1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
প্রস্রাবে সেদ্ধ করা ডিম চীনাদের জনপ্রিয় রেসিপি ; কারণ জানলে অবাক হবেন - দৈনিক শ্যামল বাংলা
শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ০১:৫৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
শিক্ষক হেনস্তায় নিন্দা, প্রতিবাদ ও শাস্তির দাবি কুবি শিক্ষক সমিতির তিতাসে সাংবাদিক শামসুদ্দিন আহমেদ সাগরের জন্মদিন পালন মীরসরাইয়ে অপরিকল্পিত রাস্তা নির্মাণের কারণে পানি বন্দি কয়েক হাজার মানুষ মীরসরাইয়ে প্রথমদিনে ৫ ইউনিয়নে টিসিবির পণ্য বিতরণ সাতকানিয়া পৌরসভায় ৫৮ কোটি ৪৩ লাখ টাকার বাজেট ঘোষণা বাবা-মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শা‌য়িত ডাঃ মুমিনুল হক চৌধুরী নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে কাভার্ড ভ্যানের চাপায় নিহত ৫, আহত ৪ সৈয়দপুর পৌরসভার ১৭১ কোটি ২৮ লাখ টাকার বাজেট ঘোষণা করলেন মেয়র রাফিকা আকতার জাহান চন্দনাইশে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আটক-৪ মান্দায় যুবলীগ নেতার ওপর হামলা, গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

প্রস্রাবে সেদ্ধ করা ডিম চীনাদের জনপ্রিয় রেসিপি ; কারণ জানলে অবাক হবেন

এম এ জব্বার।
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২১
  • ১০৪ বার

পৃথিবীর সকল দেশেই ডিম সিদ্ধ খায়। ছোট বড় সকলের প্রিয় খাবার এটি।ডিম সেদ্ধ কে না খেতে ভালবাসে। কিন্তু কখনও শুনেছেন ডিম সেদ্ধ করার জন্য পানির পরিবর্তে প্রস্রাব ব্যবহার করতে!? অবিশ্বাস্য মনে হলেও চীনাদের অন্যতম জনপ্রিয় খাবার এটি। বিশেষ করে বসন্তকালে প্রস্রাবে সেদ্ধ ডিমের চাহিদা বিপুল ভাবে বেড়ে যায়।
প্রস্রাবে সেদ্ধ করা ডিমের এই প্রণালীকে ‘ভার্জিন বয় এগ’ বলে। চিনের জোজিয়াং প্রদেশের ডোংইয়ঙে মূলত এই ‘ভার্ন বয় এগ’ পাওয়া যায়। এখানকার মানুষের কাছে প্রস্রাবে সেদ্ধ ডিম অত্যন্ত প্রিয়। এর সঙ্গে ওই প্রদেশের বিশেষ সাংস্কৃতিক যোগও রয়েছে।

স্থানীয় ভাষায় এই খাবারকে ‘তোংজি ডেন’ বলে। আবার ‘বয় এগ’ নামেও পরিচিত এই খাবার।
কেন ‘ভার্জিন বয় এগ’ নাম দেওয়া হয়েছে এই খাবারের? কেনই বা প্রস্রাবে সেদ্ধ করা হয়? বসন্তের সময় জোজিয়াং প্রদেশে ‘ভার্জিন বয় এগ’-এর বিপুল চাহিদা থাকে। বসন্তকাল এলেই তাই স্কুলের ছেলেদের প্রস্রাব সংগ্রহ করা শুরু হয়ে যায় সেখানে। সেই প্রস্রাবে ডিম ডুবিয়ে রাখা হয়। যেহেতু ডিম সেদ্ধ করতে অবিবাহিত পুরুষদের প্রস্রাব ব্যবহার করা তাই এর নাম ‘ভার্জিন বয় এগ’ বলা হয়।

নিউ ইয়র্ক টাইমস-এর এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রথমে ডিম প্রস্রাবে সেদ্ধ করা হয়। তার পর খোসা ছাড়ানোর পর ফের প্রস্রাবে আবার ফোটানো হয় যাতে ডিম থেকে প্রস্রাবের গন্ধ আসে। স্থানীয়দের দাবি, ‘ভার্জিন বয় এগ’-এর এত চাহিদার কারণ হল, এই খাবার খেলে নাকি শরীরে রক্ত সঞ্চালন ভাল হয় এবং দেহের শক্তি বৃদ্ধি পায়। শুধু তাই নয়, আরও দাবি, এই ডিম খেলে নাকি জ্বর এবং সর্দি ধারেকাছেই ঘেঁষে না।

যুগ যুগ ধরে এই প্রথা চলে আসছে জোজিয়াঙে। বর্তমান সমাজ সেই প্রথাকে স্বীকার করে নিয়েছে। কিন্তু এর কোনও ঔষধি গুণ আছে কি না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে চিকিৎসকদের মধ্যে। যদিও স্থানীয়রা বিশ্বাস করেন এই খাবারে অনেক ঔষধি গুণ রয়েছে এবং পুরুষের যৌন শক্তি বৃদ্ধি পায়।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম