1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : naga5000 : naga5000 naga5000
কক্সবাজারে পিবিআই ও সিআইডির কার্যালয় গড়তে ভূমি অধিগ্রহণ, মালিকানা নিয়ে বিরোধ থাকার পরও ক্ষতিপূরণের চেক হস্তান্তরের অভিযোগ - দৈনিক শ্যামল বাংলা
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৩:৪৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
রাউজানে পীরে কামেল আল্লামা আবদুস ছোবাহান শাহ মাইজভাণ্ডারী”র ৩৪তম ওরশ শরীফ অনুষ্ঠিত শেষ কর্ম দিবসে , বুয়েট- উপাচার্য ড. সত্য প্রসাদ মজুমদারকে তার কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শত শত কর্মকর্তা-কর্মচারী Tips for choosing the best sugar daddy for you Fun88 Sổ Xô Miên Nam Hôm Nay: Hướng Dẫn Chơi Online Với Trang Đánh Bài Uy Tín Thabet88 আ’লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বাঁশখালী আ’লীগে ঐক্যের সুর 1win – лучшая букмекерская контора с высокими коэффициентами и широкой линией ставок для азартных игроков ১০৫ জন অধ্যাপক ও সহযোগী অধ্যাপক থাকা স্বত্বেও ডিন হওয়ার অভিযোগ কুবি উপাচার্যের বিরুদ্ধে নকলায় ইউএনওর সাজানো মামলা থেকে সাংবাদিক রানা বেকসুর খালাস ঠাকুরগাঁয়ের বালিয়াডাঙ্গীতে আওয়ামী লীগের পৃথক পৃথক ভাবে ৭৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন। বাস্তব জীবনেও সামাজিক মাধ্যমের প্রভাব

কক্সবাজারে পিবিআই ও সিআইডির কার্যালয় গড়তে ভূমি অধিগ্রহণ, মালিকানা নিয়ে বিরোধ থাকার পরও ক্ষতিপূরণের চেক হস্তান্তরের অভিযোগ

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৭ মে, ২০২০
  • ১৪১ বার

কক্সবাজার প্রতিনিধি :
করোনার ক্রান্তিকালেও কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের ভূমি অধিগ্রহণ (এলএ) শাখা পিবিআই ও সিআইডির কার্যালয় গড়তে অধিগ্রহণ করা বিরোধীয় জমির চেক বিতরণ করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। একাধিক অভিযোগ বিরাচাধীন থাকার পরও ইতোমধ্যে তিন কিস্তির চেকে প্রায় ১৫ কোটি টাকার ছাড়ও দেয়া হয়েছে। জমির অংশীদার নয় এমন ব্যক্তিকেও অদৃশ্য কারণে ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়েছে অভিযোগ করে বাকি টাকার চেকগুলো মামলা নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত ধরে রাখার ব্যবস্থা করতে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) চেয়ারম্যান, ভূমি মন্ত্রী, ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার ও কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন দিয়েছে ক্ষতিগ্রস্ত জমির অংশীদার দাবিকারকগণ।

অভিযোগকারি কক্সবাজার পৌরসভার উত্তর রুমালিয়ারছরার মরহুম আমান উল্লাহ চৌধুরীর ছেলে আজম মোবারক উল্লাহ চৌধুরী, দিদারুল আজম চৌধুরী, খালেদা বেগম চৌধুরী, আকলিমা বেগম চৌধুরী ও কলাতলীর সৈকতপাড়ার হাজী ছালেহ আহমদের ছেলে শফিউল্লাহ উল্লেখ করেছেন, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ও ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগ (সিআইডি) কক্সবাজার কার্যালয় নির্মাণের জন্য এলএ মামলা নম্বর-০৪/২০১৮-২০১৯ মূলে ৪ নম্বর রোয়েদাদে কক্সবাজারের ঝিলংজা মৌজার আরএস ১৯৫০ খতিয়ানের আরএস ৮০০৪/৮৯২১ দাগের বিএস ২০৩০৭ নম্বর দাগের শূন্য দশমিক ৭৫ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়। আরএস ১৯৫০ খতিয়ানের আরএস ৮০০৪/৮৯২১ দাগের ৬ একর ৪০ শতক জমি অছিউদ্দিনের ছেলে আবদুল হাকিমের স্বত্ব দখলীয় জমি ছিল। তার মৃত্যুর পর এমআরআর ২০৪৮ খতিয়ান ও ১৯৬৩ সালের ২৩ জুলাইয়ের ২৮৭৭ রেজিস্ট্রি অংশনামা, একই বছরের ২৩ সেপ্টেম্বর ৩৪৩২ কবলা ও ২৮ সেপ্টেম্বরের ৩৪৮৭ কবলা দলিল এবং ১৯৭০ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ১১০৭ রেজিস্ট্রি কবলা দলির মূলে আর এস ১৯৫০ খতিয়ানের ৮০০৪/৮৯২১ দাগের ৬ একর ৪০ শতক জমির মালিক হন অভিযোগকারি প্রথম চারজনের মা নুর মহল বেগম চৌধুরী। সেখান থেকে তিনি কিছু জমি সন্তানদের মৌখিক দান করেন।

তারা আরো উল্লেখ করেন, বিএস জরিপে আর এস ১৯৫০ খতিয়ানের ৮০০৪/৮৯২১ দাগের ২ একর জমি বিএস ২০৩০৭ নম্বর দাগের অন্তর্ভূক্ত হয়ে দাগটি বিএস ১০৫ নম্বর খতিয়ানে নুর মহল বেগম চৌধুরী ও তার চার ছেলে-মেয়ের নামে লিপি হয়। জরিপে অভিযোগকারিদের নামে জমি পরিমাপ কম হলেও পুরোজমি অভিযোগকারিদের ভোগদখলে রয়েছে। ইত্যবসরে ১৯৫০ খতিয়ানের ৮০০৪/৮৯২১ দাগ মোতাবেক বিএস ১০৫, ৭৬৩০, ১৯৯৩ খতিয়ানের বিএস ২০৩০৭, ২০১৬৩,২০৩০৬, ১৭০৫০ দাগাদির ৬ দশমিক ৪০ শতক জমি হতে এলএ মামলা নম্বর-০৪/২০১৮-২০১৯ মূলে এক একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়। কিন্তু কাগজপত্র পর্যালোচনা করে জরিপে অভিযোগকারিদের নামে জমি কম পড়া রেকর্ড সংশোধনে কক্সবাজার যুগ্ন জেলা জজ ১ম আদালতে দেওয়ানী মামলা দায়ের করা হয় (অপর-২৫১/২০১৯; অপর-২৫৭/২০১৯; অপর-২৭১/২০১৯ ও অপর-৭৩/০১)। যা বিচারাধীন।

এদিকে, ২০০৯ সালের ৩ আগস্ট ৩৫৩০ নম্বর রেজিস্ট্রি আমমোক্তার নামা মূলে ৫ নম্বর অভিযোগ কারি এক ও দু’নম্বর অভিযোগকারি হতে ১২ শতক জমি ক্রয় করেন।

অধিগ্রহনের কথা শুনে টাকা হাতিয়ে নিতে খতিয়ানভূক্ত জমির মালিক না হয়েও স্থানীয় ভিন্ন স্থানের জমির কয়েক মালিক এলএ অফিসে যোগাযোগ করে। সেটি জানতে পেরে মূল মালিকদের কাছ থেকে খরিদা মালিক শফিউল্লাহ অধিগ্রহণ সংশ্লিষ্ট টাকা বিতরণ বন্ধ রাখতে সকল সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সিনিয়র সহকারি জজ সদর আদালতে নিষেধাজ্ঞার আবেদনে অপর-২৫১/২০১৯ মামলা করলে মামলায় বিজ্ঞ সহকারি জজ স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে নির্দেশনা দেন। সেই মতে এলএ অফিস অধিগ্রহণ শাখার গ্রুপ-৪ এর ২০১৯ সালের ৯ অক্টোবর ৪৩/২০১৯ নম্বর প্রসেস মূলে উক্ত তপশীলের অধিগ্রহণকৃত জমির ক্ষতিপূরণের চেক ইস্যু স্থগিত রাখেন। কিন্তু অধিগ্রহণ কার্যক্রম সচল রাখতে বাংলাদেশ পুলিশ, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন হেডকোয়ার্টারের ২০১৮ সালের ৯ মে পিবিআই/ভূ.অধি./৭৬-২০১৮/৩৩১০ স্বারক মূলে জমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত কার্যক্রম চালাতে অনাপত্তি দেন পৈত্রিক দালিকদের একজন দিদারুল আজম চৌধুরী।

অভিযোগে আরো বলা হয়, অধিগ্রহণকৃত জমিতে আর এস ৮০০৪/৮৯৬৩, ৮০০৪/৮৯৬৪, ৮০০৪/৮৯৬৫ দাগাদির তুলনামূলক বিএস খতিয়ান বা দাগের কোন জমি পড়েনি। এরপরও অধিগ্রহণকৃত জমিতে স্থানীয় চদ্রিমা বহুমুখী সমিতি, পয়:ম্যানোফেকসারিং প্লান্ট ও জিনাত রেহেনা, টিপু সুলতান, গোলাম মওলা, এডভোকেট মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, এম কে এম শামিমুর রহমান, এডভোকেট মুহাম্মদ নুরুল হক, মো. ইদ্রিস সি.আই.পি, বেলায়েত হোসেন ও ফেরদৌস আক্তার পাপড়ীর পক্ষে স্থানীয় চন্দ্রিমা বহুমুখী সমবায় সমিতির নামীয় একটি দলিলের উপর ভিত্তি করে সৃজিত ১৩৩৬৫ নম্বর খতিয়ানে অধিগ্রহণকৃত জমি রয়েছে এমন ভূল তথ্য উপস্থাপনে ২০১৯ সালের ৪ ডিসেম্বর ১১ কোটি, ২০২০ সালের ২৫ মার্চ ৮৪ লাখ টাকা এবং লকডাউন চলাকালীন ৭ এপ্রিল ৩ কোটি টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়েছে।

ইতোমধ্যে ১১ কোটি টাকা অভিযুক্ত ৯ জনের নামে ক্যাশ হলেও বাকি চেক প্রসেসিং পর্যায়ে রয়েছে। অধিগ্রহণের মোট টাকা ২৯ কোটি ৮৪ লাখ থেকে প্রদেয় টাকার চেক ছাড়াও বাকি ১৫ কোটি টাকার চেকও লকডাউন সময়ে হস্তান্তর করার উদ্যোগ চুড়ান্ত হওয়ার খবর পেয়েছেন অভিযোগকারিরা। এমনটি দাবি করে তারা বলেন, লকডাউন স্বাভাবিক হলেই টাকা ক্যাশ করার পথে হাটছেন সংশ্লিষ্টরা। একাধিক অভিযোগ থাকার পরও কিভাবে সরকারি বিপুল পরিমাণ টাকা ছাড় দেয়া হয়েছে তা বোধগম্য নয়। এটা জেনেই সরকারি টাকা এবং নিজেদের হক রক্ষায় দুদক, ভূমি মন্ত্রী, সচিব ও ডিসি বরাবর আবেদন দেয়া হয় বলে উল্লেখ করেন তারা।

অভিযোগের কপি হাতে পেয়েছেন জানিয়ে, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন বলেন, করোনার সময়ে কোন চেক হস্তান্তর হয়নি। আর কাগজপত্র যাছাই করে সত্যতা না পেলে টাকা ছাড় দেয়ার কথা নয়। এরপরও অভিযোগ যখন এসেছে তা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত অভিযুক্ত জমির টাকা ছাড় বিষয়ে বাকি কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। অফিস স্বাভাবিক ভাবে খুললে দু’পক্ষকে এ নিয়ে বসানো হবে। ###

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম