1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় ডিএসটিই এর বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ - দৈনিক শ্যামল বাংলা
বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ১১:৫৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
ফাঁসিয়াখালী-মেদাকচ্ছপিয়া পিপলস ফোরাম (পিএফ) সাধারণ কমিটির সভা সম্পন্ন চৌদ্দগ্রামে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উদযাপন চৌদ্দগ্রামে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ৩ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা ফের ৩দিন ক্লাস বর্জনের ঘোষণা কুবি শিক্ষক সমিতির নবীনগরে পৃথক মোবাইল কোর্ট অভিযানে সাড়ে ৪ লাখ টাকা জরিমানা দৈনিক আমাদের চট্টগ্রামের সম্পাদক মিজানুর রহমান চৌধুরী উপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী ঠাকুরগাঁওয়ে রানীশংকৈলে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মাঠে নেমেছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা তিতাসে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা শেরপুরে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত ঘুমন্ত স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে নিয়ে স্ত্রীর পলায়ন

লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় ডিএসটিই এর বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
  • ৬৬ বার

মোঃ আব্দুস সালাম খাঁন।।

লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় সংকেত ও টেলিযোগাযোগ প্রকৌশলী (ডিএসটিই) কাজী ফিরোজ আহমেদের বিরুদ্ধে আউটসোর্সিং নিয়োগে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। পুরাতন ও অভিজ্ঞ ৪ জন টিএলআরকে বাদ দিয়ে নতুন ৪ জনকে ৮ লক্ষ টাকার বিনিময় অন্তর্ভুক্ত করার অভিযোগ করেছেন বাদ পড়া পুরাতন টিএলআররা।

জানা গেছে, বাংলাদেশ রেলওয়ে লালমনিরহাট বিভাগীয় টেলিযোগাযোগ দপ্তরে টিএলআর পদে ২১জন দীর্ঘ ৪/৫ বছর ধরে নিয়মিত কর্মরত রয়েছেন। কিন্তু ওইসব টিএলআরদের চলতি বছর থেকে রেলওয়ের আউটসোর্সিংয়ের আওতায় আনতে পুরাতন ও অভিজ্ঞ টিএলআরদের আগ্রাধিকার দেয়া হয়। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় সংকেত ও টেলিযোগাযোগ প্রকৌশলী (ডিএসটিই) কাজী ফিরোজ আহমেদ পুরাতন ও অভিজ্ঞ ২১জন টিএলআরদের মধ্যে সাব-টি ম্যান শরিফুল ইসলাম, সাব-খালাসী জয়ন্ত কুমার দাস, সাব-খালাসী শহিদুল আলম ও সাব-খালাসী সুমন আলী চাকরিচ্যুত করেন। অথচ তারা ২০২৩ সালের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত টিএলআর পদে কর্মরত ৪ জনেই নিয়মিত ডিউটি করছেন। এখন আউটসোর্সিং চালু হবে যোগদানও চলছে। কিন্তু ওই ৪ জন পুরাতন টিএলআর নাম নেই। ফলে তারা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন।

চাকরিচ্যুত টিএলআররা জানান, পুরাতন ওই ৪ জনের পরির্বতে লালমনিরহাটের বিভাগীয় প্রকৌশলী কাজী ফিরোজ আহমেদ তার বিনিময় জনপ্রতি ২ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়েছেন। ৪ জনকে ৮ লক্ষ টাকার বিনিময় অভিজ্ঞতার ছাড়পত্র দিয়েছেন কাউনিয়ার শাকিল আহমেদ, জয়পুরহাটের রনক জাহান আখি, দিনাজপুরের আব্দুর রহমান সহ আরও একজনকে আউটসোর্সিংয়ে নিয়োগ দিয়েছেন। তারা কাজের যোগদানেরও আবেদন করেছেন।অথচ এরা কোনদিন রেল বিভাগে কাজ করেনি। তার বড় প্রমাণ, বিগত দিনের হাজিরা খাতা ও বেতন সীট দেখলে বুঝা যাবে যে, কাজী ফিরোজ আহমেদ একজন দুর্নীতিবাজ প্রকৌশলী।

বাদ পড়া টিএলআর শরিফুল ইসলাম ও সুমন আলী বলেন, আমাদের ৪ জনকে হঠাৎ করে জানানো হয় চাকুরী নেই। কি কারণে আমাদের চাকরিচ্যুত করা হয়েছে তা চিঠি দিয়ে আমাদের জানানো হয়নি। আমাদের ৪ জনকে বাদ দিয়ে ৮ লক্ষ টাকা ঘুষের বিনিময় আউটসোর্সিংয়ের চাকরি দেয়া হয়েছে নতুন লোকদের। আমরা ৪/৫ ধরে টিএলআর পদে চাকরি করার পরেও ৮ লক্ষ টাকা ঘুষের বিনিময় চাকরি থেকে বাদ দেওয়ায় আমরা হতাশায় পড়েছি। বর্তমানে স্ত্রী, সন্তান পরিবার নিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় রয়েছি।

লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় সংকেত ও টেলিযোগাযোগ প্রকৌশলী (ডিএসটিই) কাজী ফিরোজ আহমেদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি আউটসোর্সিং বিষয়ে কোনো কথা বলবেন না বলে এ প্রতিবেদকেক জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম