রাত পোহালেই নবীগঞ্জ পৌর নির্বাচন-মেয়র পদে লড়াই হবে ত্রিমুখী কে হচ্ছেন পৌর পিতা

হাবিবুর রহমান চৌ: শামীম নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ)

শেয়ার করুন
  • 28
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    28
    Shares

নবীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন প্রার্থীরা। সমান তালে নির্ঘুম প্রচার-প্রচারণায় চালিয়ে যাচ্ছেন মেয়র-কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর প্রার্থীরা। ১৬ জানুয়ারি শনিবার রাত পোহালেই পঞ্চমবারের মতো অনুষ্ঠিত হবে নবীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন। কে হাসবেন বিজয়ের হাসি। এ নিয়ে চলছে চুল-ছেঁড়া বিশ্লেষণ। তবে সাধারন ভোটারদের সাথে আলাকালে জানা গেছে নির্বাচন হবে ত্রিমুখী।১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত নবীগঞ্জ পৌরসভা ৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত। বর্তমানে এই পৌরসভার মোট ভোটার সংখ্যা ১৮ হাজার ৮শ ৭৭ জন। নির্বাচনে সামনে রেখে নবীগঞ্জ শহরসহ পৌর এলাকার আশপাশ পোস্টার-ব্যানার-ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে, প্রচার-প্রচারণা ও মাইকিংয়ে সরব নবীগঞ্জ পৌর এলাকার জনপদ। কে হচ্ছেন আগামী ৫ বছরের জন্য পৌর পিতা তা নিয়ে আলোচনা গড়িয়েছে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও গ্রামগঞ্জে। পৌরসভায় মেয়র পদে ৩জন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১২ ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৭ জন প্রার্থী মিলিয়ে মোট ৫২ জন প্রার্থী ভোটের লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন । মেয়র পদে প্রতিদ্ব›দ্বীতা করছেন ৩জন প্রার্থী তারা হলেন- নবীগঞ্জ পৌরসভার বর্তমান মেয়র ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ছাবির আহমদ চৌধুরী (ধানের শীষ), আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী গোলাম রসুল রাহেল চৌধুরী (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহবুবুল আলম সুমন (জগ)। তিন মেয়র প্রার্থীর পদচারণায় মুখর পৌরসভার জনপদ। মেয়র প্রার্থীর পাশাপাশি শেষ মুহুর্তে নির্ঘুম প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলররা । পৌর এলাকার বিভিন্ন গ্রাম, হোটেল, রেস্তুরাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নানা কৌশলে ভোটারদের মন জয় করতে তীব্র শীতের মাঝেও প্রার্থীদের নির্ঘুম প্রচারণায় ভোটের আমেজ লক্ষ্য করা যাচ্ছে।অপর দিকে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির পাল্টাপাল্টি অভিযোগে উত্তাপ ছড়িয়েছে নবীগঞ্জের রাজনীতির মাঠে ।আওয়ামীলীগের অভিযোগ- নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নাশকতার পরিকল্পনা করছে বিএনপি। অপরদিকে বিএনপির অভিযোগ- নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করার জন্যই আওয়ামীলীগ মিথ্যাচারের আশ্রয় নিয়ে মামলা দিয়ে নেতাকর্মীকে হয়রানি করা হচ্ছে। তবে সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী।

ভোটের সমিকরণ বলছে-নানা গ্রুপিংয়ের পরও বিএনপির ভোট ব্যাংক নিয়ে মাঠে সরব রয়েছে বর্তমান মেয়র ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ছাবির আহমদ চৌধুরী, আওয়ামীলীগের ভোট ব্যাংক নিয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছেন আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী গোলাম রসুল রাহেল চৌধুরী। তবে শ্রমিক ও মৎসজীবী নেতা হিসেবে সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহবুবুল আলম সুমন।
নির্বাচন প্রসঙ্গে বর্তমান মেয়র ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ছাবির আহমদ চৌধুরী বলেন- নির্বাচনকে সামনে রেখে আমার নেতাকর্মীদের মিথ্যা ও সাজানো মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে, ১৬ জানুয়ারি সাধারণ মানুষ যাতে ভোট কেন্দ্রে যেতে পারে সেই অবস্থান নিশ্চিত করার জন্য প্রশাসনের প্রতি আহবান জানাচ্ছি। যদি মানুষ সুষ্ঠভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে আমি শতভাগ আশাবাদী জনসাধারণ আমাকে পুনরায় নির্বাচিত করবে।
আগামী ১৬ জানুয়ারি নবীগঞ্জ পৌরসভায় ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এ পৌরসভায় মোট ১০টি ভোটকেন্দ্রে ৪৮ টি বুথে ভোটগ্রহণ করা হবে। মোট ভোটার সংখ্যা ১৮ হাজার ৮শ ৭৭ জন।মোট ভোটারের মাঝে পুরুষ ৯ হাজার ১ শত ২২ জন,নারী ৯ হাজার ৭শত ৫৫ জন।
নির্বাচন সৃষ্ট ও শান্তিপূর্ণ করতে ইতিমধ্যেই সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন।


শেয়ার করুন
  • 28
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    28
    Shares
  •  
    28
    Shares
  • 28
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.