1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
চট্টগ্রামে করোনার নমুনা পরীক্ষা বৃদ্ধি করতে হবে : আবুল হাসেম বক্কর - দৈনিক শ্যামল বাংলা
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ১১:০০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
সৈয়দপুরে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ বদলে গেছে লালমনিরহাটের তিন বিঘা করিডোর ও দহগ্রাম-আঙ্গরপোতা ছিটমহল চৌদ্দগ্রাম প্রেসক্লাবের উদ্যোগে ৩ দিন ব্যাপী বার্ষিক আনন্দ ভ্রমণ সম্পন্ন চৌদ্দগ্রামে শুভ সংঘের উদ্যোগে অস্বচ্ছল নারীদের সেলাই প্রশিক্ষণের উদ্বোধন ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চললে কেউ অপরাধ করতে পারে না নবীগঞ্জে ঠাকু অনুকূল চন্দ্রের জন্মোৎসবে এসপিআর কালী চরন মন্ডল Pilot video game in Kenya ঠাকুরগাঁওয়ের বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈমুর রহমানের ইন্তেকাল ! সুবর্ণজয়ন্তী রোভার মুটে কুবি রোভার স্কাউটদের অংশগ্রহণ ঠাকুরগাঁওয়ে ২৫০কোটি টাকা ঋণের বোঝা ও শতকোটি লোকসান নিয়ে দীর্ঘদিন চালু ছিল চিনিকল দেশসেরা ক্যাডেট ইনসেন্টিভ এওয়ার্ড পেলেন কুবি বিএনসিসির সিইউও সাদী

চট্টগ্রামে করোনার নমুনা পরীক্ষা বৃদ্ধি করতে হবে : আবুল হাসেম বক্কর

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ৩ মে, ২০২০
  • ১২৪ বার

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি :
চট্টগ্রাম জেলায় প্রতিদিনি যে হারে করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে তা পর্যাপ্ত না জানিয়ে নমুনা পরীক্ষা বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর। তিনি বলেন, চট্টগ্রামে প্রতিদিন গড়ে একশ থেকে দুই জনের নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। এতে প্রায় ৩-৫ জনের করোনা পজেটিভ হিসাবে শনাক্ত হচ্ছে। কিন্তু বেশির ভাগই মানুষ নমুনা পরীক্ষা থেকে বাদ যাচ্ছে। যাদের অনেকে করোনা সংক্রমণ হলেও তা নিজে বুঝতে পারছে না। যখন কোন উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে বা নমুনা পরীক্ষা করতে যায় তখন নানা ধরণের হয়রানি ও হেনস্থার শিকার হতে হচ্ছে। নমুনা পরীক্ষা দিলেও পরীক্ষার ফলাফল আসতে যে সময় লাগে, সে সময়ে আক্রান্ত ব্যক্তির দ্বারা আরো অনেকে অঅক্রান্ত হচ্ছে। তাই চট্টগ্রাম জেলার জনসংখ্যার অনুপাতে করোনা নমুনা পরীক্ষা আরো বাড়াতে হবে।

তিনি রোববার (৩ মে ) দুপুরে নগরীর এনায়েত বাজার বাটালী রোডের নিজ বাসভবন থেকে ৩নং পাঁচলাইশ, ৪ নং চান্দগাঁও ওয়ার্ডে লকডাউনে কর্মহীন অসহায় মানুষের জন্য বিএনপির নেতৃবৃন্দের কাছে ত্রাণ সামগ্রী হস্তান্তরকালে এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, দেশের প্রায় সর্বস্তরে করোনার সামাজিক সংক্রমণ শুরু হলেও অধিকাংশ রোগীর কন্ট্রাক ট্রেসিং করা হচ্ছে না। প্রতিদিন স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে নতুন রোগীর যে হিসাব দেয়া হয়, সেখানে ফলোআপ রোগীরা যুক্ত কিনা তা স্পষ্ট করা হয় না। প্রয়োজনীয় লোকবলের অভাবে সন্দেহজনক রোগীরা ফোন করে ১০ দিন অপেক্ষা করেও নমুনা দিতে পারছে না। ১৪ দিনের জায়গায় ১৭ দিন হাসপাতালে থেকেও নমুনা পরীক্ষা করাতে পারছে না অনেকেই। এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে সরকার পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে। আওয়ামীলীগ সারা বছর দেশে উন্নয়নের ফুলঝুড়ি ছড়ালেও, করোনা এ পরিস্থিতিতে মানুষ বুঝে গেছে এতদিনের উন্নয়নের যে বুলি ছড়িয়ে তা মিথ্যা ও বানোয়াট। স্বাস্থ্য খাত সরকার দলীয় ক্যাডারদের হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য খাত নিয়ে সরকারের পাশাপাশি ত্রাণ তৎপরতা নিয়েও আওয়ামী লীগ মিথ্যাচার করছে। তাদের ত্রাণ চাল ডাল নেতাদের বসত ঘরে পাওয়া গেলেও অসহায় মানুষ মানুষ পাচ্ছে না। বিএনপি ক্ষমতায় না থাকলেও জনগণেল প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে করোনাকালীন এ দূর্যোগের শুরু থেকে জনগণকে সচেতন করা, খাদ্য ও আর্থিক সহায়তা দিয়ে আসছে। যতদিন এ পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হয়, সারাদেশের ন্যায় চট্টগ্রাম মহানগরীতেও ত্রাণ কার্যক্রম অব্যাত থাকবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক মো. ইদ্রিস আলী, ৩নং পাঁচলাইশ ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি হাজী ইলিয়াস, সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আবু, ৪ নং চান্দগাঁও ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মো. ইলিয়াস, সাধারণ সম্পাদক মাসুদুল কবির রানা প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম