1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
উত্তর আধুনিকতার স্বরূপ __ মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার - দৈনিক শ্যামল বাংলা
বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:০৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
নবীগঞ্জে মহিলালীগের উদ্যােগে প্রধানমন্ত্রীর ৭৫ তম জন্মদিনে কেক কাটলেন এমপি মিলাদ গাজী নবীগঞ্জ উপজেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষ্যে ১৯ হাজার করোনা টিকা প্রদান শেখ হাসিনার জন্ম না হলে বাংলাদেশ উন্নয়নের মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেত না : নজরুল ইসলাম এমপি নবীগঞ্জে সুষ্টভাবে শারদীয় দুর্গাপুজা পালনে থানা পুলিশের বিশেষ আইন শৃংখলা সভা অনুষ্টিত মাগুরার শ্রীপুরে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের উদ্যোগে প্রধান মন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন পালন প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবলীগের খাবার বিতরণ ও দোয়া মাহফিল নাঙ্গলকোটের বাঙ্গড্ডা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন পালিত রাঙ্গুনিয়া কলেজে ছাত্রলীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন চট্টগ্রাম চন্দনাইশে প্রধানমন্ত্রীর জন্ম দিবস উপলক্ষে যুবলীগের র‍্যালি চট্টগ্রাম চন্দনাইশে জ্বর ও নিউমোনিয়ার প্রাদুভার্ব

উত্তর আধুনিকতার স্বরূপ __ মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার

মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২২ আগস্ট, ২০২১
  • ৩২ বার

বিষয়টি খানকটা পুরোনো।তবে বোধকরি আলোচনার বাইরে নয়। মার্কিণ যুক্তরাষ্ট্রে টুইন টাওয়ার ধ্বংসের পর নানা আলোচনা স্থান করে নিয়েছিল। মার্কিণ প্রশাসণ থেকে এ হামলাকে কথিত আল কায়দার বলা হলেও বাস্তবে এ নিয়ে উত্থাপিত প্রশ্নের ফয়সালা হয়নি । অবস্থা যাইহোক আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের মদদদাতা ইহুদি লবির প্ররোচণায় বিশ্ব জুড়ে মুসলিম নিধনের একটি মোক্ষম যুক্তি হাতে নিয়ে যে যাত্রা তারা শুরু করেছিল বোধকরি আধুনিকতাউত্তর ভাবনার শুরু সেখান থেকে। কিন্তু কেন ? এখন যখন বিশ্ব করোনা আক্রান্ত তখন বলা হচ্ছে, বিশ্ব প্রতি একশ বছর পর পর কোন না কোন ভাবে মহামারিতে পড়েছে ।সেই সূত্র অনুযায়ি করোনাও এর আওতাভুক্ত । এই পরিক্রমণ শবছর জুড়েই হয় কেন বা এর পিছনে অন্য কোন কারণ রয়েছে কিনা অবশ্যই গবেষকরা এনিয়ে ভাববেন এবং আশ্বস্থ করবেন ।যে যাই বলুক কথা এটাই সত্যি যে বিশ্ব আজ আক্রান্ত । এটি উত্তর আধুনিকতার একটি রূপ।করোনার সতর্কীকরণে যা যা বলা হয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, দূরত্ব বজায় রাখা ।অর্থাৎ মেলমেশায় সতর্ক হওয়া ।আধুনিকতার বিরূপ প্রভাবে গত শবছরে আমাদের মেলামেশা কোন পর্যায়ে উপনীত হয়েছে তা বোধকরি নতুন করে বলাার অপেক্ষা রখেনা । নানা আবদারে মূলত আমরা ঘর ভেঙ্গেছি পরিবার ভেঙ্গেছি সমাজ ভেঙ্গেছি । এমনকি স্ত্রীর উপর স্মামীর কর্তৃত্বও ভেঙ্গে দিয়েছি । এক অস্বাভাবিক অনিয়ন্ত্রিত ব্যক্তি স্বাধীনতা মূলত বিপন্ন করে তুলেছে সভ্যতার মূল চালিকাশক্তিকে ।কার্যত এ হচ্ছে এক স্ব বিরোধিতা।আমরা মানুষের স্বাধীনতা মর্যাদার কথা বলছি তাদের সম্মাণকে তুলে ধরার চেষ্টা করছি তথচ সেই মানুষের মধ্যে বিভাজণ তৈরি করছি বর্ণবাদ উস্কে দিচ্ছি । সেই মানুষকে অসত্যবাদী ভাবছি ।আর এসবই করা হয়েছে এবং হচ্ছে একটি বিশেষ মহলের প্রচ্ছন্ন ইংগিতে এবং সহায়তায় ।

গত একশ বছরে বিজ্ঞান প্রযুক্তির অভাবনীয় উন্নতি হয়েছে ।অবস্থা এমন দাড়িয়েছে এখন আর নতুন কিছু আবিস্কারের চেয়ে সংযোজন করে পরিবর্তিত রূপ দেয়াই যথেষ্ট বলে বিবেচিত হয়েছে ।একসময় যে গণতন্ত্রকে মানুষের মুক্তির সবচেয়ে সহজতর এবং কম ঝুঁকিপূর্ণ মাধ্যম বলে বিবেচনা করা হোত সেই গণতন্ত্রর ফতানী করতে গিয়ে বিশ্বজুড়ে কি কঠিন বাস্তবতার সৃষ্টি হয়েছে তা বোধকরি এখন আর লিখে বোঝাবার দরকার নেই । একশ বছরে বিভিন্ন পণ্য রফতানীর কথা হয়েছে ।বিশ্ব কোন না কোনভাবে পরাশক্তির বলয়ভুক্ত হয়েছে ।আমাদের খাদ্য পোষাক দৃষ্টিভঙ্গি অনেকটাই বেধে দিয়েছে কর্পোরেট বিশ্ব ।পছন্দ হোক বা নাহোক অনেকেই সেটা মেনে নিয়েছে বা নিতে হয়েছে ।এরা আমাদের চিন্তার জগতকেও বেধে ফেলার চেষ্টা করেছে।অর্থ দিয়ে লোভ সৃষ্টি করে এমন এক বাস্তবতা সৃষ্টির চেষ্টা করে আসছে যে বিশ্বের যেকোন দেশেই যেন চিন্তার বিষয়বস্তু অভিন্ন হয় । সে কারণে তার বিশ্বজুড়ে সন্ত্রাসবাদের সবক দিচ্ছে, এটি দমনে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে । দালাল তৈরি করছে ।এসবই উত্তর আধুনিকতার বিস্তৃত প্লাটফর্ম। তারা ছাড় দেয়নি দিচ্ছে না ইসলামের মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সঃ)কেও । ইতিহাসের একজন সাধারণ শিক্ষার্থীরও একথা জানা যে একটি বর্বর অসংস্কৃত জাতিকে কিভাবে কত শ্রমের বিনিময়ে এমনকি জীবনের ঝুঁকি নিয়েও সভ্যতার আলোতে নিয়ে এসেছিলেন তিনি । শুধু মানুষ নয় সকল সৃষ্টির জন্য বাস্তবায়িত করেগেছেন এক মহান আদর্শ । কথিক উত্তর আধুনিকতায় বিষফলে দেখাগেল প্রায় বিবস্ত্র নারীরা নিরাপদ অথচ লজ্বা সংবরণকারী নারী হ্যানস্তার শিকার । একজন নামাজী লোকের জন্য চাররি নেই। কালো হলে নির্মমতার শিকার হতে হয় – এই যে উত্তর আধুনিকার প্রভাব বোধকরি এখানে স্বস্তির কিছু নেই ।চূড়ান্ত ভোগবাদ মানুষকে এমন এক জায়গায় নিয়ে গেছে যেখানে আত্মস্বার্থ চরিতার্থকরণের নিমিত্তে মানবিক সমস্ত গুণাবলী পরিত্যাগ করতে বিন্দুমাত্র কুণ্ঠাবোধ করছে না দ্বিধান্বিত হচ্ছে না । এর মূল কোথায় ? চিন্তায়।মানুষ কল্যাণের লেবেল আটলেও মূলত ব্যক্তিস্বার্থকে প্রধান্য দেয়ার এই মানব বিধ্বংসী চিন্তা চেতনার মূলৈ রয়েছে নিয়ন্ত্রণহণি জীবন -যাপনের ব্যবস্থাপত্র । সুতরাং করোনা নামক যে মহামরি আমাদের সকল কর্মকান্ডকে স্থবির করে দিয়েছে তা আমাদের অর্জিত ।আমরা চাইলেও এই উত্তর আধুনিকতার বিরূপ প্রতিক্রিয়া রোধ করতে পারছি না ।

সারা বিশ্ব যখন করোনা রোধে এবং করোনার খবর নিয়ে ব্যস্ত তখন বিশ্ববাসীকে নতুনকরে আফগানিস্থানের তালেবানরা জানান দিল তাদের বিজয়ের খবর । ঐ দেশে কি করোনা নেই- নাকি করোনা তালেবানদের ভয় পেয়েছে -জানিনা ।তবে এটা ঠিক যে বিশ্ব এখন করেনার পরিবর্তে অফগানিস্তানের তালেবান প্রসঙ্গ নিয়ে অনেক ব্যস্ত । কেন ? ধরুন সেই আল কয়দার কথাই । অর্থনৈতিকভাবে উন্নত অনেক দেশের নাগরিকরাই সেদিন আল কায়দার অন্তর্ভুক্ত হয়েছিল । পাকিস্তানের কারো কারো বিশ্বসঘাতকতায় হয়ত বিন লাদেনকে হত্যা করা গেছে কিন্তু আফগানিস্তানের বিপ্লবকে রুদ্ধ করা যায়নি ।বোধকরি বিশ্বের রাজনৈতিক ইতিহাসে এটি একটি নতুন সংযোজন হবে ।ফিলিস্তিনীরা লড়াই করছে কতকাল ধরে ।অথচ ইহুদি আগ্রাসণ মুক্ত হতে পারে নি। উলফা একসময় সিআইয়ের পরিচালিত একটি সংগঠন ছিল ।অবশেষে আত্মসমর্পণ করেছে । অথচ আফগানীরা প্রবল পরাক্রমশালী সৈনিকদের মনোস্তাত্বিক পরাস্থ করে বিতারিত করে নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠিত করেছে ।সেই সাথে প্রমান করেছে গণতন্ত্র বা সমাজতন্ত্র কোন কিছুই রফতানীকরা সম্ভব নয় ।কেবলমাত্র আদর্শে দৃঢ় থাকলেই বিজয় অর্জণ সম্ভব। তালেবানদের কথা শুনে ইতোমধ্যেই অনেকে ঘাবড়ে গিয়েছেন এটা তাদের জন্য নতুন কিছু নয় ।হতেপারে খটকা লেগেছে ।অনেক বদভ্যাসে বাধা পড়বে তাই হয়ত নানা আবোল -তাবোল বলছেন বা বকছেন । বৃটিশ উত্তর পাকিস্তান ইসলামিক রিপাবলিক হিসেবে ঘোষিত হয়েছিল ।মূলত এটি নতুন বোতলে পুরোনো মদই ছিল । ইরানে যখন আয়াতুল্লাহ খোমেনীর নেতৃত্বে বিপ্লব সম্পন্ন হোল তখন তো তা ধ্বংস করতে রাতের অন্ধকারে বিশেষ বাহিনী এসেছিল এবং প্রাকৃতিক ধূলিঝড়েই বিশেষ প্রশিক্ষিত এই বাহিনীর সমাধি রচিত হয়েছিল।

আন্তর্জাতিক নানা মহলের উস্কানী নিষেধাজ্ঞা সত্বেও ইরান স্বীয় অবস্থানে যথারীতি ঠিকে আছে। সেই সাথে আন্তর্জাতিক বিশ্বের সাথে তারা যোগাযোগ রক্ষা করে চলছে । এখন এর সাথে যুক্ত হলো বা হতে যাচ্ছে আফগানিস্তান । সেখানে কি ধরনের সরকার হবে তা হয়তো এক্ষুণি বলা যাবে না বা,বলা সঙ্গত ও হবে না । এটুকু বলা যায় পোড় খাওয়া আন্দোলন কষ্টি পাথরে যাচাই করা সোনা সুতরাং মূল লক্ষ থেকে বিচ্যুতি হবার আশঙ্কা কম । করোনার ভয় মৃত্যু ভয় পরাশক্তির ভয় সবকিছু জয় করে আফগানিস্তান যে বিজয় ছিনিয়ে এনেছে তা সংহত করলেই তারা বিশ্বের নতুন অংশীদারে পরিণত হবে । বোধকরি এটাই উত্তর আধুনিকতার পূর্বাভাস । মানুষকে অসৎ ভেবে ব্যাভিচারি বানিয়ে ব্যক্তিস্বার্থে চুড়ান্ত বিকাশ ঘটিয়ে একটি কল্যাণকামী রাষ্ট্র গড়া সম্ভব নয়, বরং মানুষকে মর্যাদা দিয়েই একটি বাসযোগ্য পৃথিবী গড়ে তোলো সম্ভব । এটাই হোক উত্তর আধুনিকতার জয়যাত্রা ।

লেখকঃ নির্বাহী সম্পাদক দৈনিক আপন আলো | সাবেক কাউন্সিলরঃ বিএফইউজে-বাংলাদেশ | সদস্য ডিইউজে |

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম