করোনায় পরিবারের স্বচ্চলতা ফিরাতে ঢাকায় শ্রমিকের কাজ,বিদ্যুৎপৃষ্টে লাশ হয়ে ফিরলেন ভোলার কলেজ ছাত্র রাজিব।

মনিরুজ্জামান,ভোলা :

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কলেজ ছাত্র রাজিব। লালমোহন উপজেলার বদরপুর এলাকার বাসিন্দা। করোনা পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কৃষক বাবাকে আর্থিক সহযোগিতার জন্য ঢাকায় নির্মাণ শ্রমিকের কাজ নেন। মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল) সকালে নিজ কর্মস্থলে বিদ্রুৎপৃষ্ট হয়ে মারাতœক আহত হয়। সহকর্মিরা সাথে সাথে তাকে উদ্ধার করে সোহরাওয়র্দী হাসাপাতালে নিয়ে যান। রাতে হাসপাতালে মারা যান নুরনবী মহাবিদ্যালয়ের মেধাবি ছাত্র রাজিব। বুধবার দুপুরে হাসপাতাল থেকে লাশ গ্রহণ করে ভোলার লালমোহন উপজেলার বদরপুর ইউনিয়নে নিয়ে আসেন স্বজনরা। রাতে লাশ বাড়িতে আনলে হ্রুদয়বিধারক পরিবেশ সৃষ্টি হয়।আজ ২২ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সকালে রাজিব কে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।
এলাকাবাসি ও রাজিবের সহপাঠী নাইম জানান বদরপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের বারন্দি বাড়ির কৃষক ইউসুফ এর ছেলে রাজিব। বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন শিক্ষ প্রতিষ্ঠান বন্ধ। অভারের সংসারে বাবাকে আর্থিকভাবে সহযোগিতার জন্য নানা চিন্তা করেন। সামাজিক লজ্জা ও এলাকায় কাজ কম থাকায় ঢাকায় চলে যান। শুরু করে নির্মাণ শ্রমিকের কাজ।দিনগুলো চলছিল বেশ ভালোই। ঘটনার দিন কর্মস্থলে রড উপরে উঠাতে গিয়ে বিদ্যুৎপৃষ্টে আহত হয় রাজিব। সহকর্মীরা উদ্বার করে হাসপাতালে আনলে ওই দিন বিকালেই মারা যান।আনুষ্ঠানিকতা শেষে বুধবার স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়।প্রিয় বাবা-মায়ের কাছে চলে আসেন রাজির।তবে জীবিত নয়,কফিনে করে।৫ ভাই ১বোনের মধ্যে রাজিব তৃতীয়।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.