1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
সরকারি কোষাগার হতে শতভাগ উৎসব ভাতা প্রাপ্তি, শিক্ষায় বৈষম্য নিরসন ও বদলীর ব্যবস্থাসহ এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের দাবি - দৈনিক শ্যামল বাংলা
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৪৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
যাত্রীবাহি বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল চুয়েটের দুই শিক্ষার্থীর নবীগঞ্জে সাংবাদিকদের সঙ্গে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সাংবাদিক সাইফুল জাহান চৌধুরীর মতবিনিময় নবীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী বোরহান চৌধুরীর নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের মত বিনিময় সভা ঠাকুরগাঁওয়ে ঐতিহ্যবাহী বৈশাখী মেলাকে আবদ্ধ করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন চট্টগ্রামের চন্দনাইশে পুকুরে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু তীব্র তাপদাহে রাউজানে পথচারীদের মাঝে সুপেয় পানি বিতরণ মাগুরায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৬ পরিবারের প্রায় ১৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি! ছবি তোলার অপরাধে সাংবাদিক গ্রেফতার, অত:পর মুক্তি নবীনগরে প্রারম্ভিক শিশু বিকাশ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত মহাকবি আল্লামা ইকবালের ৮৬তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন

সরকারি কোষাগার হতে শতভাগ উৎসব ভাতা প্রাপ্তি, শিক্ষায় বৈষম্য নিরসন ও বদলীর ব্যবস্থাসহ এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের দাবি

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২ মার্চ, ২০২৪
  • ১৫২ বার

নিজস্ব প্রতিবেদক

সরকারি কোষাগার হতে শতভাগ উৎসব ভাতা প্রাপ্তি, শিক্ষায় বৈষম্য নিরসন ও বদলীর ব্যবস্থাসহ এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারি জাতীয়করণ প্রত্যাশী মহাজোট। শনিবার (২ মার্চ)/ গতকাল শনিবার সেগুন বাগিচাস্থ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির স্বাধীনতা হলে সংবাদ সম্মেলনে বক্তরা এসব কথা বলেন।

এমপিওভুক্ত শিক্ষকগণ ২০১৮ সাল থেকেই জোটভিত্তিক আন্দোলন-সংগ্রাম করে বর্তমান সরকারের নিকট থেকে বার্ষিক ৫% প্রবৃদ্ধি ও ২০% বৈশাখী ভাতা প্রাপ্ত হন। কিন্তু নেতৃবৃন্দের মূল দাবি ছিল এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণ। এরপর ২০২৩ খ্রিষ্টাব্দে নেতৃবৃন্দ এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারী জাতীয়করণ প্রত্যাশী মহাজোটের ব্যানারে এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের দাবিতে টানা ৪৪ দিন জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান ও প্রতিকী অনশন পালন করেন। তবে এক্ষেত্রে সরকারের পক্ষে তেমন কোনো সাড়া না পাওয়ায় ২০২৩ খ্রিষ্টাব্দের আগষ্ট মাসে সংগ্রাম কমিটির ব্যানারে দেশের প্রায় অধিকাংশ সংগঠন ও শিক্ষকবৃন্দ টানা ২২ দিন আন্দোলন করেন। অতঃপর সরকারের পক্ষ থেকে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের যাবতীয় বৈষম্য নিরসনের আশ্বাস প্রদান করা হয়। অতঃপর এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের যৌক্তিকতা নিয়ে একটি প্রশাসনিক ও একটি আর্থিক কমিটি গঠনের আশ্বাস দেয়া হয়। এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বিভিন্ন সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে কমিটিতে রাখার আশ্বাস প্রদান করা হয়। তারপর ২৭ ও ২৮ জুলাই/২০২৩ তারিখে গাজীপুরের রাজেন্দ্রপুরস্থ ব্রাক সিডিএম-এ ০২ (দুই) দিনের একটি কর্মশালা শিক্ষক নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ডিজি মাধ্যমিক, মাদ্রাসা ও কারিগরী শিক্ষার অফিসারবৃন্দের নেতৃত্বে পরিচালিত হয়। উক্ত কর্মশালায় শিক্ষক নেতৃবৃন্দ এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের বিষয়ে তাঁদের মতামত লিখিতভাবে প্রদান করেন।

শিক্ষা প্রশাসনের নেতৃবৃন্দ কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে আশ্বাস প্রদান করেছিলেন যে, শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও ডিজি স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা এবং কারিগরী অফিসারবৃন্দ বসে শিক্ষকদের মতামতের যৌক্তিকতা যাচাইপূর্বক এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের বিষয়ে একটি সমন্বিত প্রস্তাব তৈরি করে আবার শিক্ষক নেতৃবৃন্দের সাথে বসে সমন্বিত প্রস্তাবসমূহ চূড়ান্ত করে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে প্রেরণ করবেন- যা এখনো আলোর মুখ দেখেনি। ইতোমধ্যে সরকারের সাবেক শিক্ষা উপমন্ত্রী বর্তমান সরকারের শিক্ষামন্ত্রী জনাব ব্যরিস্টার মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপিদায়িত্ব গ্রহণের পর ঘোষণা করেছিলেন এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদেরকে দ্রুতই শতভাগ উৎসব ভাতার ব্যবস্থা করবেন। কিন্তু এ বিষয়েও এখনো কোনো দৃশ্যমান উদ্যোগ সরকারের পক্ষ থেকে দেখা যাচ্ছে না। তাই এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারী জাতীয়করণ প্রত্যাশী মহাজোটগতকাল প্রেস কনফারেন্স করে সরকারের নিকট ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দের ঈদ-উল-ফিতরের পূর্বেই শতভাগ উৎসব ভাতার দাবি উপস্থাপন করে। প্রকৃতপক্ষে উক্ত সংগঠনের মূল দাবি এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণ। তারপরও সংগঠনটি এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের পূর্বে নিম্নোক্ত দাবিসমূহ পর্যায়ক্রমে পূরণের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
দাবিসমূহঃ
ক) ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দের ঈদ-উল-ফিতরের পূর্বেই সরকারি কোষাগার থেকে এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদেরকে শতভাগ উৎসব ভাতা প্রদানের ব্যবস্থা নিতে হবে।
খ) এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের সকল নিয়োগ সরকারের হাতে নিতে হবে, বদলি, প্রমোশন প্রথা অনতিবিলম্বে চালু করতে হবে এবং জুলাই/২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ইএফটি এর মাধ্যমে বেতন-ভাতা প্রদান করতে হবে।
গ) এমপিওভুক্ত প্রধান শিক্ষকদেরকে ০৬ নং গ্রেডে এবং সহকারী প্রধান শিক্ষকদেরকে ০৭ নং গ্রেডে বেতন প্রদান করতে হবে। বিশেষ করে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সরকারি প্রতিষ্ঠানের মতো সমসংখ্যক শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগের ব্যবস্থা করতে হবে।
ঘ) মাধ্যমিক ডিজি আলাদাকরণপূর্বক এমপিওভুক্ত শিক্ষকদেরকে শিক্ষা প্রশাসনে আনুপাতিক হারে প্রেষণে নিয়োগ দিতে হবে। তাছাড়া এমপিওভুক্ত শিক্ষায় উচ্চতর গ্রেডে কর্মরতদেরকে যেন নিম্নতর গ্রেডের সরকারি কর্মকর্তার মাধ্যমে তদারকি করা না হয়।
ঙ) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আয় সরকারি কোষাগারে জমা নিয়ে এবং প্রয়োজনে শিক্ষার্থীদের বেতন কাঠামো ন্যূনতম সংস্কার করে এমপিওভুক্ত শিক্ষা ৩১ শে ডিসেম্বর/২০২৪ এর মধ্যে জাতীয়করণ করতে হবে।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন, সংগঠনের সদস্য সচিব ও বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির মহাসচিব জসিম উদ্দিন আহমদ, অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের আহবায়ক ও বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারী ফোরাম এর সভাপতি অধ্যক্ষ মোঃ মাইন উদ্দীন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সংগঠনের যুগ্ম আহবায়ক-১ ও বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষক-কর্মচারী ফোরাম এর সভাপতি অধ্যক্ষ মওলানা দেলোয়ার হোসেন আজিজী, অনুষ্ঠানে জোরালো বক্তব্য উপস্থাপন করেন, সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা ডক্টর মোঃ ইদ্রিস আলী, উপাধ্যক্ষ মোঃ আবদুর রহমান, অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য উপস্থাপন করেন- সমন্বয়কারী মোঃ রফিকুল ইসলাম, মোঃ শাহ আলম, শেখ মোঃ জসিম উদ্দিন, রতন কুমার দেবনাথ, জাতীয় নেতৃবৃন্দঃ শাহিদুল ইসলাম, মোঃ ফরিদ উদ্দিন, মতিউর রহমান দুলাল, মেজবাউল ইসলাম প্রিন্স, প্রকৌশলী আবুল বাশার, গোলাম মোস্তফা, মমতাজ উদ্দিন সহ বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে আগত নেতৃবৃন্দ। উল্লেখ্য, সরকার যদি আমাদের দাবিসমূহ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পূরণ না করে তাহলে পরবর্তীতে নেতৃবৃন্দের বৈঠকের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গ্রহণপূর্বক কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম