1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : naga5000 : naga5000 naga5000
শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর পরিদর্শন - দৈনিক শ্যামল বাংলা
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৭:১৪ অপরাহ্ন

শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর পরিদর্শন

মোহাম্মদ নুর আলম সিদ্দিকী মানুঃ
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০২৩
  • ১০৩ বার

শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল(কেপিজে) বিশেষায়িত হাসপাতালে আধুনিক মেশিন ও উন্নত চিকিৎসার জন্য সম্পূর্ণভাবে প্রস্তুত বললেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রী

আজ মঙ্গলবার(২৪ জানুয়ারি) সকালে গাজীপুরের শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল বিশেষায়িত হাসপাতালে পরিদর্শন শেষে এ কথা বলেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় মাননীয় মন্ত্রী জনাব জাহিদ মালেক।

এসময় মন্ত্রী বলেন, সকল পেশাজীবি মানুষ যেনো স্বল্প খরচে এই হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে পারে তার জন্য সরকার ইতিমধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মায়ের নাম অনুসারে যেহেতু এই হাসপাতালটি অতএব সর্বসাধারণের সেবা যেনো মানুষ নিতে পারে সে বিষয়টিও সরকারের সাথে আলোচনা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

হাসপাতালটি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণীর নামে প্রতিষ্ঠিত।
অসংখ্য মানুষকে সেবা দিয়ে গাজীপুর এবং এর আশপাশের এলাকার মানুষের কাছে আশার আলো ছড়িয়েছে ২০১৩ সালে প্রতিষ্ঠিত ২৫০ শয্যার বিশ্বমানের এই হাসপাতাল। হাসপাতালটির ভারপ্রাপ্ত ও বিজনেস ডেভেলপমেন্ট সার্ভিসের সহকারী ম্যানেজার আবুল হাসান বলেন, প্রতিদিন আমরা গাজীপুর, সাভার, ঢাকা, মানিকগঞ্জ ও টাঙ্গাইলসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে অনেক রোগী পাচ্ছি। গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার কাশিমপুর ইউনিয়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠিত এই হাসপাতালের প্রযুক্তিগত সেবা পরিচালনায় রয়েছে মালোয়েশিয়ার বিখ্যাত বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা সংস্থা কুমপুলান পেরুবেটান জোহর (কেপিজে) হেলথ কেয়ার বারহাড। কেপিজে হেলথকেয়ার বারহাডের বর্তমানে মালোয়েশিয়ার ২৬টি হাসপাতাল রয়েছে এবং ইন্দোনেশিয়া, অস্ট্রেলিয়া ও থাইল্যান্ডেও সংস্থাটি কাজ করছে।

তিনি বলেন, এই হাসপাতাল দেশে প্রথম আইএমএস সার্টিফাইড হাসপাতালের স্বীকৃতি পেয়েছে। বাংলাদেশের স্বাস্থ্যসেবায় অবদানের জন্য ২০১৭ সালে আন্তর্জাতিক সার্টিফিকেশন সংস্থা ব্যুরো ভারিতাসের স্বীকৃতিও লাভ করেছে।

এখানে প্রথমবার ১০০ টাকা দিয়ে একজন রোগী নাম রেজিস্ট্রি করতে পারে। প্রতিবার আরো ৬০০ টাকা দিয়ে আউটডোর সেবা নেওয়া যায়। সাধারণ বেড প্রতিরাত ৮০০ টাকা এবং ভিভিআইপি ক্যাবিনের ব্যয় ৪ হাজার টাকা। রোগীদের প্রয়োজনীয় রক্ত সরবরাহের ব্যবস্থাও এখানে রয়েছে। ডা. রাজীব বলেন, হাসপাতালটির প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টের চেয়ারপারসন হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ কন্যা শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহেনা এই ট্রাস্টের অন্যতম সদস্য। প্রধানমন্ত্রী নিজে এই হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে আমাদের অনেক প্রেরণা ও উৎসাহ জুগিয়েছেন। তিনি আমাদের এ নির্দেশও দিয়েছেন যে, কোনো রোগী যেন বিনা চিকিৎসায় হাসপাতাল ত্যাগ না করেন। প্রত্যেক রোগী যেন হাসপাতালে ভর্তি ও হাসপাতাল ছেড়ে যাওয়ার সময় মাতৃসুলভ আদর-যতœ পান।

তিনি বলেন, হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে মেডিসিন, সার্জারি, গাইনোকোলজি, পেডিয়াট্রিক, চক্ষু, ইএনটি, নিউরো-মেডিসিন, কার্ডিয়োলজিসহ সব ক্ষেত্রে উন্নত স্বাস্থ্যসেবার জন্য সব মহলের প্রশংসা অর্জন করেছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রী জাহিদ মালেক হাসপাতালের কর্মকর্তাদের বলেন রোগীরা হসপিটালের ডেকোরেশন দেকে ভয় পায় এ বিষয়ে বিকল্প চিন্তা ভাবনা করে কিছু করার নির্দেশ দেন। তিনি আরও বলেন হসপিটালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা যাতে চিকিৎসা নিতে স্বাচ্ছন্দ্যে ভয় না পেয়ে ফিরে না জায়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে সকলকে।

হসপিটালের বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে ঘুরে রোগীদের সাথে সার্বিক বিষয়ে চিকিৎসা নিতে আসা রুগীদের বিষয়ে খোজ খবর নেন তিনি। চিকিৎসা নিতে আসা রোগিদের হসপিটালের নির্ধারিত ফি থেকে ৩০% ডিসকাউন্ট রাখা হয়েছে । গরীব দুঃখী অসহায় ও গার্মেন্টস শ্রমিকদের জন্যও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসা সুবিধার ব্যাবস্হা রেখেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম