1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
শরণখোলায় করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যেও বসেছে তাফালবাড়ির সাপ্তাহিক হাট - দৈনিক শ্যামল বাংলা
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৯:২১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
ঘূর্ণিঝড় রেমাল: ঝুঁকি এড়াতে প্রস্তুত বাঁশখালী উপজেলা প্রশাসন মাগুরায় নবনির্বাচিত শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রাজনকে গণসংবর্ধনা প্রদান হোমনায় পরিবারতন্ত্র ভাঙতে চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়ে মাঠে নেমেছি-সিদ্দিকুর রহমান আবুল হাটহাজারীতে বাসচাপায় প্রাণ গেলো দুইজনের : চালক আটক আনোয়ারায় আনারস মার্কায় নিজে এবং আত্মীয়দের ভোট দিতে ও ভোট কেন্দ্র পাহারা দিতে বললেন কাজী মোজাম্মেল চন্দনাইশে এসে পৌঁছেছে নির্বাচনী সরঞ্জাম শিক্ষকদের দাবিতে দায়সারা প্রতিবেদনের অভিযোগ; অনাস্থা কুবি শিক্ষক সমিতির চন্দনাইশে অনুমোদনহীন মাছ বাজারে প্রশাসনের অভিযান ৬ মাছ ব্যবসায়ীকে ৯০ হাজার টাকা জরিমানা ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশের অভিযানে ৩ মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার , মাদক উদ্ধার মিশ্র ফলের বাগান ও মৎস্য প্রকল্প করে সফল রাউজান পৌর কাউন্সিলর আজাদ  

শরণখোলায় করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যেও বসেছে তাফালবাড়ির সাপ্তাহিক হাট

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল, ২০২০
  • ১০১ বার

মনইন আবু নাঈম, বাগেরহাট প্রতিনিধি ঃ
করোনার এই সংকটময় মুহূর্তে সরকারি বিধিনিষেধ অমান্যকারী যেসমস্ত এলাকা তার মধ্যে বাগেরহাটের শরণখোলা অন্যতম একটিতে পরিনত হয়েছে। এখানকার মানুষ মানছে না সরকারের নির্দেশনা। গ্রামের সাপ্তাহিক হাট বসছে নিয়মিত। বেশিরভাগ মানুষ সরকারের নির্দেশনাকে তুচ্ছ ভেবে অবাদে বাজার, রাস্তাঘাটে ঘোরাঘুরি করছে।
উপজেলার সাউথখালী ইউািনয়নের অন্যতম তাফালবাড়ি বাজারে সাপ্তাহিক হাট বসেছে জমজমাটভাবে। গ্রাম থেকে শত শত মানুষ বাজারে নির্ভয়ে কেনাবেচায় ব্যাস্ত ছিলো।
স্থানীয় সমাজসেবক ফরিদ খান মিন্টু জানান, তাফাভাড়িতে সাপ্তাহিক হাটের দিন। বিকেলে জমে এই হাট। করোনার পরিস্থিতিতে হাট বসাতে বারণ করা হলেও মানুষ তা মানতে চায়না। বিকেল থেকে হাট বেশ জমে ওঠে। এসময় স্থানীয় সচেতনরা প্রশাসনের ভয় ধেকানোর পর কিছু মানুষ বাজার থেকে বের হলেও বেশিরভার রয়ে যায়। সন্ধ্যা পরও চলে কেনাবেচা। এভাবে হাট বসায় সচেতন মানুষের মাঝে আঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
ধানসাগর ইউনিয়র পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান স্বপন জানান, তাদের ইউনিয়নের নলবুনিয়া, পহলানবাড়ি বাসস্ট্যান্ড, বান্দাঘাটা বাজার, মোল্লার বাজার, রাজাপুর শিরিশতলা এলাকায় বিকেল থেকে শুরু করে সন্ধ্যার পরও মানুষজনের জমজমাট আড্ডা বসে। প্রতিদিন বিভিন্নভাবে নিষেধ করা হলেও মানছে না। এসব এলাকায় প্রশাসনের নিয়মিত টহলের দাবি জানান তিনি।
এদিকে, গত রবিবার থেকে সন্ধ্যা ৭টার মধ্যে সমস্ত এলাকা লকডাউন করার ঘোষনা দেওয়া হয়েছে উপজেলা প্রশাসন থেকে। দিনের বেলা নিত্য প্রয়োজনীয় কিছু দোকানপাট খোলা থাকবে সীমিত আকারে। সোমবার সন্ধ্যা থেকে রায়েন্দা-মাছুয়া ও রায়েন্দা-রাজৈর এই দুটি খেয়া চরাচল সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।
দেশে করোনা পরিস্থিতি দিন দিন ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে। প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারও কঠোর অবস্থানে। দেশের বিভিন্ন জেলা-অঞ্চল লকডাউন ঘোষনা করা হয়েছে। তবুও বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলের মানুষ এসব নির্দেশনার ধার ধারছে না।
এব্যাপারে শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সরদার মোস্তফা শাহিন বলেন, সেনাবাহিনী ও পুলিশের টহল আরো জোরদার কার হয়েছে। সন্ধ্যার ৭টার পর থেকে পুরো উপজেলা লকডাউন করা হয়েছে। এর পরও কেউ আইন অমান্য করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম