1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
আশুলিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদকের মুনিয়া পাখির অডিও ভাইরাল - দৈনিক শ্যামল বাংলা
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ১০:১৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
রাউজানে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু আনোয়ারা প্রেস ক্লাবের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত রাউজানে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হলো শারদীয় দুর্গাপূজা অসুর শক্তিকে ধ্বংস করে করে আওয়ামীলীগ আজ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় : এমপি হানিফ ঠাকুরগাঁওয়ে বালিয়াডাঙ্গীর শাকিল হত্যা মামলার আসামি এক মাস ধরে পলাতক, ইউপি চেয়ারম্যানকে খুঁজছে পুলিশ ! উন্নয়নের সুষম বণ্টনই আমার প্রধান লক্ষ্য : নিবাচনী প্রচারণায় ভার্ড কামাল বিএসএফ’র গুলিতে বাংলাদেশী যুবক আহত । ঠাকুরগাঁওয়ে রাণীশংকৈলে বৈদ্যুতিক স্পর্শে প্রাণ গেল যুবকের! ঠাকুরগাঁও থেকে অপহৃত স্কুল ছাত্রী গাজীপুর থেকে উদ্ধার —আসামীরা পলাতক ! ১০ বছরেও সংস্কারের মুখ দেখেনি শীলকূপ-গন্ডামারা সড়ক, খানাখন্দে বেহাল জনদুর্ভোগ

আশুলিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদকের মুনিয়া পাখির অডিও ভাইরাল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ৯ জানুয়ারী, ২০২২
  • ১৭৭ বার

ঢাকা জেলা সাভার উপজেলার আশুলিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও বেসরকারি সেটেলাইট টিভি চ্যানেল, এশিয়ান টেলিভিশনের সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম খান লিটনের নামে কল রেকর্ডের একটি অডিও ভিডিও আকারে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মে ছড়িয়ে পড়েছে।

শনিবার ৮ই জানুয়ারী দিবাগত রাত থেকেই অডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মার্ধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে ভেসে বেড়াতে দেখা যায়। এ নিয়ে সাভার-আশুলিয়ার ধামরাই কাশিমপুর থানাসহ বিভিন্ন সাংবাদিক মহল ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।

৪ মিনিট ১৮ সেকেন্ডের অডিওতে দুইজন নারীর সঙ্গে বিভিন্ন রকমের অসামাজিক ও আপত্তিকর কথা বলতে শোনা যায় ওই অডিও ক্লিপটিতে, ১ম নারী লিটনের মালিকানাধীন জামগড়াতে অবস্থিত দি গ্রিনল্যাব ডায়াগনস্টিক সেন্টারে কর্মরত ছিলেন এবং দ্বিতীয় নারী তারই বান্ধবী। জানা যায় দ্বিতীয় নারী প্রথম জনের সাথে হাসপাতালে বেড়াতে আসে এবং লিটনের সাথে কথা হয় এর পর থেকে তাকে বিভিন্ন কুপ্রস্তাব দিতে থাকে আশুলিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম লিটন যা অডিওতে শোনা গেছে।

এছাড়াও লিটনের বিরুদ্ধে নারীঘটিত নানান অভিযোগ রয়েছে, সাংবাদিকের ত্বকমা লাগিয়ে সে তার ক্লিনিকের আড়ালে অবৈধ কাজকর্ম করে। তার বিরুদ্ধে ঔষধ সিন্ডিকেট বানিজ্যের অভিযোগ উঠেছে।

এ ব্যাপারে দি গ্রীনল্যাব ডায়াগনস্টিক সেন্টারের চাকরি হারানো মেডিকেল টেকনোলজিস্ট ওবায়দুল হক বলেন, প্রতি মাসে তার ডায়াগনস্টি সেন্টারে নতুন নতুন সুন্দরী নার্স নিয়োগ দিয়ে তাদের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক তৈরি করে তাদেরকে কৌশলে ধর্ষণ করে। কিন্তু কেউ তার প্রেসক্লাবের সাংবাদিক হওয়ায় ভয়ে প্রতিবাদ করতে পারেনা। প্রতিবাদ করলেও তাকে বিভিন্ন মিথ্যা অপবাদ দিয়ে চাকুরি থেকে বের করে দেওয়া হয় । তিনি আরও বলেন আমি এসব বিষয় নিয়ে প্রতিবাদ করার কারণে আমাকে বেতন না দিয়ে বেআইনিভাবে জোরপূর্বক ভয়-ভীতি দেখিয়ে বের করে দিয়েছেন । এ ধরনের লোকদের বিচার হওয়া দরকার, তা না হলে সমাজের অনেক মা-বোনদের ধর্ষণের ঘটনা ঘটতেই থাকবে ।

উল্লেখ্যঃ তার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রিসিপশনে কর্মরত এক ভুক্তভোগী নার্স ধর্ষণেরও শিকার হয় এবং তার পেটে বাচ্চা চলে আসায় বিষয়টি ধামাচাপা দিতে জহিরুল ইসলাম লিটনের নেতৃত্বে ভুক্তভোগী মেয়েটির সাথে হসপিটালে কর্মরত ডাক্তার এর বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ে হওয়ার পরে কৌশলে মেয়েটির পেটের বাচ্চা নষ্ট করানো হয়। এরপর থেকেই শুরু হয় লিটনের নাটক , সে মেয়েটির ইস্যু ধরে ডাক্তারের কাছ থেকে হসপিটালের শেয়ার লিখেও নেন তিনি। এমনকি মেয়েটির সাথে ডিভোর্স করিয়ে দেওয়ার কথা বলে পুরো শেয়ারের টাকা আত্মসাৎ করে যার কোনো অংশ মেয়েটিকে প্রদান করা হয়নি । মেয়েটির অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে মেয়েটিকেও ধর্ষণ করার চেষ্টা করে সফল হতে পারেনি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত জহিরুল ইসলাম লিটন এর মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম