1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
- দৈনিক শ্যামল বাংলা
সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০৬:৪২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশের অভিযানে ৬ জন গ্রেফতার – মাদক উদ্ধার ! ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে প্রচার যুদ্ধ, চেয়ার দখলে দ্বিমুখী লড়াই ! Situs Slot Gacor Pragmatic Bet 200 Resmi mudah Menang dan Terpercaya ঈদগাঁওতে ৬ দিন পর নির্বাচনী সহিংসতায় কর্মী খুনের মামলা কয়েক শত মাছের ঘের প্লাবিত হয়ে একাকার রাঙ্গাবালীতে ঘূর্ণিঝড় রিমালের তান্ডবে ক্ষয়ক্ষতি ২০ গ্রাম প্লাবিত আইপিএল এ সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে ফাইনালে রীতিমতো বিধ্বস্ত করে শিরোপা জিতে নিল কলকাতা নাইট রাইডার্স তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে এনে সাজা দেওয়া হবে -প্রধানমন্ত্রী ইনাতগঞ্জ ডিগ্রী কলেজে অধ্যক্ষ ও শিক্ষকের অপসারণের দাবিতে শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচি পালন।। ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম ঠাকুরগাঁওয়ে শিশুর পুরুষাঙ্গে ইট বেঁধে ভিডিও, ৩ কিশোর আটক

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১ এপ্রিল, ২০২০
  • ১৮৫ বার

মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার :
সরকার সময়োচিত পদক্ষেপ নেয়ায় করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে- এমন মন্তব্য করে সবাইকে নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থানের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ প্রসঙ্গে দেশের সব নাগরিকের উদ্দেশে তিনি বলেন, সচেতন থাকুন। নিজের ভালো নিজেকেই বুঝতে হবে। আমরা সচেতনতা সৃষ্টি করতে পেরেছি বলেই আজ করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছি। তিনি বলেন, জীবন থেমে থাকবে না। জীবনের প্রয়োজনে বের হতেই হবে। তবে খুব সাবধানে চলাফেরা করতে হবে। গতকাল মঙ্গলবার গণভবন থেকে বিভাগীয় কমিশনার ও ৬৪ জেলা প্রশাসকের (ডিসি) সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে এসব কথা বলেন তিনি। দীর্ঘ তিন ঘণ্টারব্যাপী এই ভিডিও কনফারেন্সে বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, সশস্ত্র বাহিনীর কর্মকর্তা, সিটি মেয়র, জনপ্রতিনিধি এবং করোনা আক্রান্ত হয়ে সুস্থ এক ব্যক্তিও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন। মাঠপর্যায়ে যারা কাজ করছেন তাদের সঙ্গে আলাপকালে বর্তমান করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি প্রতিরোধে কী কী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, পরিস্থিতি কী এবং সামনের দিনে কী করতে হবে সে সম্পর্কে দিকনির্দেশনা দেন সরকার প্রধান। এ সময় নিম্ন আয়ের মানুষের জীবনধারণে খাদ্যনিশ্চয়তা এবং করোনার কারণে বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা মোকাবিলায় সর্বোচ্চ খাদ্য উৎপাদন করার পরিকল্পনার কথা উঠে আসে।

শেখ হাসিনা বলেন, করোনায় ছুটি ঘোষণার কারণে দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষের সমস্যা হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি সবাইকে তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে। প্রতিটি ওয়ার্ড অনুযায়ী তালিকা করতে হবে। সেই অনুযায়ী সবাই যেন সাহায্য পায়। কেউ যেন বাদ না পড়ে। দুঃসময়ে কেউ সুযোগ নিলে, কোনো অভিযোগ পেলে তাকে ছাড়ব না। বিন্দু পরিমাণ অনিয়ম সহ্য করা হবে না।

জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জনগণ আপনাদের ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। তাদের ভালো-মন্দ দেখার দায়িত্ব আপনাদের। করোনা ভাইরাস রোধ প্রসঙ্গে যে সমস্ত নির্দেশনা দেয়া আছে সেসব নির্দেশনা কড়ায়-গণ্ডায় মেনে চলবেন। আমাদের আইনশৃঙ্খলা বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। সারাদেশে রাস্তাঘাট শূন্য; এ সময় এর সুযোগ নিয়ে অন্য কেউ যেন কোনো অঘটন ঘটাতে না পারে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

ডিসিদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সামাজিক নিরাপত্তামূলক কাজ যেগুলো আছে, যথাযথভাবে করতে হবে। কিন্তু যারা দিন আনে দিন খায়, প্রতিদিনের আয় দিয়ে বাজার করে খেতে হয়, সাধারণ ছুটির কারণে কাজ পাচ্ছে না বলে তারা আজ ভুক্তভোগী। তাদের কাছে আমাদের সাহায্য পৌঁছে দিতে হবে, যেন তারা অভুক্ত না থাকে। একইসঙ্গে তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা ও সচেতন করার কাজটিও করতে হবে। সহযোগিতা যেন সবাই সমানভাবে পায় তা দেখতে হবে। কেউ যেন বারবার না পায়, কেউ যেন বঞ্চিত না হয়, সেটাও দেখতে হবে। এই কাজে কোনো ধরনের দুর্নীতি অনিয়ম সহ্য করা হবে না।

সরকার প্রধান বলেন, আজ যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে সেটা কেবল বাংলাদেশে নয়, সমগ্র পৃথিবীজুড়ে। এরকম পরিস্থিতি আমরা জাতীয় জীবনে আর কখনো দেখিনি। দুর্যোগ এলে তা সাহসের সঙ্গে মোকাবিলা করতে হবে। সেজন্য সবাইকে সেইভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে। এতে ভীত হওয়ার কিছু নেই। মনের জোর থাকতে হবে। অনেক দুর্যোগ আমরা মোকাবিলা করেছি। এটাও পারব ইনশাল্লাহ। জীবন পড়ে থাকবে না, চলবে। সেদিকে লক্ষ্য রেখে আমাদের কাজ করতে হবে। সঙ্গে সঙ্গে আমাদের জনগণকে সুরক্ষিত রাখতে হবে। তবে এই সুরক্ষার জন্য মানুষকে কষ্ট দেয়াটা আমাদের উদ্দেশ্য নয়। করোনা থেকে জনগণকে সুরক্ষার জন্য জনকল্যাণে নির্দেশনা পালন করতে হবে। সবাইকে যার যার জায়গায় থেকে দায়িত্ব পালন করতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, এ বছর জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর বছর। জন্মশতবার্ষিকী পালনে আমরা সব রকম প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। কিন্তু চীনে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর আমরা জনগণের নিরাপত্তা দেয়াকে বড় কর্তব্য বলে মনে করেছি। সেই কারণে আমাদের বহু কাক্সিক্ষত মুজিববর্ষের সব কর্মসূচি স্থগিত করেছি। এর পাশাপাশি স্বাধীনতা দিবসসহ বিভিন্ন দিবসের কর্মসূচিও বাতিল করেছি। ছুটির সময়সীমা আরো বাড়তে পারে। তবে সীমিত পরিসরে যানবাহন চলাচল করবে। সার্বিক পরিস্থিতিতে এবার ১ বৈশাখের উৎসব অনুষ্ঠান বন্ধ রাখতে হবে।

চিকিৎসায় সব ব্যবস্থা নেয়ার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, চিকিৎসা ও পরীক্ষার ব্যবস্থা এখন ঢাকায়ই নয়, বিভাগীয় শহরেও ব্যবস্থা করা হচ্ছে। কাজেই কেউ সংক্রমিত হলে সঙ্গে সঙ্গে পরীক্ষার ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। এখানে কোনো লুকোচুরির ব্যাপার নয়। লুকোচুরি করতে গেলে নিজেই নিজের ক্ষতি করবেন। যারা সরকারের সামাজিক নিরাপত্তার সহযোগিতা পাচ্ছেন সেটা অব্যাহত থাকবে। দরকার হলে মোবাইলের মাধ্যমে অর্থ পৌঁছে দেব। খাদ্য পৌঁছে দেব। আমাদের কিন্তু অভাব নেই। যথেষ্ট খাদ্য মজুত আছে। আমরা চাই না দেশের মানুষ কষ্ট পাক।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সারা বিশ্ব অর্থনৈতিক কারণে স্থবির হয়ে গেছে। সামনে বিরাট একটা অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিতে পারে। মন্দা মোকাবিলার চিন্তাভাবনা এখনই আমাদের করতে হবে। পরিকল্পনা নিতে হবে। এখানে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ হলো খাদ্য নিরাপত্তা। এ ক্ষেত্রে একটা সুবিধা হলো আমাদের দেশের মাটি অত্যন্ত উর্বর। আমাদের মানুষ আছে। খাদ্য উৎপাদন যেন অব্যাহত থাকে। কৃষিমন্ত্রীকে বলব, এজন্য উপকরণ দিয়ে সহায়তা করতে। এই উদ্যোগ নিয়ে আমরা বিশ্ব মন্দা কাটিয়ে উঠতে পারব। দ্রব্যমূল্য যেন সাধারণ মানুষের আওতায় থাকে সেই ব্যবস্থাটাও আমাদের নিশ্চিত করতে হবে। মানুষের দুর্ভোগের সুযোগ নিয়ে অযথা দাম বাড়িয়ে নেয়ার বিষয়টি অমানবিক। ব্যবসায়ীদের বলব এটা মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখবেন।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে করোনা পরিস্থিতিতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগের কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্প নিয়ে আমরা চিন্তিত। সেটা যেন সংরক্ষিত হয় সেটা দেখতে হবে। সেখানে বাইরের কারো যাওয়ার দরকার নেই। স্থানীয়রা কাজ করছেন। বাইরের কেউ যেন সেখানে না যায় সেদিকে দৃষ্টি দিতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম