বৃহস্পতিবার, ১৭ Jun ২০২১, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
হত্যাকান্ডের ৯ দিন পর খুনিকে গ্রেপ্তার করেছে র্্যাব মাগুরা শ্রীপুরের জনপ্রিয় শিক্ষক আমিরুজ্জামান সেলিমের ইন্তেকাল বাকলিয়ার সন্ত্রাসী এয়াকুবসহ চিহ্নিত অস্ত্রধারীদের গ্রেফতার দাবি চট্টগ্রামে বায়েজিদ লিংক রোডে ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে পাহাড়ের বসতিদের উচ্ছেদ অভিযান শুরু পরীমণিকে ধর্ষণচেষ্টায় নাসির উদ্দিন গ্রেফতার রাউজানের গণি পাড়ার মেয়ে কিংবদন্তি শাবানার গ্রামের বাড়িতে বছরে পর বছর ঝুলছে তালা র‌্যাব ক্যাম্পের অভিযান : দুই মাদক কারবারি আটক সদ্য নবনির্বাচিত দিনাজপুর চেম্বারের রেজা হুমায়ুন ফারুক চৌধুরী (শামীম) পরিষদের বিজয়ীদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানালো পরিবেশক সমিতি দিনাজপুর কোম্পানীগঞ্জে সিএনজি ধর্মঘটের ঘোষণা পৌর মেয়র কাদের মির্জা’র চট্টগ্রামের বাকলিয়ার এয়াকুব আলী বাহিনীর চিহ্নিত অস্ত্রধারীদের অস্ত্র উদ্ধারের দাবিতে সাংবাদিক সম্মেলন

দোষি বাস ড্রাইভারকে গ্রেফতার ও ক্ষতি পূরনের দাবিতে মানববন্দন

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাড়া নৈরাজ্যের প্রতিবাদ করায় বিআরটিসি ড্রাইভার কতৃক বাস চাপয় পঙ্গুত্ব বরনকারী দিন মজুর সাইফুর রহমানের মামলা দ্রুত তদন্ত ও দোষি বাস ড্রাইভারকে গ্রেফতার এবং ক্ষতি পূরনের দাবিতে ২৪ মে রবিবার বিকাল ৪ টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে ভুক্তভোগির পরিবারের মনববন্দনে যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সামসুদ্দীন চৌধুরী এই দাবি যানান । তিনি আরো বলেন প্রয়োজনে আমরা হাই কোডে রিট করবো
পঙ্গু সাইফুরের সংসার চাকা থেমে গেছে বিআরটিসি’র বাসচাপায় দিনমজুর সাইফুর রহমান ধারণা করতে পারেননি তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে তাকে সারাজীবনের জন্য পঙ্গুত্ব বরণ করতে হবে। তিনি ভাবতেও পারেননি সামান্য কথা কাটাকাটির কারণে হেলপার তাকে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে সড়কে ফেলে দেবে। পায়ের উপর চাকা তুলে দেবে চালক। কিন্তু ঘটনা তা-ই হলো। দুই মেয়ে এক ছেলে নিয়ে বেশ ভালই চলছিলো সাইফুরের সংসার। অভাব অনটন তেমন ছিলো না। কে বা জানতো আধা ঘন্টা বিআরটিসি বাসে চড়তে গিয়ে থেমে যাবে তার জীবন জীবিকার চাকা। ছেলে মেয়ে থাকবে অনাহারে অর্ধাহারে। চোখের সামনে শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে একটি পা। পঙ্গু অবস্থায় পড়ে থাকতে হবে হাসপাতালের বিছানায়। নগরীর মাঝিরঘাটে দৈনিক বেতনের ভিত্তিতে মজুরের কাজ করতেন সাইফুর রহমান। রাউজান পৌরসভার বাসিন্দা সাইফুর পরিবারের সদস্যদের নিয়ে থাকেন কুঞ্জছায়া আবাসিক এলাকায় ভাড়া বাসায়।

সাইফুরের ছেলে মোহাম্মদ ইব্রাহিম জানান, গত ১ এপ্রিল টেক্সটাইল মোড় থেকে বিআরটিসি বাসে উঠেন তার বাবা। নিয়ম অনুযায়ী যাত্রীদের কাছ থেকে ৬০ শতাংশ ভাড়া নেয়ার কথা। কিন্তু বাসের হেলপার যাত্রীদের কাছে শত ভাগ ভাড়া আদায় করছিলেন। ভাড়ার বিষয় নিয়ে তার এক যাত্রী ও তার বাবার সাথে হেলপারের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তার বাবাকে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে সড়কে ফেলে দেন। এ সময় তার বাবার ডান পায়ের ওপর দিয়ে বাসের চাকা তুলে দেয় চালক। প্রথমে তার বাবাবে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে ঢাকার শেরে বাংলা জাতীয় ইনস্টিটিউট হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। চিকিৎসকরা অনেক চেষ্টা করেও তার বাবার ডান পা রক্ষা করতে পারেনি। গত কয়েকদিন আগে পা কেটে ফেলা হয়।

ইব্রাহিম বলেন, তার বাবা মাঝিরঘাটে দৈনিক মজুরের কাজ করতো। আর্থিক টানাপোড়েনে তাদের সংসার চলে। এক পা হারিয়ে তিনি এখন হাসপাতালে বেডে পড়ে আছেন। ব্যয় বহুল চিকিৎসার খরচ চালাতে তাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে।
ইব্রাহিম বলেন, ঘটনার পর পর বিআরটিসির হেলপার ও চালককে পুলিশ থানায় নিয়ে যায়। দুজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। ইতিমধ্যে চালক ও হেলপার জামিনে বের হয়ে গেছেন। বিআরটিসি কর্তৃপক্ষের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তারা কোন সাড়া দেয়নি।

এ ব্যাপারে গত ২ এপ্রিল কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা দায়ের দায়ের করেন আহত সাইফুর রহমানের স্ত্রী হাসিনা বেগম (৪০)। মামলার এজাহারে হাসিনা বেগম বলেন, তিনি একজন গৃহিনী। গত ১ এপ্রিল সকাল সাড়ে সাতটার সময় সাইফুল রহমান কদমতলী যাবার উদ্দেশ্যে বায়েজিদ টেক্সটাইল মোড় থেকে বিআরটিসির একটি যাত্রীবাহী বাসে (ঢাকামেট্রো-ব-১১-৫৫১৭) উঠেন। সকাল আটটার সময় বাসটি কোতোয়ালি থানার টাইগার পাস পুলিশবক্সের কাছে পৌঁছলে বাসের ভেতরে বাড়তি ভাড়া নিয়ে একজন যাত্রীর সাথে বাসের হেলপার আলাউদ্দিনের তর্ক হয়। তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে ওই যাত্রীকে হেলপার আলাউদ্দিন মারধর করে। পাশে থাকা সাইফুর রহমান (৫৫) মারধর না করতে নিষেধ করতে গেলে হেলাপার আলাউদ্দিন আরো ক্ষিপ্ত হয়ে সাইফুর রহমানকেও মারধর করে। এক পর্যায়ে বাসের দরজা থেকে ধাক্কা মারলে সাইফুর চলন্ত গাড়ি থেকে সড়কে ছিটকে পড়ে। এ সময় চলন্ত বাসের পেছনের চাকা সাইফুরের এক পায়ের উপর চাপা দিয়ে যায়।

ঘটনার পর পর স্থানীয় লোকজন সাইফুরকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) নিয়ে যায়। বাস চালক হাটহাজারীর ফতেপুরের মোহাম্মদ শাহজাহানের ছেলে সুমন (৪০) ও হেলপার মহেশখালীর শাপলাপুরের মাহাবুল মিয়ার ছেলে আলা উদ্দিনের ছেলেকে লোকজন ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

হাসিনা জানান, খবর পেয়ে তিনি চমেক হাসপাতালে ছুটে যান। সেখানে গিয়ে চিকিৎসকের কাছে তিনি জানতে পারেন, তার স্বামীর তলপেটের মাংস শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন ও কোমরের ডান পাশের হাড় বেঙ্গে গেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
Design & Developed BY TechPeon.Com