রবিবার, ১৩ Jun ২০২১, ০৭:৪১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
সড়ক ও বিদ্যুৎ এর দায় কে নেবে? সড়কের মাঝখানে খুঁটি রেখেই চলছে সংস্কার শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষ্যে চবি প্রাক্তন ছাত্রলীগ ঐক্যের দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে আমৃত্যু সংগ্রাম করেছেন বীর চট্টলার সাহসী কন্যা কবরী -শোক সভায় এম এ সালাম কল্পনা চাকমার অপহরণ বাংলাদেশ রাষ্ট্রের চরম লজ্জ্বার’ কোম্পানীগঞ্জে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বাদলের উপর হালার প্রতিবাদে ৪৮ ঘন্টার অবরোধ অবশেষে গাইবান্ধা সদর থানার ওসির বদলি শরণখোলায় সাউথখালী ইউনিয়নের মানুষের চরম দুর্ভোগে কাটে বছরের অর্ধেক সময় কোভিড পরবর্তী সস্তা শ্রমের কারণে শিশুশ্রম বাড়তে পারে মাগুরার শ্রীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত-৩ আনোয়ারায় পুকুরে ডুবে দুই দিনে দুই শিশুর মৃত্যু

নরসিংদীর বটতলা রেলভূমি ভূমিদস্যুদের দখলে

নরসিংদী জেলার স্টেশন রোড বটতলা রেল ভূমি এখন ভূমিদস্যুদের দখলে নিয়ে যাচ্ছে, একটি অনুসন্ধান থেকে জানা যায় যে নরসিংদী এবং মদনগঞ্জের রেল যোগাযোগ বন্ধ হওয়ার পর এই ভূমিদস্যুরা বেপরোয়া হয়ে পড়ে এবং রেলের জমি নিজেদের দখলে নেওয়ার জন্য নানা ফন্দি-ফিকির করে, কেউ পেশির জোরে, অর্থের জোর কেউ বংশের জোর দেখিয়ে এ রেল ভূমি নিজেদের দখলে নিতে থাকে, এমনকি রেলের ভূমির এক অংশ দখল করে নিজেরা অর্থের বিনিময় দোকানদারদের কাছে বিক্রি করে,কারো কাছ থেকে এক লক্ষ কারো কাছ থেকে দুই লাখ টাকা পর্যন্ত এই রেল ভূমির পজিশন তাদের কাছে বিক্রি করে, যা রেল আইনে বহির্ভূত নরসিংদী রেল স্টেশন বটতলা বর্তমানে যা বাজার এলাকা নামে পরিচিত এলাকায় রয়েছে একাধিক ভূমিদস্যু তাদের মধ্যে থেকে জনাব বাবু চৌধুরী, জনাব শফিকুল ইসলাম চৌধুরী, শহীদুজ্জামান চৌধুরী তারা রেলের মৎস লিজ এনে বাণিজ্যিকভাবে মার্কেট করে পজিশন বিক্রি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে, বিশেষ করে শহীদুজ্জামান চৌধুরী ০৭/০৮/২০১৯ তারিখ শহীদুজ্জামান চৌধুরী রেলের জলাশয় ভূমি মৎস্যলিজ আনেন। এই মৎস্যলিজ আনার সময় এই শহীদ চৌধুরীকে চুক্তিনামায় কয়েকটি শর্ত দেওয়া হয় এই চুক্তির মধ্যে ৩ নাম্বারে লেখা মৎস্য ছাড়া অন্যকোন কাজে আমি ইহা ব্যাবহার করতে পারবোনা,৪ নাম্বারে লেখা ছিল আমি আমরা মৎস্যচাষ মৎস্য শিকার ছাড়া অন্য কোন কাজে যেমন বসবাসের নির্মিত কোনো ঘরবাড়ি অথবা কাঁচাপাকা নিমাদি করা বাগান করা পুকুর খাল খনন করা রাস্তাঘাট মসজিদ মন্দির শ্মশান কবরস্থান অথবা অন্য কোন কাজের জন্য নির্মাণ অথবা এ জাতীয় অন্য কোন কাজে ব্যবহার করব না কারো দ্বারা ব্যবহার করাব না।

৭ সাত নাম্বারে লেখা ছিল রেললাইনের বাঁধের পাদদেশে হতে দশ ফুটের ভিতরে মৎস্য চাষের জন্য মৎস্য শিকারের কাজে আমি আমরা প্রবেশ করতে পারবো না অথবা তথা হতে কোন মাটি অপসারণ করতে পারবো না বা কোন প্রকার পরিবর্তন করতে পারব না। এরকম এক হইতে দশটি শর্ত দিয়ে তাকে অস্থায়ীভাবে লিজ দেওয়া হয় যেকোনো সময় রেলমন্ত্রনালয় এটি তার কাছ থেকে নিতে পারবে। এই লিজে শর্ত দেওয়া আইন অমান্য করে তার পেশিশক্তি খাটিয়ে রেল মন্ত্রণালয়ের এমনকি রুডসেন হাইওয়ে রাস্তা কে ঘেঁষে পিলার দিয়ে দোকান নির্মাণ করে ১ থেকে ২ লক্ষ টাকায় দোকান বরাদ্দ দিচ্ছে। যা রেলমন্ত্রনালয় আইনের অবৈধ এবং লিজের পরিপন্থী শুধু তাই নয় তারা পেশিশক্তি এবং লাঠি এবং অর্থের জোরে সমস্ত অবৈধ কাজ তারা প্রকাশ্যে করে যাচ্ছে আইন প্রশাসন যেন তাদের কাছে দুর্বল হয়ে রয়েছে এই দিকে এই বিষয়টিকে কেন্দ্র করে রেলমন্ত্রনালয় একটি মামলা করেছে তার বিরুদ্ধে কিন্তু এই মামলাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়েছে তারা মার্কেট ,দোকান নির্মাণ করে যাচ্ছে অবৈধভাবে মৎস্য লিজের জায়গার মধ্যে। গত ২০/০৪/২০২১ মো: ইকবাল মাহমুদ কানুনগো বিভাগীয় ভূ সম্পত্তি অফিস বাংলাদেশ রেলওয়ে ঢাকা রেলমন্ত্রনালয় অফিসার ইনচার্জ নরসিংদী সদর মডেল থানা নরসিংদী বরাবর একটি এফ আই আর কপি পেরন করেন, যাহার অনুলিপি সদয় অবগতির জন্য প্রেরণ করা হয় ১/ বিভাগীয় রেলওয়ে ব্যবস্থাপক বাংলাদেশ রেলওয়ে ঢাকা ২/ বিভাগীয় ভূ সম্পত্তি কর্মকর্তা বাংলাদেশ রেলওয়ে ঢাকা ৩/ বিভাগীয় প্রকৌশলী ২ বাংলাদেশ রেলওয়ে ঢাকা ৪/ কমান্ড্যান্ট আরএনবি বাংলাদেশ রেলওয়ে ঢাকাকে সদয় অবগতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ৫/ অফিসার ইনচার্জ ভৈরব রেলওয়ে থানাকে সদয় অবগতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য এ সমস্ত নোটিশ পাঠানোর পরও তারা বহাল তবিয়তে রয়ে গেছে কোন আইন প্রশাসনের তদারকি দেখা যায়নি। এই ভূমিদস্যুরা দিন দিনকে আরো রেলের ভূমি দখল করে তারা বাণিজ্যিকভাবে এই দোকানপাট নির্মাণ করে দোকান পজিশন বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে এই বিষয়টি নিয়ে শহীদুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি। বিস্তারিত দ্বিতীয় সংখ্যায় প্রকাশ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
Design & Developed BY TechPeon.Com