1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
চট্টগ্রামের রাউজানে আমের বাম্পার ফলন  - দৈনিক শ্যামল বাংলা
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৫:০০ অপরাহ্ন

চট্টগ্রামের রাউজানে আমের বাম্পার ফলন 

শাহাদাত হোসেন, রাউজান (চট্টগ্রাম) 

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১ মে, ২০২৪
  • ৬৭ বার

চট্টগ্রামের রাউজানে আমের বাম্পার ফলন হয়েছে। উপজেলার প্রায় প্রতিটি সড়কের দুই পাশে সারি সারি আম গাছে ঝুলছে বিভিন্ন প্রজাতির আম। এছাড়াও উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন পরিষদের আঙ্গিনায়, সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আঙ্গিনায় ও ব্যক্তি মালিকানাধীন বাগান গুলোতেও ঝুলছে আম।

সরেজমিনে দেখা গেছে চিকদাইর ইউনিয়ন পরিষদের আঙ্গিনায় ও ভবনের ছাদে রোপণ করা আম গাছে ব্যাপক আমের ফলন এসেছে। এই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রিয়তোষ চৌধুরী বলেন, রাউজানের সংসদ সদস্য এবি এম ফজলে করিম চৌধুরীর নির্দেশনায় ইউনিয়ন পরিষদের আঙ্গিনায় উন্নত জাতের আম গাছের চারা লাগানো হয়েছে।গত চার বছর ধরে রোপণ করা আম গাছগুলোতে ফলন আসতে শুরু করে।গত দুই বছর ধরে বাম্পার ফলন হয়েছে। আগে একসময় মানুষের কাছে রাজশাহীর আমের চাহিদা ছিল প্রচুর।

বর্তমানে আর রাজশাহীর আমের তেমন চাহিদা নেই। বিগত কয়েক বছর ধরে রাউজানের মানুষ নিজদের উৎপাদিত আমের চাহিদা পুরন করে বাইরেও বিক্রি করেছে আম। জানা যায়, বিগত কয়েক বছর ধরে এই উপজেলায় প্রায় ২৫ লক্ষ বিভিন্ন উন্নত জাতের ফলজ গাছ লাগিয়েছেন স্থান সংসদ সদস্য এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী৷ তিনি ২০২৩ সালের জুলাই মাসে ৫ লক্ষ গাছ লাগিয়ে ছিল। ২০১৭ সালের জুলাই মাসে ১ ঘন্টায় ৪ লক্ষ ৮৭ হাজার গাছ লাগিয়ে ছিল।এসব ১৪টি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকার সড়কের দুই পাশে ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আঙ্গিনায় লাগানো হয়েছে।

এসব ফলজ গাছের মদ্যে রয়েছে ২৫ প্রজাতির আম গাছ। বর্তমানে রাউজানে লাগানো সারি সারি আম গাছে থোকায় থোকায় ঝুলছে আম। বিভিন্ন প্রজাতির মাধ্যে রয়েছে,  আম্রপালি, রূপালী, ফজলি, ল্যাংড়া, রাঙ্গুয়াই,ড়িভাঙ্গা, বানানা ম্যাংগো, জাপানি সূর্যডিম, ল্যাংড়া, মিশ্রিভোগ, খিরসাপাত, অরুনা, মল্লিকা, সুবর্নরেখা, মিশ্রিদানা, নিলাম্বরী, কালীভোগ, কাঁচামিঠা, আলফানসো, বারোমাসি, তোতাপুরী, কারাবাউ, কেঊই সাউই, গোপাল খাস, কেন্ট, সূর্যপূরী, পাহুতান, ত্রিফলা, হাড়িভাঙ্গা,ছাতাপরা, গুঠলি, লখনা, আদাইরা, কলাবতী আম ইত্যাদি।

রাউজান পৌর মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ বলেন, রাউজানের মানুষ এখন বাইরের আম কিনে খেতে হয়না। প্রতিটি গ্রামের মানুষ তাদের রোপন করা গাছ থেকে বিষমুক্ত পাকা ফল খেতে পাড়ে।এটি সম্ভব  হয়েছে রাউজানের বৃক্ষ প্রেমিক সংসদ সদস্য এবি এম ফজলে করিম চৌধুরীর কারণে।

উপজেলা কৃষি অফিসের সূত্রে জানা যায়, রাউজানে ছোট – বড় ৭৫ টি আম বাগান রয়েছে। রাউজান উপজেলার সর্বত্র ৫৫০ হেক্টর জমিতে আম গাছ লাগানো হয়েছে। একই সাথে ৩৮৫ টি ছাদ বাগান রয়েছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাসুম কবির বলেন, এবছর রাউজানে প্রচুর আম ধরেছে। তবে প্রচন্ড গরমে কিছু আমের গুটি ঝরে গেছে।

কোনো ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে রাউজানে ব্যাপক আমের ফলন উৎপাদনের আশা করছি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম