1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
বিয়ে করলো র‌্যাবের কথিত বন্দুক যুদ্ধে পা হারানো ঝালকাঠির সেই প্রতিবাদী ছাত্র লিমন হোসেন - দৈনিক শ্যামল বাংলা
বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
নবীগঞ্জে মহিলালীগের উদ্যােগে প্রধানমন্ত্রীর ৭৫ তম জন্মদিনে কেক কাটলেন এমপি মিলাদ গাজী নবীগঞ্জ উপজেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষ্যে ১৯ হাজার করোনা টিকা প্রদান শেখ হাসিনার জন্ম না হলে বাংলাদেশ উন্নয়নের মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেত না : নজরুল ইসলাম এমপি নবীগঞ্জে সুষ্টভাবে শারদীয় দুর্গাপুজা পালনে থানা পুলিশের বিশেষ আইন শৃংখলা সভা অনুষ্টিত মাগুরার শ্রীপুরে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের উদ্যোগে প্রধান মন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন পালন প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবলীগের খাবার বিতরণ ও দোয়া মাহফিল নাঙ্গলকোটের বাঙ্গড্ডা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন পালিত রাঙ্গুনিয়া কলেজে ছাত্রলীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন চট্টগ্রাম চন্দনাইশে প্রধানমন্ত্রীর জন্ম দিবস উপলক্ষে যুবলীগের র‍্যালি চট্টগ্রাম চন্দনাইশে জ্বর ও নিউমোনিয়ার প্রাদুভার্ব

বিয়ে করলো র‌্যাবের কথিত বন্দুক যুদ্ধে পা হারানো ঝালকাঠির সেই প্রতিবাদী ছাত্র লিমন হোসেন

রাশিদুল ইসলাম, খুলনা
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২৪ বার

আজ থেকে দশ বছর আগে ২০১১ সালে র‌্যাবের কথিত বন্দুক যুদ্ধে এক পা হারানো ঝালকাঠির সাতুরিয়া গ্রামের সেই লিমন হোসেন বিয়ে করেছেন। কনে যশোরের নওপাড়া পৌরসভার সরখোলা এলাকার টিটু মোল্লার মেয়ে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী রাবেয়া বশরী। কনের বাড়িতেই আজ শুক্রবার দুপুরে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে।
২০১১ সালের ২৩ মার্চ বন্দুক যুদ্ধের নামে র‌্যাবের গুলিতে পা হারিয়ে ছিলেন ঝালকাঠির সাতুরিয়া গ্রামের দরিদ্র পরিবারের সন্তান লিমন হোসেন। তখন এইচএসসি পরীক্ষা দেয়ার কথা ছিল তাঁর। ১৭ বছরের সেই কিশোর এখন ২৮ বছরের যুবক। ঘটনাটি দেশ-বিদেশ জুড়ে আলোচিত হয়, প্রশ্নবিদ্ধ হয় র‌্যাবের অভিযান। ঝালকাঠির সাতুরিয়া গ্রামের পা হারানো সেই কিশোর এখন সাভার গণবিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগের প্রভাষক। বিয়ে করে এখন তিনি সংসার জীবন শুরু করতে যাচ্ছেন।
সাতুরিয়া গ্রামে বাড়ির কাছের মাঠে গরু আনতে গিয়ে হতদরিদ্র কলেজছাত্র লিমন হোসেন র‌্যাবের গুলিতে আহত হয়। গুলিবিদ্ধ লিমনকে সন্ত্রাসী সাজিয়ে র‌্যাবের বরিশালের ডিএডি লুৎফর রহমান বাদী হয়ে দুটি মামলা করেন।গুরতর আহত লিমনকে ভর্তি করা হয় বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখান থেকে নেওয়া হয় ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে। যথাযত চিকিৎসার অভাবে ২০১১ সালের ২৭ মার্চ লিমনের বাম পা হাটু থেকে কেটে ফেলা হয়। চিরতরে পঙ্গু হয়ে যায় লিমন ।
এ ঘটনায় লিমনের মা হেনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে বরিশাল র‌্যাব-৮ এর ছয় সদস্যের বিরুদ্ধে ছেলে লিমনকে গুলি করে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে ২০১১ সালের ১০ এপ্রিল ঝালকাঠির জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম নুসরাত জাহানের আদালতে একটি নালিশী মামলা দায়ের করেন।সেই মামলায় এখনো লড়াই করে যাচ্ছে সাহসী যোদ্ধা লিমন ও তার পরিবার।
এ দিকে গুলিবিদ্ধ লিমনের একটি পা কেটে ফেলার পরে ২০১১ সালের ৯ মে হাইকোর্ট লিমনের জামিন মঞ্জুর করে।এক পর্যায়ে মিথ্যা মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে লিমনকে। জামিনে মুক্ত হওয়ার পর লিমনের উন্নত চিকিৎসার জন্য সাধারণ মানুষ আর্থিক সাহায়তা করে। ঢাকার সাভারের সিডিডি নামের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান লিমনকে একটি কৃত্রিম পা সংযোজন করে দেয়। এই নকল পায়ে ভর করে লেখা পড়া করে ২০১৩ সালে লিমন উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে। একই বছর লিমন ডা.জাফরউল্লাহর সহযোগিতায় সাভারের গণবিশ্ববিদ্যালয়ে এলএল.বি অনার্সে ভর্তি হন। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে লিমন এলএল.বি অনার্স ডিগ্রি লাভ করেন।
কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলএম ডিগ্রি নিয়ে ২০২০ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি সাভার গণবিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে শিক্ষা সহকারী পদে যোগ দেন। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে প্রভাষক হিসেবে পদোন্নতি হয় লিমনের।
পা হারানোর সেই দুর্বিষহ দিন পেরিয়ে ছেলের প্রতিষ্ঠিত হওয়ার যুদ্ধে গর্বিত লিমনের বাবা-মা। ছেলের বিয়ে নিয়ে বেশ উচ্ছ¡সিত তাঁরা। লিমনের মা হেনোয়রা বেগম বলেন, র‌্যাবের ভুলের কারনে আমার ছেলে একটি পা হারিয়েছে । আমার ছেলের পা কোনদিন পাওয়া যাবে না ঠিকই কিন্তু লিমন এ দেশের মানুষের ভাললোবাসা পেয়েছে । লিমন পড়াশোনা করে যতটুকু অর্জন করেছে তার পেছনে সবচেয়ে বেশী অবদান সাংবাদিক এবং মানবাধিকার কর্মীরা। বিশেষ করে প্রথমআলো এর ঝালকাঠি প্রতিনিধি আককাস সিকদার , আইন সালিশ কেন্দ্র, মানবাধিকার কমিশন ও গণবিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ড. জাফরুল্লাহ স্যার।
আজকের এই দিনে লিমনের জন্য অনেক অনেক দোয়া ও শুভকামনা রইলো।অন্যায়ের বিরুদ্ধে তোমার সাহসী উচ্চারণ অব্যাহত থাকবে আশা করি। তোমার আন্দোলন সংগ্রামে আমরা পাশে ছিলাম থাকবো ইনশ্আল্লাহ।।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম