সোমবার, ১৪ Jun ২০২১, ০১:৫৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
বিএফইউজে-ডিইউজে বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃবৃন্দ গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা রক্ষায় বিচার বিভাগের নিরপেক্ষ ভূমিকা জরুরি আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলে পুলিশের ধাওয়ায় এক নারী শ্রমিকের মৃত্যু তিতাস তাকওয়া ফাউন্ডেশনের সভাপতি শাহজালাল, সম্পাদক ফারুক ও সাংগঠনিক সজীব থানায় সাধারণ ডায়েরি বা মামলা গ্রহণ করেনি মাগুরায় ১৭ জন নতুন করোনা রোগী শনাক্ত! জেলা শহরে ও মহম্মদপুরে লকডাউন ঘোষনা উত্তরা আধুনিক মেডিকেলে ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারিদের ইনজেকটিং ড্রাগ্সের রমরমা ব্যবসা স্বাস্থ্যবিধি মেনে কুবিতে সশরীরে পরীক্ষা শুরু খুটাখালীতে ইজিবাইক উল্টে গৃহবধুর মৃত্যু রংপুরে ঘাঘট নদীতে দুই ভাইবোনের মৃত্যু বাঁচতে চায় কাজল রেখা, কিন্তু পরিবারের সাধ্য নেই

শেরপুরের নকলা ডাকবাংলোর সরকারি গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ কেয়ারটেকারের বিরোদ্ধে

হারুনুর রশিদ শেরপুর প্রতিনিধি:

শেরপুরের নকলায় ডাংক বাংলোর সরকারি গাছ রাতের আধারে কেটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ওই ডাকবাংলোর কেয়ারটেকার নূর হোসেনের বিরুদ্ধে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুর রহমানের হস্তক্ষেপে ভোররাতে চুরি হওয়া ওই গাছের টুকরা ফেরত নিয়ে আসেন বলে জানা গেছে।

স্থানীয়সূত্রে জানাযায়, বেশ কিছুদিন আগে ঝড়ে ডাক বাংলোর পিছনে থাকা আনুমানিক ১৫/২০ বছরের পুরোনো একটি মূল্যবান একাশি গাছ পড়ে যায়।কেয়ারটেকার নূর হোসেন শনিবার দিবাগত রাত অনুমান সারে ১০টার দিকে একাশি গাছটি কেটে ভ্যান গাড়ী যোগে সবার অগোচরে ওই গাছের ৪টি টুকরা নিয়ে যায়। বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে ওই গাছের অবশিষ্ট ৩টি টুকরা আর নিতে পারেনি। সংবাদ পেয়ে রাতেই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং কেয়ারটেকার নূরহোসেনকে সকালের মধ্যে নিয়ে যাওয়া গাছের টৃকরাগুলো হাজির করার নির্দেশনা প্রদান করেন।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ বোরহান উদ্দিন জানান, এটা সরকারি গাছ এবং জায়গাটা জেলা পরিষদের নিয়ন্ত্রনাধীন। সরকারি নিয়মনীতি উপেক্ষা করে গাছটি কাটা হয়েছে এবং রাতের আধারে পুরো গাছটি সরানোর চেষ্ঠা করেছিল।আমি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে বিষয়টি জানিয়েছি। তদন্ত স্বাপেক্ষে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুর রহমান বলেন, গাছের যে টুকরাগুলো নেওয়া হয়েছিল সেগুলো ফেরত নিয়ে আসা হয়েছে। কেন সে এমন কাজ করেছে তার কাছে লিখিত জবাব চাওয়া হয়েছে।
জেলা পরিষদ সদস্য সানোয়ার হোসেন বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।এমন লোকদের ছাড় দেওয়া হবে না।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
Design & Developed BY TechPeon.Com