1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
হাতীবান্ধার আলোচিত হুন্ডী ও মাদকদ্রব্য চোরাকারবারীদের বিরুদ্ধে দফায় দফায় তদন্ত চলছে - দৈনিক শ্যামল বাংলা
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৩:২৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
আজ রোববার লালমনিরহাট ও কালীগঞ্জ উপজেলার ১৭টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন নবীগঞ্জ উপজেলায় ১৩ টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন।। আজ নির্বাচন ৪৮ টি ঝুকিপূর্ন আশুলিয়ায় শাহাবুদ্দিন মাদবরের নির্বাচনী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম জেলা প‌রিষ‌দ টাওয়ারের মূল ভবন নির্মাণ কা‌জের উদ্বোধন রাউজানের সীমান্তবর্তী রাঙ্গামাটি জেলার কাউখালী উপজেলার ডাক্তার ছোলা এলাকায় পাহাড় কাটা হচ্ছে হাটহাজারীর ১৩ ইউনিয়ন পরিষদে ভোট কাল ধর্মপাশায় ৫ম ধাপে ১০টি ইউপিতে হবে নির্বাচন শ্রীনগরে জমি লিখে নিতে সাবেক ইউপি সদস্যের হুমকি” দেশের কোন আইন এই এলাকায় কিছু করতে পারবে না নাছির উদ্দীন এর জনমতে ঈর্ষান্বিত হয়ে তার পরিবারের উপর প্রতিপক্ষের হামলা মোবাইল চুরির অপবাদে বিবস্ত্র করে যুবককে নির্যাতন

হাতীবান্ধার আলোচিত হুন্ডী ও মাদকদ্রব্য চোরাকারবারীদের বিরুদ্ধে দফায় দফায় তদন্ত চলছে

এলাকাবাসীর মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে (১৬তম পর্ব)

লাভলু শেখ হাতীবান্ধা থেকে ফিরে।।
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২১
  • ১০ বার

হাতীবান্ধার আলোচিত হুন্ডী ও মাদকদ্রব্য চোরাকারবারীদের বিরুদ্ধে দফায় দফায় তদন্ত চলছে। গত কয়েক দিন থেকে প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তর থেকে তাদের বিরুদ্ধে এসব তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।
লিখিত অভিযোগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার ৯নং আদর্শ গোতামারী ইউনিয়নের বহুল আলোচিত দইখাওয়া সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় গরু ও মাদকদ্রব্য পাচারের নিরাপদ রুট হওয়ায় ওই এলাকার ৪০ সদস্যের একটি মাদকদ্রব্য ও গরু পাচারকারীর দল রয়েছে। এদের মধ্যে হুন্ডী মাইদুল ইসলাম, আমিনুর রহমান, রবিউল ইসলাম ওরফে রবি ও ছাদিকুল ইসলাম নেতৃত্ব দিয়ে দইখাওয়া বিজিবি ক্যাম্পের কতিপয় কমান্ডার ও হাবিলদারের সাথে যোগসাজস করে লক্ষ টাকার কমিশনের বিনিময়ে প্রতিরাতে ওইসব ভারতীয় মাদকদ্রব্য পাচার করে এনে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সরবারহ করা হচ্ছে। স্থানীয়রা জানান, মাদকদ্রব্য চোরাকারবারীর ৪০ সদস্যের এ সিন্ডিকেটটি এতোটাই ভয়ংকর যে তাদের হোতা ৪ জনের বিরুদ্ধে স্থানীয় আলম বাদশা ও মিজানুর রহমান সহ একাধিক ব্যক্তি আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করার পর দফায় দফায় তদন্ত শুরু হলে হুন্ডী মাইদুল গং ক্ষিপ্ত হয়ে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে। একপর্যায়ে প্রকৃত ঘটনা আড়াল করতে হুন্ডী মাইদুলের ছোট ভাই জাকু ইসলাম, হুন্ডী আমিনুর রহমান ও এক অজ্ঞাত ব্যক্তি গত ২৩/১১/২১ইং তারিখ পৃথক ৩টি লিখিত অভিযোগ করে। প্রতিপক্ষ সংশ্লিষ্ট অভিযোগকারী আলম বাদশার নামে সাজানো কথিত এবং বিভ্রান্তকর তথ্য দিয়ে হাতীবান্ধা থানার ওসি বরাবরে উল্টো অভিযোগ করলে, বিষয়টি আলম বাদশা জানার পর ২৪/১১/২১ইং তারিখ বুধবার দুপুরে লালমনিরহাট পুলিশ সুপার বরাবরে সাজানো কথিত অভিযোগ দায়েরের প্রতিকার চেয়ে লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন যে, তার স্বাক্ষীগণকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে এবং যেকোন সময় খুন-খারাবির মতো ঘটনা ঘটাতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেন। এছাড়াও বাদী আলম বাদশা জানান, স্বাক্ষীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা হয়রানীমূলক মামলায় জড়িয়ে হেনস্তা করারও অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে। অভিযোগকারী আলম বাদশা ও এলাকাবাসী হুন্ডী মাইদুল ইসলাম গংকে অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবী জানিয়েছেন। বুধবার হাতীবান্ধা থানার ওসি এরশাদুল হকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ৭ কার্যদিবসের মধ্যে নয় তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন পাঠাতে বলেছেন কর্তৃপক্ষ। তবে আমি শুধু একা তদন্ত করছি না। অন্যান্য গোয়েন্দা বিভাগের পক্ষ থেকেও তদন্ত চলছে। এব্যাপারে আমিনুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবী করে। দফায় দফায় তদন্ত শুরু হওয়ায় এলাকাবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে। অপরদিকে দইখাওয়া বিজিবি ক্যাম্পের পক্ষ থেকে জানা গেছে বর্তমানে কোনো চোরাচালান হচ্ছে না। ওই সীমান্তে টহল জোরদার করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম