1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
খাগড়াছড়িতে ঐতিহ্যবাহী বৈসু উৎসব উদযাপন উপলক্ষে ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর নারী ও তরুণীরা নানান সাজে। - দৈনিক শ্যামল বাংলা
শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
নবীনগরে কোটাপদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল রাউজানে তিনদিন ব্যাপী বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন রাউজানে ৬০ প্রজাতির ১ লাখ ৮০ হাজার ফলজ ও ঔষধি গাছের চারা রোপন কর্মসূচি উদ্বোধন মাগুরায় নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান শরিয়াতউল্লাহ হোসেন রাজনকে গণসংবর্ধনা প্রদান  *জরুরী রক্ত প্রয়োজন*রক্তের গ্রুপ: AB+ (এবি পজেটিভ) ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে চৌদ্দগ্রামে তিন ছাত্রলীগ নেতার পদত্যাগ কক্সবাজারে সাংবাদিকদের উপর আ’লীগ-ছাত্রলীগের হামলা সারাদেশে ছাত্রসমাজের উপর মর্মান্তিক হামলার প্রতিবাদ ও কোটা সংস্কারের এক দফা দাবিতে দোহাজারীতে বিক্ষোভ মিছিল  এমএসআর’র ১ কোটি ২৬ লক্ষ টাকা লুটপাট সমস্যায় জর্জরিত চট্টগ্রামের চন্দনাইশ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-অধিকাংশ চিকিৎসক অনুপস্থিত থাকেন নবীনগরে কুতুবিয়া দরবার শরীফে শাহাদাতে কারবালা মাহফিল অনুষ্ঠিত

খাগড়াছড়িতে ঐতিহ্যবাহী বৈসু উৎসব উদযাপন উপলক্ষে ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর নারী ও তরুণীরা নানান সাজে।

আলমগীর হোসেন, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি।
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২২
  • ১৬৭ বার

পাহাড়ি ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর নারী ও তরুণীরা তাঁদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক রিনাই-রিসা ও বিভিন্ন গয়নাসহ নানান সাজে সেজেছে এসেছে। তরুণরা ধুতি ও তাঁদের ঐতিহ্যবাহী শাট পড়ে প্রস্তুত। পিছিয়ে নেই শিশুরাও। তাঁরাও তাঁদের পোশাক পড়ে র্যা লীতে অংশগ্রহন করতে আসে। পুরো র্যা লীটা যেন একটা রং ধুন। তরুণীদের সাজে বিভিন্ন রঙে রাঙিয়ে তোলে র্যা লীকে।

ঐতিহ্যবাহী বৈসু উৎসব উদযাপন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র্যা লী বের করে বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদ।

আজ রবিবার ( ১০ এপ্রিল ) সকাল সাড়ে নয়টায় খাগড়াছড়ি উপজেলা পরিষদ মাঠ থেকে বেলুন উড়িয়ে বর্ণাঢ্য র্যালী শুরু করে।

তাঁর আগে সংক্ষিপ্ত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি ভারত প্রত্যাগত উপজাতীয় শরনার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এপি বলেন, করোনার কারণে আমরা গত দুই বছর উৎসব পাল করতে পারেনি। এই আনন্দটা আমরা হাত ছাড়া করতে চাই না। তাই এই ধারাবাহিকতায় পাহাড়ে উৎসব শুরু হয়েছে। আজ র্যা লীর মধ্য দিয়ে। চৈত্র মাসের শেষে আমরা বৈসু পালন করি। পার্বত্য চট্টগ্রামে চারদিন ব্যাপি অনুষ্ঠান হয়ে থাকে। চাকমা, মারমা ও ত্রিপুরারা আনন্দটা করবে।

তিতি বলেন, সকল জাতিগোষ্ঠির ধর্ম-বর্ণ সকল সম্প্রদায় মিলে একাকার হয়ে আমাদের আনন্দটা ভাগাভাগি করে নিতে পারি।

জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রæ চৌধুরী অপু বলেন, করোনার কারণে আমরা দুই বছর বৈসাবি উৎসব পালন করতে পারিনি। আজকে শুরু শুভেচ্ছা বিনিময় দিন। দুই বছর পর বৈসাবি উৎসব চলছে। আজ আমরা মন দিয়ে আনন্দ করব। আমরা সবাই আনন্দ করব। আমাদের ঐতিহ্য ধরে রাখতে হবে।

খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল আজিজ বলেন, নয়ন ভরে দেখার পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। পাহাড়ের ঐতিহ্য ফুটে উঠেছে। বৈসাবির উৎসবের সাফল কামনা করছি এব সবাই যেন সুন্দর ভাবে উপভোগ করতে পারি। তিনি বলেন, এখানে আইনশৃঙ্খলাসহ সামগ্রীয় বিষয়ে পুলিশ কাজ করছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল আজিজ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রæ চৌধুরী, জেলা পরিষদের সদস্য ও মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদীকা শাহীনা আক্তার, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শানে আলম, সদর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজীৎ রায় দাশসহ বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদের নেতারা।

এদিকে বিভিন্ন উপজেলা থেকে ত্রিপুরা জনগোষ্ঠির মানুষরা র্যা লীতে অংশগ্রহন করে। জেলা পরিষদ থেকে র্যা লী শুরু করে টাউনহলে গিয়ে শেষ হয়। র্যা লীতে ঐতিহ্যবাহী বাদযন্ত্রের তালে তালে তরুণী ও তরুণরা নেচে-গেয়ে পুরো সড়কে মাতিয়ে রাখেন। পরে ঐতিহ্যবাহী গরয়া নৃত্য পরিবেশনার মাধ্যমে শেষ হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2023 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম