রবিবার, ১৩ Jun ২০২১, ০৯:০৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
সড়ক ও বিদ্যুৎ এর দায় কে নেবে? সড়কের মাঝখানে খুঁটি রেখেই চলছে সংস্কার শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষ্যে চবি প্রাক্তন ছাত্রলীগ ঐক্যের দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে আমৃত্যু সংগ্রাম করেছেন বীর চট্টলার সাহসী কন্যা কবরী -শোক সভায় এম এ সালাম কল্পনা চাকমার অপহরণ বাংলাদেশ রাষ্ট্রের চরম লজ্জ্বার’ কোম্পানীগঞ্জে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বাদলের উপর হালার প্রতিবাদে ৪৮ ঘন্টার অবরোধ অবশেষে গাইবান্ধা সদর থানার ওসির বদলি শরণখোলায় সাউথখালী ইউনিয়নের মানুষের চরম দুর্ভোগে কাটে বছরের অর্ধেক সময় কোভিড পরবর্তী সস্তা শ্রমের কারণে শিশুশ্রম বাড়তে পারে মাগুরার শ্রীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত-৩ আনোয়ারায় পুকুরে ডুবে দুই দিনে দুই শিশুর মৃত্যু

খুটাখালীতে দোকান ঘরে হামলার ঘটনায় থানায় মামলা, নারী-শিশুকে মিথ্যা আসামী করে হয়রানির অভিযোগ

চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীতে দোকানঘর দখল নিতে পরিকল্পিতভাবে হামলা করে সত্য ঘটনা ধামাচাপা দিতে মিথ্যে মামলা দায়ের করে হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে।

গত ১৫ এপ্রিল সংগঠিত ঘটনায় ভুক্তভোগী উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের পুর্বপাড়ার বাসিন্দা মৃত কবির আহমদ প্রকাশ ঠান্ডা মিয়া চেয়ারম্যান পুত্র ব্যবসায়ী কামাল উদ্দীন চকরিয়া থানায় দায়েরকৃত মিথ্যা হয়রানি মামলা থেকে অব্যাহতি ও ঘটনার ন্যায় বিচার দাবি করেন।

ব্যবসায়ী কামালের অভিযোগ, দীর্ঘদিন থেকে ইউনিয়নের নয়াপাড়ার বাসিন্দা হাজী মতিউর রহমানের পুত্র আবদুচ ছালামের সাথে বাজারস্থ দোকানঘরের জমাজমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে।

এরই জেরে গত ১৫ এপ্রিল বিকেলে আবদুচ ছালাম ও তাঁর লোকজন পরিকল্পনা অনুযায়ী ধারালো দেশীয় অস্ত্র নিয়ে দোকানঘর দখল নিতে হামলা চালায়। হামলার সময় তারা সেখানে ব্যাপক ভাঙচুর করেন। তাদের বাঁধা দিতে গেলে হামলাকারীদের আঘাতে ব্যবসায়ী কামাল উদ্দীনসহ ৬ জনকে আহত করা হয়।

আহতরা হলেন তামিন হোছাইন (১৪), ছৈয়দুল আমিন (২৪), আকিব (২০), মহি উদ্দীন (১৭) ও ছরওয়ার উদ্দীন (৬০)।

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী কামাল উদ্দীন জানায়, খুটাখালী বাজারে আরকান সড়কের পশ্চিম পাশে নিজ মালিকানাধিন আরএস দাগ নং১৩৫৯, বিএস খতিয়ান নং২২৮বিএস ২২০১ দাগের উপর স্থিত ৪ টি সেমিপাকা দোকান ঘরের মালিক তিনি।

দীর্ঘদিন ধরে সেখানে দোকান ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান করা হলেও স্থানীয় বাজারের (টুল) কারবারী হিসেবে পরিচিত আবদুচ ছালাম দোকান ঘরের মালিকানা দাবি করেন।

তিনি একাধিকবার দোকানঘর দখলের পাঁয়তারা করে এবং সর্বশেষ গত বৃহষ্পতিবার বিকেলে ১০/১৫ জনকে নিয়ে দোকানটি দখলের চেষ্টা চালায়।
এ সময় ৬ জনকে পিটিয়ে আহত করা হয়।
আহতদের চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ হামলার ঘটনায় গত ১৮ এপ্রিল আবদুচ ছালাম বাদী হয়ে ব্যবসায়ী কামাল উদ্দীনকে প্রধান করে অপ্রাপ্ত বয়স্ক শিশুসহ ১১ জনকে আসামি করে থানায় একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।

কিন্তু হামলার মূল ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে এবং কামাল গংকে হয়রানি করতে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন আবদুচ ছালাম।

সাজানো এ মিথ্যা মামলায় ভুক্তভোগী পরিবারের আহত ব্যক্তিরাসহ নারী পুরুুষ ১১ জনকে আসামি করা হয়।

আর মিথ্যা এ মামলায় পুলিশের যোগসাজসে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারে পবিত্র রমজান মাসে তল্লাসির নামে নারী-শিশুদের পুলিশি হয়রানির অভিযোগ উঠেছে।

মূলত মূল ঘটনাটি ধামাচাপা দিতেই ব্যবসায়ী কামালের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও হয়রানির মামলা করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী পরিবারের বিরুদ্ধে করা হয়রানির মামলা প্রত্যাহার ও দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে কক্সবাজার পুলিশ সুপারের সুদৃষ্টি কামনা করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
Design & Developed BY TechPeon.Com