রবিবার, ১৩ Jun ২০২১, ০৭:৩৮ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
সড়ক ও বিদ্যুৎ এর দায় কে নেবে? সড়কের মাঝখানে খুঁটি রেখেই চলছে সংস্কার শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষ্যে চবি প্রাক্তন ছাত্রলীগ ঐক্যের দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে আমৃত্যু সংগ্রাম করেছেন বীর চট্টলার সাহসী কন্যা কবরী -শোক সভায় এম এ সালাম কল্পনা চাকমার অপহরণ বাংলাদেশ রাষ্ট্রের চরম লজ্জ্বার’ কোম্পানীগঞ্জে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বাদলের উপর হালার প্রতিবাদে ৪৮ ঘন্টার অবরোধ অবশেষে গাইবান্ধা সদর থানার ওসির বদলি শরণখোলায় সাউথখালী ইউনিয়নের মানুষের চরম দুর্ভোগে কাটে বছরের অর্ধেক সময় কোভিড পরবর্তী সস্তা শ্রমের কারণে শিশুশ্রম বাড়তে পারে মাগুরার শ্রীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত-৩ আনোয়ারায় পুকুরে ডুবে দুই দিনে দুই শিশুর মৃত্যু

মানবিক মেয়র মিজানুর রহমান মিজান একজন জনপ্রিয় নেতা ও একটি ইতিহাস

মানবিক মেয়র হিসাবে খ্যাত চৌদ্দগ্রাম পৌর মেয়র মিজানুর রহমান মিজান মানবিকতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্হাপন করেছেন। চৌদ্দগ্রাম পৌর অভিভাবক মোঃ মিজানুর রহমান মিজান, যিনি ছোটবেলা থেকেই সমাজসেবার সাথে সম্পৃক্ত,কর্ম দিয়ে মানুষের আস্থা ও ভালোবাসা অর্জন করেছেন। জনন্দিত মেয়র মিজানুর রহমান মিজান কে সাধারণ মানুষ ‘মানবিক মেয়র’ উপাধীতে ভূষিত করেছেন। করোনা কালীন সময় তিনি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পৌর জনসাধারণের সর্বাত্নক পাশে ছিলেন। ত্রাণ বিতরণ, করোনার উপসর্গ দেখা মিললে ডঃ এনে পরীক্ষা করা, করোনা সচেতনতা মাইকিংসহ অনেক উপযোগী পদক্ষেপ নিয়েছিলেন। যখন সবাই করোনা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য নিজ ঘরে অবস্থান করেছিলেন। আর তখন তিনি বাহিরে নাগরিকদের সেবা দিতে ব্যস্ত ছিলেন। মানবিক মেয়র মিজানুর রহমান মিজান নিজে করোনায় আক্রান্ত হলেন। মেয়র মিজানুর রহমান মিজান আধুনিক চৌদ্দগ্রাম পৌরসভা নির্মানের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। চৌদ্দগ্রাম পৌরসভা দুর্দান্ত গতি উন্নয়ন কাজ চলছে। মেয়রের সাম্প্রতিক মাদক নিমূল পদক্ষেপ জন্য তিনি ব্যপক প্রশংসিত হয়েছেন। চৌদ্দগ্রাম পৌরসভা সীমান্তবর্তী হওয়ায় অনেক যুবক মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। মেয়র মাদকের বিরুদ্ধে কঠিন চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেন এবং তিনি সফল হোন।

মিজানুর মিজানুর রহমান মিজানের রাজনীতি হাতেগড়ি পরিবার থেকে তার পিতা আবু রশীদ চেয়ারম্যান চৌদ্দগ্রাম সদর ৭নং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন। এবং পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি। আবু রশীদ চেয়ারম্যান সৎ,জনপ্রতিনিধি ছিলেন, নিজের জমি বিক্রিয় করে রাজনীতি করতেন। মিজানুর রহমান মিজান ছাত্রজীবনে তুখোড় ছাত্র নেতা ছিলেন। মেয়ের মিজানুর রহমান মিজান প্রথম নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন ২০০৩ সাথে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে। বিএনপি-জামাত সরকার আমলে তিনি বিশাল ব্যবধানে জয় লাভ করেন ৭নং সদর ইউনিয়ন থেকে। তৎকালীন সময় বিরোধী দলে থেকে তিনি নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করেন। ২০১০ সালে চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার প্রথম মেয়র হিসাবে মিজানুর রহমান মিজান নির্বাচিত হন, ২০১৫ সালে তিনি আবার পূর্ণরায় নির্বাচিত হন। মিজানুর রহমান মিজান আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা তিনি অর্জন করছেন,সাধারণ মানুষ পাশে থেকে,মানুষের জন্য কাজ করে, তিনি একসময় সকালে ঘুম থেকে উঠে গ্রামের পর গ্রাম হেঁটে হেঁটে ঘুরতেন গ্রামের মানুষের সাথে দেখা করার জন্য। এইভাবে তিনি মানুষের ভালোবাসা অর্জন করেন। মিজানুর রহমান মিজানের বিশেষ একটি গুন তরুণদের কাছে তিনি বেশ জনপ্রিয়। তার দক্ষতা,বিচক্ষণতা, সাহস৷ প্রজ্ঞ, এবং পরিশ্রমের জন্য তিনি আজ শুধু পৌরসভা নয়,চৌদ্দগ্রাম উপজেলার জনপ্রিয় এবং প্রভাবশালী নেতা হিসাবে স্বীকৃত। দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে তিনি গ্রহণযোগ্য ব্যাক্তি। মেয়র মিজানুর রহমান মিজান অসাধারণ বক্তব্য দিয়ে থাকেন, বাচনভঙ্গি চমৎকার, এবং তিনি খুবই লজিক্যাল কথা বলেন। তিনি যুক্তরাজ্য, ভারত, আরব আমিরাতসহ আরো অনেক দেশে সরকারি সফর করেন এবং নগর বিষয়ক প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন। মিজানুর রহমান মিজান কুমিল্লা জেলার,চৌদ্দগ্রাম উপজেলার গোমারবাড়ি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

লেখক: সাংবাদিক এবং মানবাধিকার কর্মী।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
Design & Developed BY TechPeon.Com