1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে কুবি শিক্ষকদের চতুর্থ দিনের অবস্থান কর্মসূচি - দৈনিক শ্যামল বাংলা
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৮:২০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
ঘূর্ণিঝড় রেমাল: ঝুঁকি এড়াতে প্রস্তুত বাঁশখালী উপজেলা প্রশাসন মাগুরায় নবনির্বাচিত শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রাজনকে গণসংবর্ধনা প্রদান হোমনায় পরিবারতন্ত্র ভাঙতে চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়ে মাঠে নেমেছি-সিদ্দিকুর রহমান আবুল হাটহাজারীতে বাসচাপায় প্রাণ গেলো দুইজনের : চালক আটক আনোয়ারায় আনারস মার্কায় নিজে এবং আত্মীয়দের ভোট দিতে ও ভোট কেন্দ্র পাহারা দিতে বললেন কাজী মোজাম্মেল চন্দনাইশে এসে পৌঁছেছে নির্বাচনী সরঞ্জাম শিক্ষকদের দাবিতে দায়সারা প্রতিবেদনের অভিযোগ; অনাস্থা কুবি শিক্ষক সমিতির চন্দনাইশে অনুমোদনহীন মাছ বাজারে প্রশাসনের অভিযান ৬ মাছ ব্যবসায়ীকে ৯০ হাজার টাকা জরিমানা ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশের অভিযানে ৩ মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার , মাদক উদ্ধার মিশ্র ফলের বাগান ও মৎস্য প্রকল্প করে সফল রাউজান পৌর কাউন্সিলর আজাদ  

উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে কুবি শিক্ষকদের চতুর্থ দিনের অবস্থান কর্মসূচি

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৯ মে, ২০২৪
  • ১৬ বার

কুবি প্রতিনিধি ;

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএফএম আবদুল মঈন ও কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো: আসাদুজ্জামান এর নেতৃত্বে অছাত্র ও বহিরাগত কর্তৃক শিক্ষকদের উপর হামলার প্রতিবাদে উভয়ের পদত্যাগ /অপসারণের এক দফা দাবিতে ৪র্থ দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে কুবি শিক্ষক সমিতি।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে শিক্ষকরা এ কর্মসূচি করেন। বিশ্বিবদ্যালয় বন্ধ থাকলেও এই দিন প্রায় ত্রিশজন শিক্ষক অবস্থান কর্মসূচিতে যোগ দেন।

এ বিষয়ে শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ড. মো. মোকাদ্দেস উল ইসলাম বিদ্যুৎ বলেন, যতদিন উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ে তার পদে থাকবেন আমাদের এই আন্দোলন চলবে। একজন উপাচার্য হয়ে তিনি শিক্ষকদের উপর হামলা করেছেন। সাবেক শিক্ষার্থীদের মাধ্যমেও শিক্ষকদের উপর হামলা করিয়েছেন। অথচ সকল শিক্ষকরা তার নিরপত্তায় থাকার কথা ছিলো। যেখানে শিক্ষকরা তার কাছে নিরাপদ নয়। সেখানে ছাত্র-ছাত্রীরাও নিরাপদ থাকবে না। আমরা তার পদত্যাগ চাই। পাশাপাশি, যে সকল অছাত্র শিক্ষকদের উপর হামলা করেছে তাদেরও বিচার দাবি করছি।

উল্লেখ্য, শিক্ষকদের ৭ দফা দাবি নিয়ে বিভিন্ন আন্দোলন ও কর্মসূচি পালন করে আসছিলো বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। পরে উপাচার্য, কোষাধ্যক্ষ ও প্রক্টরকে বিশ্ববিদ্যালয়ে অবাঞ্চিত ঘোষণা করে তাদের দপ্তরে তালা দেয় সংগঠনটি। সর্বশেষ, ২৮ এপ্রিল উপাচার্য ও শিক্ষক সমিতির সাথে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে দুই পক্ষই থানায় অভিযোগ জানায়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ৩০ এপ্রিল জরুরি সিন্ডিকেট সভার মাধ্যমে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে দেওয়া হয়। এদিকে শিক্ষকদের উপর হামলার প্রতিবাদে উপাচার্যের পদত্যাগ/অপসারণের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছে শিক্ষক সমিতি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম