প্রতি পক্ষকে ফাঁসাতে নিজ জ্যাঠাতো ভাইকে জবাই করে হত্যা আহত বাদীর হাসপাতালে মৃত্যু

বিশেষ প্রতিবেদক ঃ

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার নোহালীর চরে প্রতি পক্ষকে ফাঁসাতে নিজ জ্যাঠাতো ভাইকে জবাই করে হত্যা করেছেন। ঘটনাটি ঘটিয়েছে গংগাচড়া নোহালী ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের নোহালীরচরের আনন্দ বাজার আশ্রায়ন এলাকায়। ৬এপ্রিল মঙ্গলবার দুপুর আনুমানিক ১টার দিকে আনন্দ বাজার থেকে নিজ বাড়ী ফেরার সময় এলাকাবাসী বলেন,

এলাকাবাসী জানান খুন হওয়া ব্যাক্তি মোঃ রেয়াজুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে প্যারালাইসিস অবস্থায় দীর্গ ৩বছর ধরে বিছানায় পরে আছেন। সাইফুল মেম্বার (সাবেক)’র জ্যাটাতো ভাই আজিজুল মেম্বারকে হত্যা চেস্টার মামলা থেকে বাছতে এবং আজিজুল মেম্বারকে খুনের আসামী বানিয়ে এলাকা ছাড়া করতে নিজের মুমূর্ষু ভাইকে গলা কেটে হত্যা করে নিজের বাহিনী দিয়ে বাড়ীঘর ভাংচুর করে তচনচ করে দিয়ে। আজিজুল মেম্বারকে ফাঁসানোর চেস্টায়

নোহালী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের (চরবাগডহরা) ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ আজিজুল ইসলামকে প্রতিপক্ষ সাইফুল মেম্বার আরো ৪০/৫০ জন লোক নিয়ে মমিন আলীর বাড়ীর সামনে মেম্বার আজিজুল ইসলামের উপর হামলা চালিয়ে বল্লম খাপর দিয়ে হানাহানি করে এমতাবস্থায় তাকে বাচাতে কয়েকজন এগিয়ে আসলে তাদের মর্ধ্যে আরো ৪জনকে গুরুতর আহত করা হয়। আহতদের আসংকাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান প্রতক্ষদর্সিরা। আহতরা হচ্ছে মোঃ বেলাল হোসেন (৪৮) মোঃ হেলাল (৪৫) মোঃ কালাম (৩৫) আমেনা(শিল্পী) ১৮

হত্যার বিষয় জানতে আজিজুল মেম্বারের ছেলের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন আমার বাবার উপর হত্যার উদ্দেশ্যে হামলার কথা শুনে ৯৯৯ ফোন দিলে পুলিশের লোকজন আসার কথা শুনে সাইফুল মেম্বার তার ভাইকে হত্যা করে আমাদেরকে ফাঁসীর আসামী বানাতে। এ ঘটনার বিষয়টি জানতে ৯৯৯ এ পাঠানো গংগাচড়া মডেল থানার এস আই মনোয়ারুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমরা এসে একটি লাশ পেয়েছি পরবর্তিতে তদন্ত করে জানানো হবে। এখনও পর্যন্ত লাশের পার্শ্বে অবস্থান করছি।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সাইফুল মেম্বারের হামলায় আহত আজিজুল মেম্বার রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরে হাসপাতালে মৃত্যু বরন করেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.