টিকা গ্রহণের প্রায় এক মাস পর করোনায় সাংবাদিকের মৃত্যু

নরসিংদী প্রতিনিধি :

নরসিংদীতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তোফাজ্জল হোসেন (৫৩) নামের এক সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে। (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।
মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) দিবাগত রাত ১২টার দিকে রাজধানী ঢাকার একটি হাসপাতালে নেওয়ার পথে নরসিংদীর মাধবদী এলাকায় তাঁর মৃত্যু হয়। এর আগে ২৫ ফেব্রুয়ারি ১০০ শয্যা বিশিষ্ট নরসিংদী জেলা হাসপাতালে তিনি করোনার টিকা নিয়েছিলেন।

বুধবার ২৫ মার্চ বেলা ১১টার দিকে শহরের তরোয়া এলাকার কাবুল শাহ্ মাজারের ইদগাহ মাঠে জানাজা নামাজ শেষে সেখানেই সাংবাদিক তোফাজ্জল হোসেনকে দাফন করা হয়। তিনি নরসিংদীর স্থানীয় সাপ্তাহিক নরসিংদীর খবর এর বার্তা সম্পাদক ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে নরসিংদীর সাংবাদিক মহলে শোকের ছাঁয়া নেমে এসেছে।
টিকা নেওয়ার প্রায় একমাস পর করোনায় আক্রান্ত হয়ে তাঁর মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন নরসিংদী প্রেসক্লাবের সভাপতি মাখন দাস।
তিনি জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সাংবাদিক তোফাজ্জল হোসেনের শারীরিক পরিস্থিতির খোঁজখবর প্রতিদিনই রাখছিলাম। করোনা আক্রান্ত হলেও তাঁর শরীরে সেভাবে করোনার কোন লক্ষণ ছিল না। মঙ্গলবার রাতে হঠাৎ তাঁর শ্বাসকষ্ট শুরু হলে তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসকদের পরামর্শে তাকে রাজধানীর ঢাকায় নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

তাঁর পরিবারের লোকজন জানান, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ১০০ শয্যা বিশিষ্ট নরসিংদী জেলা হাসপাতালে করোনার টিকা নেন তোফাজ্জল হোসেন। এর ১৫ দিন পর জ্বর-ঠাণ্ডা হওয়ায় করোনা সন্দেহে গত ১৬ মার্চ তোফাজ্জল হোসেনের নমুনা পরীক্ষা করানো হয়। ওই নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে তাঁর করোনা পজেটিভ আসে। এরপর থেকেই তিনি নিজবাড়িতে আইসোলেশনে ছিলেন। এ সময় তাঁর অন্য কোন করোনার লক্ষণ না থাকায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হননি।
মঙ্গলবার রাতে হঠাৎ তাঁর শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। তারপরই তাকে স্থানীয় চিকিৎসকদের পরামর্শে তাকে রাজধানীর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছিল। মাধবদী এলাকায় পৌঁছার পর পথেই তাঁর মৃত্যু হয়।
সাংবাদিক তোফাজ্জল হোসেন নরসিংদী শহরের ভেলানগরে স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে বসবাস করতেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি ডায়বেটিকে ভুগছিলেন। দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে নরসিংদীতে সাংবাদিকতা করা তোফাজ্জল হোসেন নরসিংদী প্রেসক্লাবের সদস্য ও সাবেক দপ্তর সম্পাদক ছিলেন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.