সোমবার, ১৪ Jun ২০২১, ০৩:৪০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
বিএফইউজে-ডিইউজে বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃবৃন্দ গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা রক্ষায় বিচার বিভাগের নিরপেক্ষ ভূমিকা জরুরি আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলে পুলিশের ধাওয়ায় এক নারী শ্রমিকের মৃত্যু তিতাস তাকওয়া ফাউন্ডেশনের সভাপতি শাহজালাল, সম্পাদক ফারুক ও সাংগঠনিক সজীব থানায় সাধারণ ডায়েরি বা মামলা গ্রহণ করেনি মাগুরায় ১৭ জন নতুন করোনা রোগী শনাক্ত! জেলা শহরে ও মহম্মদপুরে লকডাউন ঘোষনা উত্তরা আধুনিক মেডিকেলে ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারিদের ইনজেকটিং ড্রাগ্সের রমরমা ব্যবসা স্বাস্থ্যবিধি মেনে কুবিতে সশরীরে পরীক্ষা শুরু খুটাখালীতে ইজিবাইক উল্টে গৃহবধুর মৃত্যু রংপুরে ঘাঘট নদীতে দুই ভাইবোনের মৃত্যু বাঁচতে চায় কাজল রেখা, কিন্তু পরিবারের সাধ্য নেই

অবশেষে মায়ের কোলেই ফিরলো আকরাম

প্রতিনিধি তাড়াইল (কিশোরগঞ্জ): কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে হারিয়ে যাওয়া প্রতিবন্ধী কিশোর আকরাম(১৫) অবশেষে ফিরে পেলো নিজের মা-বাবাকে।শুক্রবার(২১মে) রাত সাড়ে ১১ টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.তারেক মাহমুদের উপস্থিতিতে আনন্দঘন পরিবেশে আকরামকে তুলে দেয়া হয় মা-বাবার হেফাজতে।

জানা গেছে,প্রায় এক বছর আগে নরসিংদী জেলার রায়পুরা উপজেলার মহেশপুর ইউনিয়নের বেগমাবাদ(কাঁচেরকান্দি) নিজ বাড়ি থেকে হারিয়ে যায় আকরাম।হারিয়ে যাওয়ার পর থেকেই কিশোরগঞ্জ জেলার তাড়াইল উপজেলার জাওয়ার ইউনিয়নের পূর্ব জাওয়ার নতুন বাজার এলাকায় বসবাস করে আসছিলো প্রতিবন্ধী কিশোর আকরাম।গেলো বৃহস্পতিবার (২০মে) এই প্রতিবেদক আকরামকে নিয়ে একটি সংবাদ প্রকাশ করার পর তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেবু ভাইরাল হয়।পরদিন শুক্রবার(২১মে) সকালে সংবাদটি আকরামের পরিবারের দৃষ্টিগোচর হলে এই প্রতিবেদকের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে তাড়াইলের উদ্যেশ্যে রওনা দেয় আকরামের পরিবার।রাত সাড়ে ৮ টার দিকে তাড়াইল উপজেলা সদর থেকে এই প্রতিবেদক সহ আকরামের বর্তমান ঠিকানা পূর্বজাওয়ার নতুন বাজারে গিয়ে আকারামকে জরিয়ে ধরে মা খোদেজা আক্তার।আকরাম নিজের বাবা মাকে পেয়ে আনন্দে কেঁদে ফেলেন।এলাকাবাসী সহ আকরামকে এতদিন লালন পালন করা সকল মানুষদের মাঝে চোখের জলে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারনা হয়।
আকরামের বাবা দরিদ্র কৃষক মো.মুছলিম মিয়া জানান,তাঁর ছয় ছেলের মধ্যে আকরাম সবার ছোট।এখানে সবাই আমার ছেলেকে আকরাম হিসেবে জানলেও আসলে ওর নাম রাব্বির হোসেন।গেলো কুরবানির ঈদের মাস খানেক আগে থেকে রাব্বির হোসেনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না।এলাকায় মাইকিং,পোস্টারসহ আশেপাশের জেলা এবং বিভিন্ন রেলস্টেশন,নৌঘাট কোথাও বাকি রাখিনি রাব্বির হোসেনকে খোঁজার।
উপজেলার পূর্বজাওয়ার নতুন বাজারের মুদি দোকানদার মোতাহার জানান,প্রায় এক বছর আগে কে বা কারা আকরামকে রাতের বেলায় দোকানের বাড়ান্দায় ফেলে রেখে যায়।তখন আকরাম কথা বলতে ও উঠে দাঁড়াতে পারতো না।আমরা এই বাজারের সকল দোকানিরা আকরামকে খাদ্য ও স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দিলে ধীরে ধীরে সুস্থ্য হয়ে উঠে আকরাম।আশেপাশের সকল মানুষ আকরামকে নিজেদের পরিবারের একজন করে নেয়ে পরম মমতায়।প্রায় একশ পরিবারের সকল ঘরেই যাতায়াত ছিলো আকরামের।প্রথম প্রথম নাম বলতে পারতো না আকরাম।বাড়ির কথা জিজ্ঞাস করলে বলতো ভৈরব।আকরাম নামটি আমাদের দেয়া নাম।আকরাম নামেই পরিচিত হয়ে উঠে বাবা মায়ের দেয়া নাম রাব্বির হোসেন।
এর আগে হারানো আকরামের সংবাদ প্রচারিত হওয়ার পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দ্রুত নিউজটির কপি করে ভৈরব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুবনা ফারজানার নিকট প্রেরণ করলে তিনি তাৎক্ষণিক আশেপাশে বিভিন্ন মাধ্যমে আকরামের পরিবারের খোঁজ করেন।অবশেষে আকরামের পরিবার ভৈরব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করে মুঠোফোনে তাড়াইল উপজলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে কথা বলেন আকরামের পরিবার।সেই সূত্র ধরেই তাড়াইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.তারেক মাহমুদ এই প্রতিবেদকসহ পূর্বজাওয়ার নতুন বাজার থেকে রাব্বির হোসেন উরফে আকরামকে এলাকাবাসীর সহযোগীতায় নিজ পিতা মাতার হাতে তুলে দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
Design & Developed BY TechPeon.Com