1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
সৈয়দপুরে দুদকের অভিযানে তিন টিকেট কালোবাজারি আটক - দৈনিক শ্যামল বাংলা
রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:৫৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
ঠাকুরগাঁওয়ে সীমান্ত হত্যা ও বিদেশী আগ্রাসন বন্ধের দাবীতে লাশের মিছিল ! নবীগঞ্জে শাখা বরাক বাঁচাতে পদযাত্রা পরিবেশ রক্ষায় নাগরিক আন্দোলনে এগিয়ে আসুন গাজীপুরে ১৫ ঘন্টায় তিনজনের আত্মহত্যা গাজীপুরে সিটি কর্পোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় শ্রমিকের মৃত্যু শ্রীপুরের বরমী থেকে একটি বিদেশি পিস্তল,১ রাউন্ড গুলি ও ১০০পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার-১ বাঁশখালীতে বেকারির শ্রমিক হত্যাকান্ডের আসামী মাহাবুব গ্রেপ্তার কুবিতে বিজ্ঞান উৎসব অনুষ্ঠিত। চৌদ্দগ্রামে সাবেক রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক এমপিকে মুক্তিযোদ্ধাদের ফুলেল শুভেচ্ছা মাগুরায় সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা, আটক-৩ মাগুরায় শহিদ ও মৃত মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

সৈয়দপুরে দুদকের অভিযানে তিন টিকেট কালোবাজারি আটক

মোঃজাকির হোসেন, নীলফামারী প্রতিনিধি:
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১০ অক্টোবর, ২০২২
  • ৯২ বার

নীলফামারীর সৈয়দপুরে অভিযান চালিয়ে তিন টিকিট কালোবাজারি কে আটক করেছে দূর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সোমবার (১০ অক্টোবর) সকাল থেকে দুপুর ৩ টা পর্যন্ত রেলওয়ে স্টেসনসহ শহরের আধুনিক বাণিজ্য কেন্দ্র প্লাজা সুপার মার্কেটে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়।

আটক তিনজন হলো স্টেসনের কুলি শামিম (৪৫), পিতা মৃত শফিক, হাতিখানা ক্যাম্প, আরিফ হোসেন (৩০), আইনুল হক, মুন্সিপাড়া,
সৈয়দপুর প্লাজা মার্কেটের দ্বিতীয় তলার গ্লোবাল কম্পিউটারের পরিচালক সারোয়ার সারফারাজ (৩২), সাইফুল ইসলাম, মুন্সিপাড়া। এসময় দুদকের উপস্থিতি টের পেয়ে সটকে পড়ে স্টেসনের কুলি সর্দার আব্বাস (৪৫) ও ফাতেমা কম্পিউটারের মালিক মতিয়ার রহমান (৩০)। ইলিয়াস প্রামাণিক, মুন্সিপাড়া।

অভিযানে নেতৃত্ব দেন দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় রংপুরের সহকারী পরিচালক সাফদারুল ইসলাম। তার সাথে ছিলেন উপ-পরিচালক নুরে আলম সিদ্দিক, জয়ন্ত শাহা, রুবেল হোসেনসহ সৈয়দপুর থানার দুইজন এসআই ও রেলওয়ে থানার এসআই মিন্টু আহমেদ।

দুদক টিম সকাল ৮ টায় স্টেসনে ও আশেপাশে যাত্রী বেশে খোঁজ খবর নিয়ে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী প্রথমে প্লাজা মার্কেট থেকে সারোয়ার ও পরে আরিফকে আটক করে। তাদের মাধ্যমে স্টেসন এলাকা থেকে সৈয়দপুর থেকে ঢাকাগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্টেনের আগামীতে ১৩ অক্টোবরের দুই সিটের একটি টিকিটসহ শামিম কে আটক করে। পরে তাদের স্টেসন কর্তৃপক্ষের জিম্মায় ছেড়ে দেন।

আটককৃতদেরসহ সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেসনের দায়িত্বরত স্টেসন মাস্টার টুটুল চন্দ্র সরকার, বুকিং সহকারী মাহবুবুর রহমান, ইশিতা পারভিনকে সরাসরি এবং স্টেসন মাস্টার শওকত আলী কে মুঠোফোনে জিজ্ঞাসাবাদ করেন দুদক। তারা সিসি ক্যামেরা নষ্ট, এনআইডি নেয়ার যৌক্তিকতা এবং কালোবাজারিদের কাছে টিকিট বিক্রির ব্যাপারে কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

আটক শামীম জানায়, সে সোমবার সকালে কাউন্টারের একজনের কাছ থেকে টিকিট কিনে নিয়েছে। পরে বেশি দামে বিক্রি করবে। এই কাজ করেই সে সংসার চালায়। সে আরও জানায়, তার কাছ থেকে আটক কম্পিউটার দোকানদাররাসহ অনেকেই টিকিট নেয়। আবার তাদের কাছ থেকেও সে কিনে। সেসহ কুলি সর্দার আব্বাস ও রুবেল নামে এক মাছ ব্যবসায়ীও একইভাবে টিকিট কালোবাজারি করে।

দুদক সহকারী পরিচালক সাফদারুল ইসলাম জানান, টিকিট নিতে যে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর (এনআইডি) নেয়া তা দিয়ে কেন নির্ধারণ করা যায়না যে কোন এনআইডি’র বিপরীতে কোন টিকিট দেয়া হয়েছে। তাহলে সংশ্লিষ্ট সফটওয়ারের কার্যকারীতা কি? জনগণের সাথে শুধু প্রতারণা করা হচ্ছে এই অজুহাতে।

তাছাড়া সিসি টিভি ক্যামেরা নষ্টের অজুহাতে কালো বাজারিদের টিকিট দিতে সহায়তা করছে স্টেসনের দায়িত্বরতরা। কেননা তারা অনেকে তিন চার বছর ধরে একইস্থানে কর্মরত। এসব বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা দিয়ে আটক তিনজনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য স্টেসন মাস্টারকে হস্তান্তর করা হলো।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম