1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
কাশিমপুর কারাগারে সমকামিতা এবং সীমাহীন দূর্নীতির অভিযোগ চীফ রাইটার আতাউর এর বিরুদ্ধে - দৈনিক শ্যামল বাংলা
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:৫৮ অপরাহ্ন

কাশিমপুর কারাগারে সমকামিতা এবং সীমাহীন দূর্নীতির অভিযোগ চীফ রাইটার আতাউর এর বিরুদ্ধে

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৫ মে, ২০২০
  • ১৪০ বার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সমকামিতা এবং সীমাহীন দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে গাজীপুর কাশিমপুর-২ কারাগারের চীফ রাইটার আতাউর এর বিরুদ্ধে। জানা যায় কারা অভ্যন্তরে নগদ টাকার অবৈধ লেনদেন, মাদক এবং সমকামিতাসহ নানা অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। বর্তমান চীফ রাইটার আতাউর প্রত্যেক বন্দি হতে ওয়ার্ড বদলি বা কাটা বাবদ ১০০০/- টাকা আদায় করে। কেউ টাকা দিতে আপত্তি করলে সে বলে আমি জেলারকে ১লক্ষ ৩০হাজার টাকা দিয়ে কাজ পাশ করে নিয়েছি সুতরাং আমার টাকা তুলতে হবে।
এছাড়াও কারা প্রশাসনের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় চীফ রাইটার আতাউর কয়েকজন কম বয়সের ছেলেকে তার সাথে সমকামিতায় লিপ্ত হতে বাধ্য করে। তার বিরুদ্ধে এ ধরনের একাধিক অভিযোগ উঠার পরও সে চীফ রাইটারের মত বিরাট পদে আছে প্রশাসনকে মোটা অংকের টাকা দিয়ে ম্যানেজ করে।
এছাড়াও কারা অভ্যন্তরে মাদক সহ এরক আরও অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। সম্প্রতি একজন মিডিয়া কর্মী আইসিটি মামলায় কাশিমপুর-২ কারাগার থেকে জামিনে মুক্ত হওয়ার পর কারা প্রশাসনের কাছে এই বিষয়ে একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেন।
অভিযোগপত্রটি নিন্মে তুলে সংযুক্ত হলো-

বরাবর,
জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, গাজীপুর।
সিনিয়র জেল সুপার, কাশিমপুর কেন্দ্রিয় কারাগার পার্ট-২(দুই), কাশিমপুর, গাজীপুর।
জেলার, কাশিমপুর কেন্দ্রিয় কারাগার পার্ট-২(দুই), কাশিমপুর, গাজীপুর।

বিষয়ঃ কারা অভ্যন্তরে সমকামিতা এবং সীমাহীন দূর্নীতির জন্য চীফ রাইটার আতাউর কে অপসারন করে শাস্তির ব্যবস্থা করার জন্য আবেদন।

জনাব,
যথাবিহীত সম্মান প্রদর্শন পূর্বক বিনীত নিবেদন এই যে, আমি মোঃ ফেরদৌস আহাম্মেদ। ইলেকট্রনিক মিডিয়ার একজন কর্মী। গত জানুয়ারী মাসে আই.সি.টি এ্যাক্ট এর একটি মামলায় প্রমে ঢাকা কেন্দ্রিয় কারাগার এবং পরবর্তীতে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের পার্ট (২) দুই এর, ৬নং ভবনে আটক ছিলাম। একজন মিডিয়া কর্মী হিসেবে কৌতুহল বসত কিছু বিষয় পর্যবেক্ষণ করেছি, যার কিছু বিষয় বন্দি এবং প্রশাসন উভয়ের জন্যই কল্যাণকর তাতে আমার কোন মাথাব্যাথা বা আপত্তি নেই। আর কিছু বিষয় যাহা গরিব ও অসহায় বন্দিদের জন্য অত্যান্ত দুঃখ ও কষ্টের। বর্তমান চীফ রাইটার আতাউর প্রত্যেক বন্দি হতে ওয়ার্ড বদলি বা কাটা বাবদ ১০০০/- টাকা আদায় করে যা অসহায় ও গরীবদের মারাত্মক জুলুম, টাকা দিতে আপত্তি করলে বলে আমি জেলারকে ১লক্ষ ৩০হাজার টাকা দিয়ে কাজ পাশ করে নিয়েছি আমার টাকা তুলতে হবে।
দ্বিতীয় যে বিষয়টি আরোও অন্যায় তা হলো চীফ রাইটার আতাউর কয়েকজন কম বয়সের ছেলে কে তার সাথে নিয়ে
১/১১ তে থাকে এবং ইচ্ছায় বা অনিচ্ছায় তাদের সাথে সমকামিতায় লিপ্ত হয়। গত কিছু দিন আগে ১নং বিল্ডিংয়ের ফারুক নামের একজন বন্দি আতাউর কে অন্য একজন এর সাথে সমকামিতা করতে দেখে ফেলে এবং আপত্তি জানায় ফলে তাকে ১নং বিল্ডিং থেকে অন্য বিল্ডিং এ বদলি করে দেয়। বিষয় টি সুবেদার পর্যন্ত জানাজানি হলেও আতাউর মোটা অঙ্কের টাকা খরচ করে পার পেয়ে যায়।
গত ২৬/৩/২০২০ইং তারিখ ডেপুটি জেলার (২) দুই জন বন্দি কে ৬/১৯নং ওয়ার্ড কেটে দেন কিন্তু ৬ এর ১৯ থেকে কিছু টাকা দিয়ে আতাউর কে বলা হয় তাদের কে অন্য ওয়ার্ডে সরিয়ে দিতে ঐ দিনেই উক্ত দুই বন্দিকে যথাক্রমে ৪/৫ ও ৬/৭নং ওয়ার্ডে পাঠিয়ে দেয় ৪/৫ এ অবস্থান কারী বন্দির নামঃ কামাল পিতাঃ নবাব আলী হাজতী নং ৮৯৪/২০
৬/৭ এ অবস্থান কারী বন্দির নামঃ আকতার পিতাঃ বাতেন হাজতী নং ৮১৫/২০ চীফ রাইটার আতাউর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সুরমা ৩ এর রাইটার থাকা কালীন শাওন নামের একজনের সাথে সমকামিতার কারণে তাকে চালান করে
কাশিমপুর-২ পাঠানো হয়, এখানে চীফ রাইটার এর প্রভাব খাটিয়ে সেই শাওনকে তার ওয়ার্ডে রেখে চালাচ্ছে সমকামিতার মত ক্ষমার অযোগ্য পাপ। শুধু শাওন নয় মেহেদী ও আরো দুই তিন জন কম বয়সি ছেলে কে তার ওয়ার্ডে রেখে এই অপরাধ চালিয়ে যাচ্ছে কারাবিধি অনুযায়ী যাহা কঠিন শাস্তি যোগ্য অপরাধ।

অতএব, মোহদয় এর নিকট আবেদন এই যে, উপরে উল্লেখিত অপরাধ সমূহ বিবেচনা করিয়া চীপরাইটার আতাউর এর বিরুদ্ধে শাস্তি মূলক, ব্যবস্থা গ্রহণ করে উক্ত দায়িত্ব হতে অপসারণ করিতে আপনার একান্ত মর্জি হয়।

নিবেদক
মোঃ ফেরদৌস আহাম্মেদ
মিডিয়া কর্মী।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম