1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
মেঘনায় ৩ কিলোমিটার এলাকার অবৈধ খুচরি জাল ও স্থাপনা উচ্ছেদ - দৈনিক শ্যামল বাংলা
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:২০ অপরাহ্ন

মেঘনায় ৩ কিলোমিটার এলাকার অবৈধ খুচরি জাল ও স্থাপনা উচ্ছেদ

মনিরুজ্জামান, ভোলা
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১২ বার

ভোলার বোরহানউদ্দিনে মেঘনা নদীর তিন কিলোমিটার এলাকা জুড়ে দখলে থাকা অবৈধ খুচরি জাল ও স্থাপনা উচ্ছেদ করলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাইফুর রহমান। নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার দিনভর আলিমুদ্দি বাংলাবাজার এলাকার সেন্টার বাজার ও দিঘীরপাড় এলাকায় অভিযান পরিচালিত হয়।
ভুক্তভোগী সাধারন জেলেরা জানায়, মেঘনায় অবৈধ খুরছি জাল দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে জনপ্রতিনিধি ও প্রভাবশালী মহল মাছ ধরছেন। এতে সকল ধরণের মাছের রেণু ও ছোট পোনাা নিধন করা হচ্ছে। যার ৮০ ভাগই খাওয়ার অযোগ্য। অন্যদিকে এসব জালে ব্যবহুত উপকরণ খুটি, সাথে পলি জমে নাব্য সংকট সৃষ্টি হচ্ছে । প্রভাবশালী মহল খুরচি জাল উল্লেখিত জলসীমার চারপাশে খুঁটি পুতেমাছ ধরেন। খুটির বেড়ার চারপাশে জাল বাঁধা থাকে। জোঁয়ারে নদী টুইটুম্বর হলে খুটিঁর সঙ্গে বাধা জাল ওপরে তুলে রেঁধে দেওয়া হয়।ভাটার সময় পানি কমলে বেড়ার মধ্যখানে জাল টেনে মাছের রেণ-পোনাসহ সব ধরা হয়। এ জালের নাম খুরচি জাল।এ প্রক্রিয়ায় মাছ শিকার সম্পূর্ণ অবৈধ। জেলেদের ভাষ্যমতে,যেখানে খুরছি জালপাতা হয়,সেখানে সাধারণ জেলেদের প্রবেশ নিষিদ্ধ। সাধারন জেলেরা যখন নদীতে জাল ফেলে তখন পানির স্রোতে তাদের জাল গিয়ে খুচি জালের জন্য পাতা বাশঁ ও গাছের উপর পরে তখন ওই সাধারণ জেলেরা ওই জাল আর তুলে আনতে পারে না।যার কারনে বড় রকম আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হন প্রান্তিক জেলেরা ।

বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুর রহমান জানান, ০৩ কিলোমিটার অবৈধ খুঁটি জাল এবং স্থাপনা বিনষ্ট করা হয়েছে। কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তি মেঘনার বিস্তীর্ণ চর এলাকায় খুঁটি বসিয়ে নদীতে বেড়া দিয়ে জাল পেতে নদী প্রায় নিজেদের ব্যক্তিগত সম্পত্তিতে পরিণত করেছিল। আশা করছি, নদীর সার্বিক পরিবেশ ও নাব্যতা রক্ষার সাথে সাথে সাধারণ জেলেরা এতে উপকৃত হবে। অভিযান পরিচালনা অব্যাহত থাকবে।
ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস, এম আজহারুল ইসলাম বলেন, আজকের এই অভিযান আমাদের রুটিন ওয়ার্ক এর একটি অংশ। এর আগে একাধিক অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। অভিযান অব্যাহত থাকবে।
অভিযানে আরো ছিলেন সিনিয়র উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা ( ভারপ্রাপ্ত)নৌ-পুলিশ, পুলিশ,স্থানীয় থানা পুলিশ এবং গণমাধ্যম কর্মী বৃন্দ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম