1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত স্হাপন লালমনিরহাটে একই আঙ্গিনায় মসজিদ ও মন্দির - দৈনিক শ্যামল বাংলা
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
মোটরসাইকেল শোডাউনের মাধ্যমে আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হারুনুর রশিদ রঙ্গু’র পূজামন্ডপ পরিদর্শন মাগুরায় নির্বাচনী সহিংসতায় দু পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ!! নিহত -৪ আহত -২০ লাকসামে রাজনীতির প্রতিহিংসায় গাছের সাথে শত্রুতা! রাউজানে সুষ্ঠ ও শান্তিপুর্ণ ভাবে সনাতনী ধর্মীয় অনুসারীদের শারদীয় দুর্গোৎসব সম্পন্ন নবীনগরে উপজেলা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উদযাপন কুবির দত্ত হলে জুনিয়র ছাত্রলীগ কর্মীরা মারধর করে সিনয়রকে সাঈদ হাসান,কুবি রাউজানে সব ধর্মের মানুষ অসম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী-পূজা মণ্ডপ পরিদর্শনে এমপি ফজলে করিম নবীগঞ্জে শেখ রাসেল দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত আমিলাইষের পূজামণ্ডপে আলহাজ্ব মোজাম্মেল হক চৌধুরীর আর্থিক অনুদান ও কাপড় বিতরণ রিদওয়ান খালিদ চোধুরীর জন্মদিন আজ

সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত স্হাপন লালমনিরহাটে একই আঙ্গিনায় মসজিদ ও মন্দির

লাভলু শেখ স্টাফ রিপোর্টার লালমনিরহাট
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২১
  • ৫ বার

একই উঠানে মসজিদ ও মন্দির। এক পাশে ধূপকাঠি ও অন্য পাশে আতরের সুঘ্রাণ। এক পাশে উলুধ্বনি, অন্য পাশে চলছে জিকির। এভাবে ধর্মীয় সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত স্থাপন করে যুগ যুগ ধরে চলছে পৃথক ২টি ধর্মীয় উপাসনালয়।
লালমনিরহাট পৌর শহরের কালীবাড়ি এলাকায় একই খতিয়ানের একই দাগের জমির একই আঙ্গিনায় রয়েছে পুরান বাজার জামে মসজিদ ও কালীবাড়ি সার্বজনীন মন্দির। প্রতিদিন মসজিদে মুসল্লিরা নামাজ আদায় করছেন আর মন্দিরে চলছে ভক্তদের পূজার্চনা। লালমনিরহাট জেলায় ধর্মীয় সম্প্রীতির এটি একটি জ্বলন্ত উদাহরণ।

কোনও প্রকার ঝগড়া, বাকবিতণ্ডা, অভিযোগ বা অনুযোগ ছাড়াই যুগের পর যুগ একই আঙ্গিনায় মন্দির ও মসজিদে বিরাজ করছে ধর্মীয় সম্প্রীতি। পৃথিবীজুড়ে চলমান সহিংসতা আর সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষের সংবাদের মধ্যে এমন দৃশ্য নিজের চোখে না দেখলে বিশ্বাস করা কঠিন ব্যাপার। একই আঙ্গিনায় মন্দির ও মসজিদ স্থাপন করেছে ধর্মীয় সম্প্রীতির বিরল দৃষ্টান্ত। মন্দিরটিতে রয়েছে শ্রী শ্রী কালী মূর্তি, দেবাদিদেব মহাদেব, শ্রী শ্রী বাবা লোকনাথ। প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যায় স্বাভাবিক নিয়মে চলছে পূজার্চনা। এখানে রয়েছে শ্রী শ্রী দুর্গা মন্দির। প্রতিবছর জাঁকজমক পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয় শারদীয় দুর্গা পূজা। একই আঙ্গিনার পুরান বাজার জামে মসজিদটি জেলার ঐতিহ্যবাহী একটি মসজিদ। এখানে নামাজ আদায় করতে দূরদূরান্ত থেকেও মুসল্লিরা আসেন। ৫ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতে ওই মসজিদে সবসময় মুসল্লিদের ভীড় থাকে। স্থানীয়রা বলছেন, কালীবাড়ি মন্দিরটি প্রায় ২০০ বছর পুরনো। তৎকালীন মাড়োয়ারি ব্যবসায়ীরা ওই মন্দির প্রতিষ্ঠা করে পূজার্চনা করতেন। তারা দেশ ছেড়ে চলে গেলেও মন্দিরটি থেকে যায় অক্ষত। পরবর্তীতে অবকাঠামোগত কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। ১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের পর এই আঙ্গিনায় গড়ে উঠে একটি জামে মসজিদ। নাম দেওয়া হয় পুরান বাজার জামে মসজিদ। পরে, মুসল্লিদের সহযোগিতায় ব্যাপক পরিবর্তন আসে মসজিদের অবকাঠামোতে। একসময় এলাকাটি হয়ে উঠে নয়নাভিরাম। স্থানীয় এক ব্যবসায়ী জানান, ‘একই আঙ্গিনার মসজিদ ও মন্দির ধর্মীয় সম্প্রীতির অনন্য দৃষ্টান্ত। আর এই সম্প্রীতির চিত্র স্বচক্ষে দেখার জন্য প্রতিদিন দূর-দূরান্ত থেকে দর্শনার্থীরা আসেন। অনেক সময় স্থানীয়দের কাছ থেকে দর্শনার্থীরা ঐতিহ্যবাহী ওই মসজিদ ও মন্দির সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান। তিনি আরও বলেন, যুগের পর যুগ একই আঙ্গিনায় একই সঙ্গে মুসলিম ও হিন্দুরা নিজ নিজ ধর্মীয় রীতিনীতি পালন করে আসছেন। কিন্তু, কোনও দিনই কোনো ধরনের সমস্যা বা রেষারেষি হয়নি। আমরা উভয় ধর্মের মানুষ এখানে হাসিমুখে থাকি, ধর্ম পালন করি।
কথা হয় ওই মসজিদের মোঃ মুয়াজ্জিন রফিকুল ইসলামের সঙ্গে। দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা থেকে তিনি জানান,মসজিদে আজান ও নামাজের সময় কোনও দিন কোনও সমস্যায় পড়তে হয় না। এ সময়টাতে মন্দিরে পূজার্চনা হলেও কোনো ধরনের বাদ্যযন্ত্র বাজানো থেকে বিরত থাকেন তারা। মন্দিরের পুরোহিতের সঙ্গে আমার সবসময় কথা হয়, ধর্মীয় রীতিনীতি নিয়ে আলোচনা হয়।

মন্দিরের পুরোহিত সঞ্জয় কুমার চক্রবর্তী জানান, মন্দিরে নিয়মিত পূজার্চনা হয়। আজান ও নামাজের সময় বাদ্যযন্ত্রের ব্যবহার বন্ধ রাখা হয়। ধর্মীয় সম্প্রীতির বিঘ্ন ঘটে এমন অবস্থার মধ্যে আমাকে কোনদিনই পড়তে হয়নি। বরং স্থানীয় মুসল্লিদের সহযোগিতা পেয়ে আসছি। যোগাযোগ করা হলে লালমনিরহাট সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ কামরুজ্জামান সুজন জানান, তিনি প্রতিদিনই ওই মসজিদে নামাজ আদায় করেন। সময় পেলেই মন্দিরে আসা ভক্তদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। তিনি আরো জানান, এখানে ধর্মীয় সম্প্রীতি বন্ধন অটুট ছিল, আছে আর থাকবে। কোনো দিনই এই সম্প্রীতিতে কোনো দাগ পড়েনি আর পড়বেও না। সারাবিশ্বেও যদি ধর্মীয় সহিংসতা বাধে তবুও এখানকার ধর্মীয় সম্প্রীতি থাকবে অটুট। এটাই আমাদের বিশ্বাস। চিরদিন থাকবে উভয় ধর্মের মানুষের সাথে ভালোবাসা।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম