাঁও -খুটাখালীর যে প্রান্তেই মোবাইল চুরি হোক, নিমিষেই চলে আসবে মানিকের কাছে। সে হাতের ছোঁয়ায় মুহূর্তেই মুছে ফেলে মোবাইলে থাকা নাম্বারসহ সব ধরনের তথ্য।
স্বতন্ত্র আইএমএ নাম্বার বদলে নতুন পরিচিতি নম্বর বসিয়ে দেয়ার পর বিক্রি করে দেয়া হয় চোরাই মার্কেটে।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শাকের মু. জুবায়ের বলেন, তারা খুব সহজেই তিন আঙুলের মাধ্যমে মোবাইলের লক খুলে ফেলতে পারে। পুরো মোবাইলটিই ফ্লাশ করে ফেলতে পারে। পুরো বিষয়টি তারা করতে পারে মাত্র এক মিনিটেই।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মোবাইল চোর মানিক স্বীকার করে, গত কয়েক বছর ধরে চলে আসছিল তাদের এ কার্যক্রম। সেটগুলো চড়া দামে বিক্রি হয় অপরাধীদের কাছে।

তবে পুলিশের দাবি, এসব ফোনে আসল তথ্য না থাকায় অপরাধীদের শনাক্ত করা অনেকটা দুরূহ।

তিনি আরো বলেন, আইএমই নম্বরগুলো যখন পরিবর্তন হয়ে যায়, তখন এই মোবাইলগুলোর কোনো হদিস থাকে না। সে কারণে এ মোবাইলগুলো যে কোনো অপরাধী চক্র বা ভয়ংকর অপরাধে ব্যবহার করা যায়। সে জায়গাগুলো আমরা বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করছি।

মোবাইল চুরির ঘটনায় চকরিয়া থানায় ৪ জনকে আসামী করে একটি মামলা (মামলা নং-৪৩) দায়ের করা হয়েছে। জড়িত থাকার অভিযোগে আটক করা হয়েছে মানিক নামের একজনকে।
মামলার বাদী উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ড শিয়াপাড়া গ্রামের মৃত হাজী আবদু সালামের পুত্র জিয়াউল করিম।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম