সোমবার, ২১ Jun ২০২১, ১২:০০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
জুলাই থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ২০ হাজার টাকা মৌলভীবাজার জেলা সদর উপজেলা ১২ নং গিয়াসনগর ইউনিয়ন নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সৈয়দ গৌছুল হোসেন জনপ্রিয়তায় এগিয়ে। ভোলায় প্রধানমন্ত্রীর ঘর পেলেন ৩৭১ ভূমিহীন পরিবার নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে ৬০০ পিচ ইয়াবা সহ আটক ২ নজরপুর ইউনিয়নে জনমত জরিপে এগিয়ে যুবলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম জহির মুজিববর্ষের উপহার : ভূমিসহ ঘর পেলো হাটহাজারীর ২৬ পরিবার একাধিক হত্যা মামলার আসামী সোমেদ আলী গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব ১১ নরসিংদী মডেল থানার অভিযানে শীর্ষ সন্ত্রাসী সুজন সাহা আটক আক্রান্তের নয়া রেকর্ড আনােয়ারায় ২৫ গৃহহীন পরিবার পেল প্রধানমন্ত্রী’র ঘর উপহার

সাভারে বেগুনী পাতার ধান চাষে ব্যাপক সাড়া পেয়েছে

বিশেষ প্রতিবেদকঃ

দেশের কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের রেকর্ড সংখ্যক কৃষি খাতে জমি থাকলেও এবার সাধারণ কৃষকদের ব্যাপক সাড়া মিলেছে নতুন প্রজাতির ধান চাষাবাদে। সাভার উপজেলায় বেগুনী পাতার ধান চাষে ব্যাপক সাড়া পেয়েছেন কৃষকরা।

ধানগাছগুলো দেখতে জনসমাগম! বেশ জমেছে তাদেরকে আকৃষ্ট করেছে এ ধরনের নতুন প্রজাতির ধানে। সোনালি ধানের দেশে বিষয়টি একটু হোঁচট খাওয়ারই মতো। তবে ঘটনা সত্যি বলতে হচ্ছে প্রতিদিনই কেউ না কেউ কাউসারের ক্ষেতে আসেন ধানের গাছ দেখতে। সবুজে মোড়া ক্ষেতের মধ্যে হঠাৎ বেগুনি প্রজাতির ধানগাছ দৃষ্টি কেরেছে কৃষক সহ সাধারণ মানুষের প্রতিদিন এভাবেই দেখতে আসেন অসংখ্য মানুষ ।

নতুন প্রজাতির বেগুনী পাতার ধান চাষ করেছেন আশুলিয়ার পাথালিয়া ইউনিয়নের মাদারটেক গ্রামের কৃষক মোঃ কাউসার আলম।

প্রথমবারের মতো চাষ করেছেন তিনি বেগুনী পাতার ধান। এতে করে ব্যাপক সাড়া পড়েছে স্থানীয় কৃষকদের মাঝে। কাউসার আলম দৈনিক শ্যামল বাংলার বিশেষ প্রতিবেদক মোহাম্মদ নুর আলম সিদ্দিকী মানু’কে বলেন, যদি ফলন ভালো হয় তবে আগামীতে আরো বেশি জমিতে এই ধানের চাষ করবেন বলে তিনি আশাবাদী। পাথালিয়া ইউনিয়নের মাদারটেক গ্রামে নিজ বাড়ীর পাশে প্রায় দুই বিঘা জামিতে বেগুনি ধান চাষ করেছেন কৃষক কাউসার আলম ।

কাউসার আলমের বাড়ীর পাশে দেখা যায়, চারপাশে সবুজ ধানের সমারোহে বেগুনির পাশাখেলা। মাঝখানে বেগুনি রঙ্গের পাতার ধান ক্ষেত দেখতেও নজর কারারমত দৃশ্য। যে কারো নজরে প্রথম দর্শনে ধান ভাবতে অবাক লাগারমত দৃশ্য। চারিদিকে বিস্তৃত সবুজ ধান ক্ষেতের মধ্যে বেগুনী রঙের ধান গাছ দেখে অনেকে অবাকও হচ্ছেন বটে।

কাউসার আলম বলেন, আমি প্রথমে ফেইসবুকের মাধ্যমে বেগুনী রংয়ের ধান চাষ করতে দেখে মুগ্ধ হই, পরে বেগুনী রংয়ের ধানের প্রতি আগ্রহ জাগে। সেই আলোকে কুমিল্লার এক কৃষি কর্মকর্তার মাধ্যমে এ জাতের বীজ সংগ্রহ করেই এই ধান চাষ শুরু করেছি।

ধানের গায়ের রং সোনালি ও চালের রং বেগুনি। উফশী জাতের এ ধানে রোগবালাই ও পোকামাকড়ের আক্রমণ অনেকটাই কম হওয়ায় খরচও কম ফলনও বেশী । রোপণের শুরু থেকে ধান পাকতে সময় লাগে ১২০-১২৫ দিন। অন্য জাতের ধানের চেয়ে এ ধানের গোছা প্রতি কুশির পরিমাণ বেশি থাকায় একর প্রতি ফলনও বেশ ভালো হয়। একর প্রতি ফলন ৫৫ থেকে ৬০ মণ হয়ে থাকে এ জাতের ধানে। অন্য সব ধানের তুলনায় এ ধান মোটা, তবে পুষ্টিগুণ অনেক বেশি । এ চালের ভাত খেতেও অনেক সুস্বাদু।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
Design & Developed BY TechPeon.Com