1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
করোনার দ্বিতীয় ধাক্কার শঙ্কাঃ [ ভারতে ১৮ দিনেই আক্রান্ত ২ লাখ; ব্রাজিলে মৃত্যু ৫০ হাজার ছাড়াল; হজ বাতিলকারী দেশের সংখ্যা বাড়ছে; লক্ষাধিক আক্রান্ত কানাডায়_] - দৈনিক শ্যামল বাংলা
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:২৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:

করোনার দ্বিতীয় ধাক্কার শঙ্কাঃ [ ভারতে ১৮ দিনেই আক্রান্ত ২ লাখ; ব্রাজিলে মৃত্যু ৫০ হাজার ছাড়াল; হজ বাতিলকারী দেশের সংখ্যা বাড়ছে; লক্ষাধিক আক্রান্ত কানাডায়_]

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২২ জুন, ২০২০
  • ১৮১ বার

মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার |
বিশ্বের অনেক দেশে লকডাউন তুলে নেয়া হয়েছে এবং বিধিনিষেধও শিথিল করা হয়েছে। এ লকডাউন শিথিলের পর অর্থনীতিতে গতিশীলতা ফিরলেও তৈরি হয়েছে দ্বিতীয় তরঙ্গের শঙ্কা। করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গ আরো ভয়ঙ্কর হতে পারে। এমতাবস্থায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করতে হলে লকডাউন পদ্ধতি এখনো বহাল রাখতে হবে বলে জানিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদ্রোস অ্যাধানম ঘেব্রেয়েসাস।
ব্রিটেনে করোনাভাইরাস মহামারীর দ্বিতীয় পর্যায় আসার সম্ভাবনা নিয়ে ড. টিল্ডসলে বলেন, ভাইরাস এখনো চারপাশে রয়েছে এবং এটি এ বছরের শুরুর চেয়ে কম মারাত্মক বা সংক্রামক হয়ে যায়নি। তাই মহামারীর দ্বিতীয় পর্যায় আসার সম্ভাবনা স্পষ্ট। এ পর্যন্ত ব্রিটেনের মাত্র ৫ শতাংশ মানুষ সংক্রমিত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। আর তারা যে আবার এ ভাইরাসে আক্রান্ত হবেন না তারও কোনো নিশ্চয়তাও নেই। যদি বিধিনিষেধগুলো উল্লেখযোগ্যভাবে শিথিল করা হয় তবে আমরা হয়তো আগস্টের শেষের দিকে বা সেপ্টেম্বরের শুরুতে দ্বিতীয় পর্যায় দেখব। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে শুরু করলে আবার লকডাউনে যেতে হবে।
লন্ডনের হাইজিন অ্যান্ড ট্রপিক্যাল মেডিসিনের ডা: অ্যাডাম কুচারস্কি বলেন, ‘বেশির ভাগ মানুষ এখনো সংক্রমণের ঝুঁকির মধ্যে আছে। সংক্ষেপে বলতে গেলে আমরা সব বিধিনিষেধ তুলে নিলে ফেব্রুয়ারিতে যেখানে ছিলাম সেখানে ফিরে যাবো। নিয়ন্ত্রণ বজায় না রেখে বিধিনিষেধ শিথিল করা হলে যুক্তরাজ্য এবং প্রতিবেশী দেশগুলোতে হঠাৎ প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাবে। স্থানীয়ভাবে ভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার ঘটনা দেখা দিতে পারে যে কোনো সময়।’
দ্বিতীয় পর্যায়ে আক্রান্তের সংখ্যা এখনো প্রথমবারের চেয়ে বেশি হতে পারে। নটিংহ্যাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইরোলজিস্ট অধ্যাপক জোনাথন বল বলেন, ‘দ্বিতীয় পর্যায় প্রায় অনিবার্য, বিশেষ করে যখন আমরা শীতের মাসগুলোতে যাবো। ছয় মাসের বেশি সময় ধরে চলা মহামারীতে নতুন এ করোনাভাইরাসের শক্তি কমেছে- এমন কোনো প্রমাণ এখনো মেলেনি।’ খবর এনডিটিভি, আনন্দবাজার, সিএনবিসি, দ্য হিন্দু, রয়টার্স, সিবিসি, আনাদোলু, বিবিসি, সানডে টাইমস, রয়টার্স, এপি, ব্লুমবার্গ, এএফপি, ভয়েস অব আমেরিকা, সিএনএন ও ওয়ার্ল্ডোমিটারসের।
করোনা থেকে শিক্ষা নিতে বললেন থানবার্গ : সুইডিশ জলবায়ু আন্দোলনের কর্মী গ্রেটা থানবার্গ বলেছেন, বিশ্বের উচিত করোনাভাইরাস পরিস্থিতি থেকে শিক্ষা নেয়া এবং একইরকমের তাগিদ নিয়ে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত পরিস্থিতি মোকাবেলা করা। করোনা মহামারী থেকে একটি ইতিবাচক বিষয় বেরিয়ে এসেছে বলে মনে করেন থানবার্গ। আর তা হলো, আন্তর্জাতিক সঙ্কট কিভাবে মোকাবেলা করতে হবে তার শিক্ষা পাওয়া গেছে।
স্বাভাবিক জীবনে ফিরছে সৌদি আরব : করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব নিয়ন্ত্রণে রাখতে তিন মাস ধরে লকডাউনে থাকার পর সারা দেশ থেকে কারফিউ তুলে নিয়ে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ফের সচল করেছে সৌদি আরব। সব ধরনের বাণিজ্যিক ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেয়া হয়েছে। ফলে আগের মতোই ২৪ ঘণ্টা নিজ শহরে চলাচল কিংবা এক অঞ্চল বা শহর থেকে অন্য অঞ্চল বা শহরে যাতায়াতে আর কোনো বাধা থাকবে না। তবে ধর্মীয় পবিত্র স্থানে গমন, আন্তর্জাতিক ভ্রমণ ও সামাজিকভাবে ৫০ জনের বেশি একত্র হওয়ার ওপর বিধিনিষেধ বহাল থাকছে। তবে কার্যক্রম পরিচালনা ও চলাচলে কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে। কোনো ধরনের জমায়েত ও ভিড় করা যাবে না। ঘর থেকে বের হলে মাস্ক পরিধান করে থাকতে হবে এবং অন্যের সাথে দুই মিটার দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। প্রতিটি সেক্টরে যেসব নিরাপত্তা প্রটোকল ঘোষণা করা হয়েছে, তা মেনে চলতে হবে। করোনাভাইরাসের প্রকোপের কারণে চলতি বছর হজ পালিত হবে কি না এ ব্যাপারে আগামী সপ্তাহে সিদ্ধান্ত জানাবে সৌদি আরব। পরবর্তী ঘোষণার আগ পর্যন্ত বিদেশীদের ওমরাহ পালনের সুযোগ স্থগিত রেখেছে দেশটি।
ব্রাজিলে মৃতের সংখ্যা ৫০ হাজার ছাড়াল : করোনাভাইরাস মহামারীতে মৃত্যুপুরী হয়ে ওঠা ব্রাজিলে মোট প্রাণহানির সংখ্যা ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে। সংক্রমণ শুরুর মাত্র চার মাসের মধ্যেই এত বিপুল সংখ্যক লোকের প্রাণ কাড়ল ভাইরাসটি। ব্রাজিলে এ পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ৫০ হাজার ৫৮ জন। আক্রান্ত হয়েছেন ১০ লাখ ৭০ হাজার ১৩৯ জন। আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যায় বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে লাতিন আমেরিকার দেশটি। ব্রাজিলে এ পর্যন্ত ৫ লাখ ৪৩ হাজার ১৮৬ জন করোনারোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন।
ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণা দলের ছয় কর্মী আক্রান্ত : ওকলাহোমা রাজ্যের তুলসা শহরে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণা দলে যোগ দেয়া ছয়জন কর্মী করোনা পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন বলে তার প্রচরণা দলের যোগাযোগ পরিচালক টিম মাটুরাগ এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন। করোনা আক্রান্তের ভয়ে বেশি লোকসমাগম হয়নি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী জনসসভায়। আগামী নভেম্বরে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য মহামারীর মধ্যেই ওকলাহোমার তুলসায় শনিবার নিজের প্রথম নির্বাচনী জনসভার আয়োজন করেছিলেন দ্বিতীয় মেয়াদের প্রত্যাশী ট্রাম্প। গত মার্চে দেশটিতে লকডাউন শুরুর পর এই প্রথম জনসভায় বক্তব্য দিলেন ট্রাম্প। এই জনসভার কারণে কোভিড-১৯ রোগের বিস্তার আরো ছড়িয়ে পড়তে পারে এমন আশঙ্কা করা হচ্ছে।
ভ্যাকসিন আবিষ্কারের ঘোষণা নাইজেরিয়ার : নোভেল করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সফল একটি ভ্যাকসিন আবিষ্কারের ঘোষণা দিয়েছে পশ্চিম আফ্রিকার দেশ নাইজেরিয়া। দেশটির একদল বিজ্ঞানী কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন আবিষ্কারের ঘোষণা দিয়েছেন। দেশটির কোভিড-১৯ রিসার্চ গ্রুপের প্রধান ডা: ওলাদিপো কোলাওল বলেছেন, এ ধরনের বৈশ্বিক মহামারীর সমাধান প্রদানকারী হতে পারাটা আমাদের জন্য আবেগের। আমাদের দলের তৈরিকৃত করোনার ভ্যাকসিনটি এখন বাস্তবতা। ভ্যাকসিনটির লক্ষ্য আফ্রিকানরা; তবে অন্যান্য জাতিগোষ্ঠীর জন্যও এটা কাজ করবে। এটা দৃঢ় প্রচেষ্টার ফল। অনেক বৈজ্ঞানিক প্রচেষ্টায় এটি তৈরি হয়েছে।
কানাডায় আক্রান্ত লাখ ছাড়াল : অন্য দেশগুলোর চেয়ে কানাডায় সংক্রমণ কিছুটা কম হলে তা অব্যাহত আছে। সবশেষ শনাক্ত রোগীতে লাখ পেরোনো দেশের তালিকায় উঠল কানাডার নাম। কানাডায় প্রথম কোনো কোভিড-১৯ পজিটিভ রোগী মারা যায় ৯ মার্চে। আর ২৮ এপ্রিল দেশটিতে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৫০ হাজার ছাড়ায়। আর ২০ জুন দেশটিতে করোনায় সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা ১ লাখ ২২০ জন। আক্রান্তদের মধ্যে ৮ হাজার ৩০০ জন মারা গেছেন। তবে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়েছেন ৬২ হাজারের বেশি মানুষ। কানাডায় প্রতি মিলিয়ন মানুষের মধ্যে আক্রান্তের হার ২২০ জনের বেশি। করোনায় মৃত্যুর হারে শীর্ষে থাকা দেশগুলোর তালিকায় কানাডার অবস্থান ১১তম। কানাডায় দেশজুড়ে করোনারোগী শনাক্ত হলেও মূলত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ওন্টারিও এবং কুইবেক রাজ্যে। দেশটির মোট শনাক্ত রোগীর ৮৭ শতাংশই শনাক্ত হয়েছে এ দুই রাজ্যে।
করোনা টেস্ট কমানোর নির্দেশ দিয়েছেন ট্রাম্প : নমুনা পরীক্ষা বেশি বেশি হওয়ার কারণেই যুক্তরাষ্ট্রে অনেক বেশি রোগী পাওয়া যাচ্ছে বলে আবারো দাবি করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার মতে, করোনা টেস্ট হচ্ছে অনেকটা দু’ধারী তলোয়ারের মতো, এর কারণেই তার দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেশি মনে হচ্ছে। শনিবার ওকলাহোমার টুলসা শহরে নির্বাচনী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ সময় সমর্থকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘যখন এত বেশি পরীক্ষা করা হবে, তখন অনেক বেশি রোগী শনাক্ত হবে। এ কারণে আমার লোকদের বলেছি, পরীক্ষা কমিয়ে দিতে। চীন ও ইউরোপ ভ্রমণকারীদের প্রবেশ বন্ধ করে দেয়ায় তার সিদ্ধান্তের কারণে যুক্তরাষ্ট্রে হাজার হাজার মানুষের প্রাণরক্ষা হয়েছে।’
শিশুদের শরীরে করোনার উপসর্গ মূলত জ্বর : ৯০ দিনের কম বয়সী শিশুদের শরীরে করোনার ইতিবাচক সাড়া পাওয়া গেলেও উপসর্গ প্রায় নেই। থাকলেও তা খুবই মৃদু। পেডিয়াট্রিকস জার্নালে যে তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে যে সদ্যোজাত বাচ্চাদের ক্ষেত্রে প্রাথমিক উপসর্গ খুবই মৃদু। অনেক সময় উপসর্গ হিসেবে জ্বর দেখা যায় সদ্যোজাতদের শরীরে। শ্বাসযন্ত্রে কোনোরকম সমস্যা দেখা যায়নি এখন পর্যন্ত। সেই কারণে শিশুদের শরীরে গুরুতর প্রকাশ পায়নি কোভিড-১৯, এমনটাই জানিয়েছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নর্থওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের জার্নালে প্রকাশিত গবেষণা নিবন্ধের অন্যতম লেখিকা লিনা মিথাল।
সিঙ্গাপুরে করোনায় মোট আক্রান্ত ৪১,৮৩৩ : সিঙ্গাপুরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২০ জুন আরো ৭৬৫ জন সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন। এখন পর্যন্ত বাসায় ফিরেছেন ৩৪,২২৪ জন। সিঙ্গাপুরে নতুন করে ২১৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪১,৮৩৩ জন। শনিবার আক্রান্তদের মধ্যে কোনো সিঙ্গাপুরিয়ান বা পার্মানেন্ট রেসিডেন্স নেই। ২ জন ওয়ার্কপাস হোল্ডার, যারা ডরমেটরির বাইরে বাস করেন। বাকি ২১৬ জন ওয়ার্কপাস হোল্ডার যারা ডরমেটরিতে বাস করেন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সিঙ্গাপুরে এ পর্যন্ত ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।
ব্রিটিশদের জন্যও খুলছে স্পেনের সীমান্ত : কোয়ারেন্টিন শর্ত ছাড়াই ব্রিটিশদের জন্য নিজেদের সীমান্ত খুলে দিয়েছে স্পেন। রোববার থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়। ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা শেনঝেনভুক্ত অঞ্চলের বাকি অংশের মতো ব্রিটিশ দর্শকদের স্পেনে প্রবেশের অনুমতি দেয়ার ব্যাপারে জানান স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অর্চনা গঞ্জালেস লায়া। তিনি বলেন, ব্রিটিশ ভ্রমণকারীরা অন্যান্য ইউরোপীয় পর্যটকদের মতোই একই ‘ট্রিপল চেক’ এর আওতায় থাকবেন, যার মাধ্যমে তাদের অরিজিক চেক করা ছাড়াও তাদের তাপমাত্রা পরিমাপ গ্রহণ করা হবে। এ ছাড়া তারা যদি ট্রেসিংয়ের প্রয়োজন মনে করে তাহলে তাদের সব তথ্য জানাতে হবে।
হজ বাতিলকারী দেশের সংখ্যা বাড়ছে : করোনাভাইরাসের প্রকোপের কারণে চলতি বছর হজ পালিত হবে কি না তা নিয়ে সৌদি সরকারের সিদ্ধান্তহীনতার মধ্যেই হজ বাতিলকারী দেশের সংখ্যা বাড়ছে। এ পর্যন্ত বিভিন্ন দেশের হজযাত্রীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, তারা এ বছর হজপালন করতে যাবেন না। সিঙ্গাপুর সর্বপ্রথম হজ স্থগিতের ঘোষণা দেয়। এরপর ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, ভারত, ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, কম্বোডিয়া, সেনেগাল ও ব্রুনাই এই দলে যোগ দেয়। মিসর, মরক্কো, তুরস্ক, পাকিস্তান, নাইজেরিয়া, লেবানন ও বুলগেরিয়া বলেছেÑ এখনো তারা রিয়াদের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছে। ফ্রান্সের মুসলিম ধর্মীয় নেতারা করোনা ঝুঁকির কারণে এ বছর হজ বাতিলের অনুরোধ জানিয়েছেন।
চীনা বিজ্ঞানীদের গবেষণায় বাড়ল দুশ্চিন্তা : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আগেই সতর্ক করে বলেছিল, ভাইরাসের সংক্রমণ কাটিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তির শরীরে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ ক্ষমতা (অ্যান্টিবডি) তৈরি হবে, এমন কোনো প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে না। করোনার বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি তৈরি হলেও তা কত দিন পর্যন্ত সক্রিয় থাকবে, সে বিষয়ে এত দিন নিশ্চিত ছিলেন না বিজ্ঞানীরা। এবার বিজ্ঞানবিষয়ক সাময়িকী ‘ন্যাচার’-এ একদল চীনা বিজ্ঞানীর একটি সমীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে বিজ্ঞানীরা বলেছেন, করোনার বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি বড়জোর দুই থেকে ছয় মাস পর্যন্ত প্রতিরোধ গড়তে সক্ষম। উপসর্গহীন করোনা আক্রান্তদের অ্যান্টিবডি সাধারণ উপসর্গযুক্ত রোগীদের তুলনায় অনেকটা দুর্বল হয়। করোনা সংক্রমণ কাটিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠার ১২ মাসের মধ্যেই ৭৫ শতাংশ আক্রান্তের অ্যান্টিবডির প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস পায়।
ভারতে ১৮ দিনেই আক্রান্ত ২ লাখ : ভারতে করোনারোগীর সংখ্যা প্রথম দুই লাখে পৌঁছাতে সময় লেগেছিল ১২৫ দিন, সেখানে পরের দুই লাখ পেরিয়েছে মাত্র ১৮ দিনে। দেশটিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যাÑ ১১০ দিনে শূন্য থেকে ১ লাখ, ১৫ দিনে এক থেকে ২ লাখ, ১০ দিনে দুই থেকে ৩ লাখ, ৮ দিনে ৩ থেকে ৪ লাখ। গত ৩৩ দিনে দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তিন লাখ মানুষ। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ৯১৫ জন, প্রাণ হারিয়েছেন ৩০৭ জন। এ পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা ১৩ হাজার ২৭৭ জন। নমুনা পরীক্ষায় পজিটিভ ৪ লাখ ১১ হাজার মানুষ। সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ২৮ হাজারের বেশি মানুষ। দেশটিতে করোনার হটস্পট মহারাষ্ট্র, গুজরাট, তামিলনাড়– ও দিল্লি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম