সোমবার, ১৪ Jun ২০২১, ০২:৩৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
বিএফইউজে-ডিইউজে বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃবৃন্দ গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা রক্ষায় বিচার বিভাগের নিরপেক্ষ ভূমিকা জরুরি আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলে পুলিশের ধাওয়ায় এক নারী শ্রমিকের মৃত্যু তিতাস তাকওয়া ফাউন্ডেশনের সভাপতি শাহজালাল, সম্পাদক ফারুক ও সাংগঠনিক সজীব থানায় সাধারণ ডায়েরি বা মামলা গ্রহণ করেনি মাগুরায় ১৭ জন নতুন করোনা রোগী শনাক্ত! জেলা শহরে ও মহম্মদপুরে লকডাউন ঘোষনা উত্তরা আধুনিক মেডিকেলে ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারিদের ইনজেকটিং ড্রাগ্সের রমরমা ব্যবসা স্বাস্থ্যবিধি মেনে কুবিতে সশরীরে পরীক্ষা শুরু খুটাখালীতে ইজিবাইক উল্টে গৃহবধুর মৃত্যু রংপুরে ঘাঘট নদীতে দুই ভাইবোনের মৃত্যু বাঁচতে চায় কাজল রেখা, কিন্তু পরিবারের সাধ্য নেই

রক্তের ভুল গ্রুপ নির্ণয়ে প্রসূতির মৃত্যু

আনোয়ার হোসেন শামীম গাইবান্ধা প্রতিনিধি

অসহায় নবজাতক শিশুর ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত
গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সিজারিয়ান অপারেশনের পর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে এক প্রসূতির (২৫) মৃত্যু হয়েছে। তবে স্বজনদের দাবি, ভুল গ্রুপ নির্ণয় করে রক্ত দেয়ার ফলেই এই মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এদিকে বেঁচে থাকা অসহায় নবজাতক শিশুটির ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার কামারপাড়া গ্রামের শাহিন মিয়ার গর্ভবতী স্ত্রী মিম আকতারকে সোমবার গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার বিকেলে তার সিজারিয়ান অপারেশন হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রোগীর স্বজনদের রোগীর জন্য এবি পজিটিভ গ্রুপের রক্ত নিয়ে আসতে বলে। এরপর দুই ব্যাগ এবি পজিটিভ রক্ত দেয়ার পর প্রসূতির অবস্থার উন্নতি না হয়ে অবনতি ঘটলে কিছুক্ষণ পর প্রসূতি মীম আকতার মারা যায়।

পরে স্বজনরা বিভিন্ন ক্লিনিক থেকে করা পরীক্ষার রিপোর্টে তারা দেখতে পায় রোগীর রক্তের গ্রুপ ‘ও’ পজিটিভ। অথচ তাকে দেয়া হয়েছে এবি পজেটিভ গ্রুপের রক্ত। এতে তার মৃত্যু হলে স্বজনরা বিক্ষোভ শুরু করে এবং কর্তব্যরত চিকিৎসকদের উপর চড়াও হয়।

এব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণেই প্রসূতি মারা গেছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রসূতির স্বজনরা বিক্ষুব্ধ হয়ে চিকিৎসকদের উপর চড়াও হয়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, তাদের পরিবারের অনেকেরই রক্তের গ্রুপ ‘ও’ পজিটিভ। কিন্তু ডাক্তার তাহেরা আক্তার মনি এবি পজিটিভ রক্ত চাওয়ায় তারা সেই গ্রুপের রক্ত সংগ্রহ করে দেয়। চিকিৎসক ভুল গ্রুপের রক্ত রোগীর শরীরে পুশ করার কারণে রোগী মারা গেছে।

এব্যাপারে হাসপাতালের কর্তব্যরত গাইনি চিকিৎসক ডা. তাহেরা আক্তার মনি জানান, অতিরিক্ত রক্তরক্ষণে প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া অন্য কোন হাসপাতালে রক্ত পরীক্ষায় রক্তের গ্রুপ ‘ও’ পজিটিভ হয়েছিল কিনা তা তিনি অবগত নন। গাইবান্ধা সদর থানার ওসি মাহফুজুর রহমান জানান, এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় থানায় কোন অভিযোগ দেয়া হয়নি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
Design & Developed BY TechPeon.Com